২৬  শ্রাবণ  ১৪২৯  মঙ্গলবার ১৬ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

করোনা কালেও গরিব কল্যাণে এগিয়ে মোদি সরকার, জাতীয় বৈঠকে নোবেলজয়ীদের বিঁধল বিজেপি

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: July 3, 2022 2:56 pm|    Updated: July 3, 2022 3:21 pm

Modi government best to help poor during pandemic, BJP criticized Nobel Laureates in working committee meeting | Sangbad Pratidin

নন্দিতা রায়, হায়দরাবাদ: গরিব কল্যাণে এগিয়ে রয়েছে মোদি সরকার। বিশেষজ্ঞদের ‘ভুল’ প্রমাণ করেছে। এই বার্তাই দেশের জনতার সামনে তুলে ধরবে বিজেপি (BJP)। করোনা কালে সারা বিশ্ব যে সময় বিধ্বস্ত হয়ে পড়েছিল, তখন ভারতের আর্থিক বৃদ্ধি সাড়ে আট শতাংশে পৌঁছেছে এবং তা সম্ভব হয়েছে দরিদ্রদের জন্য নরেন্দ্র মোদি সরকারের (Modi Govt) একাধিক জনমুখী প্রকল্পের জন্যই। এমনটাই দাবি বিজেপির। এটি স্থান পেয়েছে দলের কর্মসমিতির বৈঠকের আর্থিক ও গরিব কল্যাণ সংকল্প প্রস্তাবে। শনিবার হায়দরাবাদে (Hyderabad) বিজেপির জাতীয় কর্মসমিতির প্রথমদিনের বৈঠকের পরে সাংবাদিক বৈঠকে কেন্দ্রীয় মন্ত্রী ধর্মেন্দ্র প্রধান এ কথা জানিয়েছেন।

কেন্দ্রীয় মন্ত্রী বলেন, “করোনার (Coronavirus) সময়ে অনেক বিদ্বান ও নোবেল বিজয়ী অর্থনীতিবিদ কী বলেছিলেন, আপনারা তা জানেন। অথচ মোদি সরকারের নীতির কারণে কী সম্ভব হয়েছে, তাও সকলেই দেখতে পাচ্ছে।” উল্লেখ্য, নোবেলজয়ী অর্থনীতিবিদ অমর্ত্য সেন (Amartya Sen)করোনাকালে কেন্দ্রের নীতির সমালোচনা করেছিলেন। যা নিয়ে আগেই বিজেপি আপত্তি জানায়। নাম না করেই বিজেপি এদিন তাঁকেই বিঁধল বলে মনে করা হচ্ছে।

[আরও পড়ুন: চাকরি খুঁজছেন? দেখে নিন কেমন ছিল বিল গেটসের বায়োডাটা]

শনিবার, হায়দরাবাদে বিজেপি কর্মসমিতির বৈঠকে প্রথম দিন প্রধানমন্ত্রী মোদির উপস্থিতিতে তাঁর নেতৃত্বে সরকারের সাফল্যের খতিয়ান তুলে ধরার উপরে জোর দেওয়া হয়েছে। আজ, রবিবার রাজনৈতিক প্রস্তাব আসতে চলেছে। সামনেই বিধানসভা নির্বাচন রয়েছে, এমন রাজ্যগুলির নির্বাচনী স্ট্র্যাটেজি নিয়ে আলোচনা হওয়ার কথা। এছাড়া ২০২৪ সালের লোকসভা নির্বাচনের রূপরেখাও ঠিক হতে পারে।

[আরও পড়ুন: আহত ব্যক্তিকে হাসপাতালে পাঠাতে নিজেই আনলেন স্ট্রেচার, রাহুল গান্ধীর ভিডিও ভাইরাল]

রবিবার বিজেপি কর্মসমিতির বৈঠকে বাংলা ও তেলেঙ্গানা সরকারকে লক্ষ্য করে বিঁধেছেন অমিত শাহ। পরিবারতন্ত্র চলছে বলে তোপ দেগেছেন কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। তাঁর কথায়, ”এবার বাংলা ও তেলেঙ্গানা পরিবারতন্ত্র থেকে মুক্তি পাবে।”  পালটা অবশ্য তাঁকে জবাবও দিয়েছেন তৃণমূলের (TMC) রাজ্যসভার সাংসদ তথা সর্বভারতীয় মুখপাত্র ডেরেক ও ব্রায়েন।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে