BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

উচ্ছেদ অভিযানকে কেন্দ্র করে রণক্ষেত্র মথুরা, মৃত ২১

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: June 3, 2016 2:06 pm|    Updated: June 3, 2016 2:34 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আদালতের নির্দেশে বেআইনি জবরদখলকারীদের উচ্ছেদ করতে গিয়ে তীব্র বাধার মুখে পড়তে হল পুলিশকে৷ পুলিশের সঙ্গে বিক্ষোভকারীদের সঙ্ঘর্ষে শুক্রবার নিহতের সংখ্যা বেড়ে হল ২১৷ মৃতদের মধ্যে রয়েছেন মথুরার এসপি ও একজন এসএইচও৷ গোটা ঘটনায় তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন উত্তরপ্রদেশের মুখ্যমন্ত্রী অখিলেশ যাদব৷ মৃত দুই পুলিশ আধিকারিক হলেন মথুরার এসপি মুকুল দ্বিবেদী ও আগ্রা ডিভিশনের কমিশনার এসএইচও সন্তোষ যাদব৷ নিহত পুলিশকর্মীদের পরিবারকে ২০ লক্ষ টাকা করে ক্ষতিপূরণ দেওয়ার কথা ঘোষণা করেছে উত্তরপ্রদেশ সরকার৷

ঘটনার সূত্রপাত বৃহস্পতিবার৷ এলাহাবাদ হাই কোর্টের নির্দেশ পেয়ে পুলিশ এদিন জওহরবাগে জবরদখলকারীদের উচ্ছেদ করতে যায়৷ গত ২ বছর ধরে জওহরবাগ সংলগ্ন ২৬০ একর জমি দখল করে রয়েছে ওই দখলকারীরা৷ জমির আনুমানিক বাজারদর প্রায় কোটি টাকা৷ অভিযোগ, দখলদারদের হঠাতে পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে পৌঁছলে জবরদখলকারীরা ‘আজাদ ভারত বিধি বিচারক ক্রান্তি সত্যাগ্রহ’ নাম এক সংগঠনের ছাতার তলায় পুলিশি কাজে বাধা দেয়৷ পুলিশকে লক্ষ্য করে ইটবৃষ্টি শুরু করে বিক্ষোভকারীরা৷ ঘটনায় গভীর উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং৷ টেলিফোনে তিনি কথা বলেছেন অখিলেশ যাদবের সঙ্গে৷ মথুরার সাংসদ হেমা মালিনী ওই দুই পুলিশকর্মীর মৃত্যুতে গভীর শোকপ্রকাশ করেছেন৷

পুলিশ সূত্রে খবর, দুষ্কৃতীরা পূর্ব পরিকল্পনামাফিক পুলিশের উপর হামলা চালায়৷ মথুরার এডিজি জানিয়েছেন, ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার হয়েছে প্রচুর দেশি বন্দুক, রাইফেল, পিস্তল, কার্তুজ ও গ্রেনেড৷ পুলিশের গাড়িতে আগুন ধরিয়ে দেওয়া হয় বলে অভিযোগ৷ সঙ্ঘর্ষে ২০ জন বিক্ষোভকারীর মৃত্যু হয়, যাদের মধ্যে ১১ জন আগুনে পুড়ে মারা গিয়েছেন৷ আহত হয়েছেন ২৩ জন পুলিশকর্মী৷ উত্তরপ্রদেশের ডিজিপি জানিয়েছেন, ওই পুলিশকর্মীদের নৃশংসভাবে আঘাত করা হয়েছে৷ তাঁরা স্থানীয় হাসপাতালে আশঙ্কাজনক অবস্থায় চিকিৎসাধীন৷ ঘটনায় জড়িত থাকার অভিযোগে ১২৪ জন বিক্ষোভকারীকে গ্রেফতার করেছে পুলিশ, খবর পিটিআই সূত্রে৷

অন্যদিকে, মথুরায় যখন মৃত্যুমিছিল বেড়ে চলেছে, তখন নিজের শুটিংয়ের ছবি টুইটারে আপলোড করে বিতর্কের মুখে পড়েছেন মথুরার সাংসদ হেমা মালিনী৷ বিতর্কের পারদ চড়ার আগেই অবশ্য তিনি ছবিগুলি টুইটার থেকে মুছে দেন৷ এই ঘটনার জন্য দলের একাংশের রোষের মুখে পড়েছেন বিজেপি সাংসদ হেমা মালিনী৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement