BREAKING NEWS

১২ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৯  রবিবার ২৯ মে ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

জ্বলছে উত্তর-পূর্ব, CAB বিক্ষোভের আঁচ দিল্লি-সহ গোটা দেশে

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: December 13, 2019 5:57 pm|    Updated: April 5, 2022 3:47 pm

massive crowd protesting against the CAB all over India

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: নাগরিকত্ব সংশোধনী বিলের বিরুদ্ধে বিক্ষোভ অসমের গণ্ডি পেরিয়ে গোটা দেশে ছড়িয়ে পড়েছে। উত্তরপূর্বের অন্য রাজ্যগুলি তো বটেই, বিতর্কিত এই বিলটির প্রতিবাদে এরাজ্যের বিভিন্ন প্রান্তেও শুরু হয়েছে বিক্ষোভ। বিক্ষোভের আঁচ গিয়ে পড়েছে রাজধানী দিল্লি, কর্ণাটক, কেরল, উত্তরপ্রদের মতো রাজ্যগুলিতে।


অসমে এখনও পর্যন্ত ২৬ কলাম কেন্দ্রীয় বাহিনী মোতায়েন করা হয়েছে। গোটা রাজ্যে স্কুল-কলেজ আগামী ২২ ডিসেম্বর পর্যন্ত বন্ধ রাখা হয়েছে। কার্যত গোটা রাজ্যেই কারফিউ জারি করা হয়েছে। ডিব্রুগড়ে কারফিউ কিছুটা শিথিল হলেও, রাজ্যের বাকি অংশে তা বলবৎ। অসম সরকারের তরফে জরুরি পরিষেবার জন্য হেল্পলাইন নম্বর চালু করা হয়েছে। জরুরি পরিষেবার আলাদা সেন্টারও খোলা হয়েছে। এদিকে, বিরোধীরাও কোমর বাঁধছে। কংগ্রেসের তরফে রাজ্যজুড়ে প্রতিবাদ কর্মসূচির ডাক দেওয়া হয়েছে। তিনদিনের অনশন সত্যাগ্রহের ডাক দিয়েছে অল অসম স্টুডেন্টস ইউনিয়ন। যাতে শামিল হচ্ছেন বুদ্ধিজীবী থেকে শুরু করে শিল্পমহলও।

[আরও পড়ুন: ‘ধর্ষককে খুন করলেই এক লক্ষ টাকা পুরস্কার’, ঘোষণা অযোধ্যার পুরোহিতের]


একই পরিস্থিতি মেঘালয়ের রাজধানী শিলংয়েও। বৃহস্পতিবার রাত থেকে শিলংয়ে কারফিউ জারি করা হয়েছে। আজ কারফিউ কিছুটা ঢিলে হতেই রাস্তায় বিক্ষোভ দেখানো শুরু করেন স্থানীয়রা। তাঁদের নিয়ন্ত্রণে আনতে নিরাপত্তাকর্মীদের গুলি পর্যন্ত চালাতে হয়েছে বলে খবর। এদিকে, বিক্ষোভের জেরে শিলং সফর বাতিল করতে বাধ্য হয়েছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ।

[আরও পড়ুন: অগ্নিগর্ভ অসম, CAB-এর প্রতিবাদে বিজেপি ছাড়লেন অভিনেতা যতীন বোরা]


বিক্ষোভের আঁচ এসে পড়েছে রাজধানী দিল্লিতেও। দিল্লির জামিয়া এলাকায় এদিন বিক্ষোভে শামিল হন জামিয়া মিলিয়া বিশ্ববিদ্যালয়ের পড়ুয়ারা। জাতীয় পতাকা হাতে অবরোধ করা হয় রাস্তা। বেশ কিছু জায়গায় অগ্নিসংযোগ করা হয়েছে। ফাটানো হয়েছে শব্দবাজিও। বিক্ষোভের জেরে ব্যহত হয়েছে মেট্রো পরিষেবাও। দিল্লির পাশাপাশি কেরল, উত্তরপ্রদেশ, কর্ণাটকেও বিক্ষোভ প্রদর্শন চলছে। কেরলে সরকার এবং প্রধান বিরোধী কংগ্রেস দুই দলই সিএবির বিরোধিতা করছে। উত্তরপ্রদেশের আলিগড়ে বিক্ষোভ ব্যাপক আকার ধারণ করায় বন্ধ করে দিতে হয়েছে ইন্টারনেট। কর্ণাটকের কালবুর্গিরও একই পরিস্থিতি।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে