৪ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

আগামী বছর ভারতে প্রতিদিন করোনা আক্রান্ত হবেন ২.৮৭ লক্ষ মানুষ! মার্কিন সমীক্ষায় চাঞ্চল্য

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: July 8, 2020 9:30 pm|    Updated: July 8, 2020 9:30 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: লকডাউনের পর শুরু দেশজুড়ে শুরু হয়েছে আনলক প্রক্রিয়া। কিন্তু আনলকের দ্বিতীয় পর্বেও দেশে করোনা সংক্রমণে লাগাম পরানো যাচ্ছে না। ভ্যাকসিনের জন্য দিনপাত করা ভারতবাসীর উদ্বেগ বাড়াচ্ছে দৈনিক করোনা আক্রান্তের সংখ্যা। সেইসঙ্গে পাল্লা দিয়ে বাড়ছে মৃত্যুও। রোজই গড়ে ২০ হাজার বা তার বেশি আক্রান্তের হদিশ মিলছে। তার মধ্যেই দেশবাসীর উদ্বেগ বাড়ালেন মার্কিন গবেষকরা। ম্যাসাচুসেটস ইনস্টিটিউট অফ টেকনোলজির (Massachusetts Institute of Technology) বা MIT’র গবেষকদের সমীক্ষায় উঠে এসেছে, এই হারে সংক্রমণ চলতে থাকলে আগামী বছর ফেব্রুয়ারি মাসে দিনে গড়ে ২.৮৭ লক্ষ মানুষ মারণ ভাইরাসে আক্রান্ত হবেন।

গবেষকরা জানিয়েছেন, যদি কোনও ভ্যাকসিন বা প্রতিষেধক না আসে তাহলে বিশ্বের সর্বাধিক করোনা আক্রান্ত হবেন এই ভারতেই। MIT’র গবেষক হাজঘির রাহমানন্দ, টোয়াই লিম ও জন স্টেরমান জানিয়েছেন যে, ভারতের পরই আমেরিকায় দিনে সর্বাধিক আক্রান্ত হবে। দৈনিক ৯৫৪০০ জন হবে। এরপর দৈনিক সবচেয়ে বেশি হবে দৈনিক দক্ষিণ আফ্রিকা (২০,৬০০) ও ইরানে (১৭,০০০)। সমীক্ষার রিপোর্ট অনুযায়ী, বিশ্বে ৮৪টি দেশে ভাইরাসে আক্রান্ত হবেন প্রায় ২৫ কোটি মানুষ। মারা যাবেন প্রায় ১৮ লক্ষ মানুষ। করোনায়য় সুরক্ষাবিধির উপরই নির্ভর করবে আক্রান্তের সংখ্যা, এমনটাই পূর্বাভাস রিপোর্টে।

[আরও পড়ুন: দেশে ফের করোনা আক্রান্তের সংখ্যায় বড়সড় বৃদ্ধি, স্বস্তি দিয়ে বাড়ছে সুস্থতার হারও]

এই সমীক্ষার জন্য SEIR (Susceptible, Exposed, Infectious, Recovered) মডেল ব্যবহার করেছেন গবেষকরা। মূলত তিনটি ফ্যাক্টর ধরা হয়েছে এই ক্ষেত্রে। সেটা হল টেস্টিং রেট ও রেসপন্স, যদি দৈনিক ০.১ শতাংশ করে টেস্ট বাড়ে এবং টেস্টিং যদি একই থাকে এবং কনট্যাক্ট রেট যদি ৮ ধরা হয়। মানে একজনের থেকে যদি দিনে গড়ে আটজন আক্রান্ত হয়। বিশ্বের ৮৪টি দেশের করোনা পরিসংখ্যান সমীক্ষা করে রিপোর্ট পেশ করেছেন গবেষকরা। বুধবার সকালে স্বাস্থ্য ও পরিবারকল্যাণ মন্ত্রকের (Ministry of Health and Family Welfare) দেওয়া পরিসংখ্যান বলছে, গত ২৪ ঘণ্টায় দেশে ২২ হাজার ৭৫২ জন করোনা আক্রান্ত হয়েছেন। ফলে মোট করোনা আক্রান্তের সংখ্যা বেড়ে দাঁড়িয়েছে ৭ লক্ষ ৪২ হাজার ৪১৭ জন। এদের মধ্যে ৪ লক্ষ ৫৬ হাজার ৮৩১ জন ইতিমধ্যেই সুস্থ হয়ে বাড়ি ফিরেছেন। এখনও চিকিৎসাধীন ২ লক্ষ ৬৪ হাজার ৯৪৪ জন ।

অর্থাৎ, সক্রিয় রোগীর থেকে এখন করোনাজয়ীর সংখ্যা প্রায় দু’লক্ষ বেশি। সংক্রমণের নিরিখে ইতিমধ্যেই রাশিয়াকে টপকে তৃতীয় স্থানে উঠে এসেছে ভারত। শুধুমাত্র আমেরিকা এবং ব্রাজিল রয়েছে উপরে। এর মধ্যে ব্রাজিলের তুলনায় ভারতের সংক্রমণের হার কিছুটা হলেও বেশি।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement