১১ মাঘ  ১৪২৬  শনিবার ২৫ জানুয়ারি ২০২০ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

১১ মাঘ  ১৪২৬  শনিবার ২৫ জানুয়ারি ২০২০ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ফের উন্নাও। এবার তিন বছরের নাবালিকাকে যৌন নিগ্রহ। কাঠগড়ায় এক নাবালক। শনিবার তাকে গ্রেপ্তারও করা হয়েছে বলে পুলিশের দাবি।

বৃহস্পতিবার রাতে দিল্লির সফদরজং হাসপাতালে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে থেমে যায় উন্নাওয়ের সেই নির্যাতিতার লড়াই। সব প্রতিকূলতা এড়িয়ে একটানা একবছর লড়াই চালিয়েছিলেন তিনি। সেই লড়াই থামাতেই রাস্তায় গায়ে পেট্রল ঢেলে জ্বালিয়ে দেওয়া হল তাঁকে। এরপর থেকেই যোগীর রাজ্যে উত্তেজনার পারদ চড়েছে।

[আরও পড়ুয়া : এগারো মাসে ৮৬টি ধর্ষণ উন্নাওয়ে! পরিসংখ্যানে বিস্মিত দেশবাসী]

একদিকে, যেমন দ্রুত বিচারের দাবিতে সরব হয়েছেন রাজনৈতিক মহল। নির্যাতিতার বাড়িতে হাজির হয়েছেন কংগ্রেস নেত্রী প্রিয়াঙ্কা গান্ধী। অন্যদিকে, তেমনই বিচার চেয়ে পথে নেমেছে সাধারণ মানুষও। চাপের মুখে উন্নাওয়ের নির্যাতিতা মামলার শুনানি ফাস্ট ট্র্যাক কোর্টে হবে বলেও ঘোষণা করেছেন রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী যোগী আদিত্যনাথ। তাতেও ক্ষোভের আঁচ নেভেনি। উলটে সামনে এসেছে চমকে দেওয়া এক পরিসংখ্যান। জানা গিয়েছে, গত ১১ মাসে ৮৬টি ধর্ষণের অভিযোগ দায়ের হয়েছে। অথচ বেশিরভাগ অভিযুক্তই বুক ফুলিয়ে ঘুরে বেড়াচ্ছে। এই পরিস্থিতিতে শনিবার উত্তরপ্রদেশে উন্নাওয়ে তিন বছরের নাবালিকাকে যৌন নিগ্রহের ঘটনা সামনে এল।

[আরও পড়ুয়া : উন্নাওকাণ্ডের বেনজির প্রতিবাদ দিল্লিতে, নিজের মেয়েকেই জ্বালিয়ে দেওয়ার চেষ্টা মহিলার]

জানা গিয়েছে, বাড়ির সামনের একটি মাঠে খেলা করছিল ওই নাবালিকা। সেখানেই অভিযুক্ত নাবালক তাকে দেখতে পায়। ভুলিয়ে ভালিয়ে সরিয়ে নিয়ে গিয়ে তাকে ধর্ষণের চেষ্টা করে অভিযুক্ত। নিজেকে বাঁচাতে তারস্বরে চিৎকার করতে থাকে শিশুটি। কান্নার আওয়াজ পথচারীদের কানে যেতেই তাঁরা ছুটে আসেন। পথচারীদের ছুটে আসতে দেখে চম্পট দেওয়ার চেষ্টা করে অভিযুক্ত নাবালক। কিন্তু স্থানীয় বাসিন্দারা তাকে ধরে ফেলে বেধড়ক মারধর শুরু করে। পরে তাকে পুলিশের হাতে তুলে দেওয়া হয়।

[আরও পড়ুয়া : হায়দরাবাদের জের! কেরলে ধর্ষণে অভিযুক্তকে বেধড়ক মারধর উত্তেজিত জনতার]

পকসো আইনে অভিযুক্তের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে পুলিশ। শিশুটির মেডিক্যাল পরীক্ষার রিপোর্ট এলে আইনি পদক্ষেপ করা হবে। উন্নাওয়ের পুলিশ সুপার বিক্রান্ত বীর বলেন, “ঘটনাস্থল থেকেই অভিযুক্তকে গ্রেপ্তার করেছি। অভিযোগও দায়ের করা হয়েছে। তদন্ত চলছে।”

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং