BREAKING NEWS

৯ মাঘ  ১৪২৮  রবিবার ২৩ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

বন্ধ হচ্ছে না BSNL ও MTNL, পুনরুজ্জীবনের লক্ষ্যে সংযুক্তিকরণের পথে কেন্দ্র

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: October 23, 2019 7:39 pm|    Updated: October 23, 2019 7:39 pm

Modi govt. approves merger of telecom companies BSNL and MTNL

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ব্যাংকের পর এবার টেলিকম সংযুক্তিকরণ। ধুঁকতে থাকা দুই টেলিকম সংস্থা ভারত সঞ্চার নিগম লিমিটেড (বিএসএনএল) এবং মহানগর টেলিকম নিগম লিমিটেডকে (এমটিএনএল) পুনরুজ্জীবিত করার উদ্যোগ নিচ্ছে কেন্দ্র। বুধবার দুই টেলিকম সংস্থার সংযুক্তিকরণের কথা সাংবাদিক সম্মেলন করে জানান কেন্দ্রীয় টেলিকম ও যোগাযোগ মন্ত্রী রবিশংকর প্রসাদ। এদিন কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভার বৈঠকের পর টেলিকম সংস্থাগুলির সংযুক্তিকরণের সায় মিলেছে বলে জানান মন্ত্রী। একইসঙ্গে দুই সংস্থাতেই স্বেচ্ছাবসরের সিদ্ধান্তেও মন্ত্রিসভার সবুজ সংকেতর কথা জানিয়েছেন রবিশংকর। তবে রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা বিএসএনএল পুরোপুরি বন্ধ হয়ে যেতে পারে বলে যে আশঙ্কার সৃষ্টি হয়েছিল তা উড়িয়ে দিয়েছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। বিলগ্নিকরণের কথা খারিজ করে দিয়েছেন তিনি।

দীর্ঘদিন ধরে ধুঁকছে দুই টেলিকম সংস্থা MTNL ও BSNL। সম্প্রতি দুই সংস্থার কর্মীদের বেতন নিয়েও সংকট তৈরি হয়েছিল। তবে এদিন বন্ধ হয়ে যাওয়ার জল্পনা উড়িয়ে দিয়ে মন্ত্রীর ঘোষণা, পুনরুজ্জীবনের জন্য আর্থিক সাহায্য দেওয়ার সিদ্ধান্ত নিয়েছে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা। রিলায়েন্স জিও বাজারে আসার পর থেকে অস্তিত্ব সংকটে ভুগছিল দুই টেলিকম সংস্থা। দীর্ঘদিন ধরেই লোকসানে চলছে দুই সংস্থা। প্রতিযোগিতার বাজারে এঁটে উঠতে পারছে না সংস্থাগুলি। সম্প্রতি, দুই সংস্থাকে বাঁচাতে ৭৪ হাজার কোটি টাকা দেওয়ার প্রস্তাব দেয় টেলিযোগাযোগ দপ্তর। তবে সেই প্রস্তাব নাকচ করে দেয় অর্থমন্ত্রক।

[আরও পড়ুন: ইনফোসিসে দুর্নীতির অভিযোগ, একদিনে ৫৩ হাজার কোটি টাকা খোয়ালেন বিনিয়োগকারীরা]

এদিন রবিশংকর প্রসাদ জানিয়ে দেন, বিএসএনএল ও এমটিএনএল-কে বন্ধ করা হচ্ছে না। তাদের বিক্রি করার কথাও ভাবছে না সরকার। তৃতীয় পক্ষের হাতেও তুলে দেওয়ার কোনও সিদ্ধান্ত হয়নি। তিনি জানিয়েছেন, দুই টেলিকম সংস্থাকে 4G স্পেকট্রাম দেওয়া হবে। পাশাপাশি রয়েছে স্বেচ্ছাবসরের দুর্দান্ত প্যাকেজও। সেই প্যাকেজ শীঘ্রই ঘোষণা করা হবে বলে জানিয়েছেন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী। আপাতত দুই সংস্থার পুনরুজ্জীবনের জন্য টাকা তুলতে বাজারে ১৫ হাজার কোটি টাকার বন্ড ছাড়া হবে। একইসঙ্গে, দুই সংস্থার হাতে থাকা অব্যবহৃত জমি বিক্রি করে ৩৮ হাজার কোটি টাকা উঠতে পারে বলে মনে করছে কেন্দ্রীয় মন্ত্রিসভা।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে