৩১ ভাদ্র  ১৪২৬  বুধবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০১৯ 

Menu Logo পুজো ২০১৯ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: শহর কলকাতায় ইতিমধ্যেই পদধ্বনি শুরু হয়ে গিয়েছে প্রাকবর্ষার। কিন্তু বর্ষার আগমনবার্তা এখনই দিতে নারাজ আবহাওয়া দপ্তর। মৌসম ভবন জানিয়েছে, এবছর দেশের মূল ভূখণ্ডে দেরিতে ঢুকবে বর্ষা। কেরলে ৬ জুন সাধারণত বর্ষা চলে আসার কথা ছিল। কিন্তু ৮ জুনের আগে কেরলে পা রাখবে না বর্ষা। হাওয়া অফিস সুত্রে এমন খবরই পাওয়া গিয়েছে। আর কেরলে যদি দেরিত বর্ষা আসে, তাহলে পশ্চিমবঙ্গের মানুষকেও বেশ কিছুদিন অপেক্ষা করতে হবে।

মৌসম ভবন সূত্রে জানা গিয়েছে, বর্ষার জন্য আরও কয়েকদিন অপেক্ষা করতে হবে। এই সপ্তাহের শেষে, ৮ জুন কেরলে বর্ষা আসার কথা। সাধারণত ১ জুনের মধ্যে কেরলে বর্ষা চলে আসে। থাকে প্রায় চারমাস। কিন্তু এবার আট দিন দেরিতে আসবে বর্ষা। অবশ্য বর্ষা যে দেরিতে আসতে পারে, এমন একটা আশঙ্কা আগে থেকেই ছিল। তবে ৬ জুনের মধ্যে কেরলে বৃষ্টি শুরু হয়ে যাবে বলেও আশা করা হয়েছিল। কিন্তু সেখানেও দেখা গেল, দু’দিন পিছিয়ে গিয়েছে বর্ষার আগমন। ৮ জুনের আগে কেরলে পা দেওয়ার কোনও সম্ভাবনাই নেই দক্ষিণ-পশ্চিম মৌসুমী বায়ুর।

[ আরও পড়ুন: বিনিয়োগ-কর্মসংস্থান বাড়াতে নয়া পদক্ষেপ মোদি সরকারের ]

এদিকে কেরলে বর্ষা দেরিতে ঢুকলে দেশের সর্বত্রই বর্ষা আসবে দেরিতে। সাধারণত, কেরলে যেদিন বর্ষা ঢোকে, তার আট থেকে দশ দিন পর পশ্চিমবঙ্গে শুরু হয় বর্ষার বৃষ্টি। কিন্তু এবছর যেহেতু এখনও দেশের মূল ভুখণ্ডে পা রাখেনি বর্ষা, তাই মনে করা হচ্ছে এমাসের মাঝামাঝির আগে পশ্চিমবঙ্গে বর্ষা আসার কোনও সম্ভাবনা নেই। তবে এর মধ্যেও রয়েছে মৌসুমী অক্ষরেখার দিক ও শক্তি। যদি সব নিয়ম মতো হয়, তবেই জুনের ১৫-২০ তারিখ নাগাদ বঙ্গে বর্ষা আসতে পারে। নতুবা হবে আরও দেরি।

তবে বর্ষা দেরিতে এলেও বৃষ্টিপাতের উপর কোনও প্রভাব পড়বে না বলে জানিয়েছে মৌসম ভবন। হাওয়া অফিস সূত্রে খবর, এবছর স্বাভাবিক হারেই হবে বৃষ্টিপাত। এবছর গ্রীষ্ম মরশুমজুড়ে চুটিয়ে ব্যাট করেছে। দেশের কোনও কোনও জায়গায় ৫০ ডিগ্রি সেলসিয়াসের উপরে পৌঁছে গিয়েছে পারদ। উষ্ণতার এই বাড়বাড়ন্ত বর্ষার বৃষ্টির ক্ষেত্রে বাধা হয়ে দাঁড়াবে না বলেই মনে করছে হাওয়া অফিস।

[ আরও পড়ুন: টিকিট থাকা সত্ত্বেও মিলল না বোর্ডিং পাস, বিক্ষোভ এয়ার ইন্ডিয়ার যাত্রীদের ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং