BREAKING NEWS

১২ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

বিজেপির পাশেই আম্বানি পরিবার! এবার প্রধানমন্ত্রীর সভায় মুকেশ-পুত্র

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: April 27, 2019 11:51 am|    Updated: April 27, 2019 11:51 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কদিন আগেই বাবা মুকেশ আম্বানিকে দেখা গিয়েছিল কংগ্রেস প্রার্থীর হয়ে প্রচার করতে। এবার বিজেপির সভায় দেখা গিল মুকেশ-পুত্র অনন্ত আম্বানিকে। মুম্বইয়ে বিজেপির সভার এক্কেবারে প্রথম সারিতে ছিলেন অনন্ত আম্বানি। তাঁর দাবি, “দেশের সমর্থনে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির কথা শুনতে আমি এখানে এসেছি।”

[আরও পড়ুন:  পাঁচ বছরে সম্পত্তি বেড়েছে ৫২ শতাংশ, হলফনামায় জানালেন মোদি]

বিজেপির সভায় অনন্তের এই উপস্থিতি রাজনৈতিকভাবে বেশ তাৎপর্যপূর্ণ। কারণ, মুকেশ আম্বানি কংগ্রেস প্রার্থী মিলিন্দ দেওরার হয়ে প্রচারে নামার পর থেকেই রাজনৈতিক মহলে নয়া জল্পনা শুরু হয়েছিল। সেই জল্পনায় ইতি টানতেই কী তবে মোদির সভায় দেখা গেল আম্বানিপুত্রকে? অনন্ত অবশ্য বলছেন, তিনি দেশকে সমর্থন করতে হাজির হয়েছেন।

সপ্তাহখানেক আগেই রাজনৈতিক মহলকে রীতিমতো স্তম্ভিত করে দিয়ে মুম্বইয়ের কংগ্রেস প্রার্থী মিলিন্দ দেওরার সমর্থনে মুখ খুলেছিলেন মুকেশ আম্বানি। তিনি বলেছিলেন, “দক্ষিণ মুম্বইয়ের জন্য মিলিন্দ দেওরাই সেরা ব্যক্তি। দশ বছর সাংসদ থাকার দরুন মিলিন্দ দেওরার দক্ষিণ মুম্বই কেন্দ্রের সামাজিক, আর্থিক এবং সাংস্কৃতিক পরিস্থিতি সম্পর্কে সম্যক জ্ঞান আছে।” রিলায়েন্স কর্ণধারের সেই ভিডিও প্রকাশ্যে আসতেই আলোড়ন পড়ে যায়। অনেকেই ভাবতে শুরু করেন দেশের রাজনীতি বদলাচ্ছে, বিজেপির পাশ থেকে সরে যাচ্ছে আম্বানি পরিবার। তবে, শুক্রবার মোদির সভায় অনন্তের উপস্থিতি সেসব জল্পনায় জল ঢালল।

[আরও পড়ুন: বিজেপিকে হারাতেই চান না রাহুল, বিস্ফোরক দাবি অখিলেশের]

উল্লেখ্য, কংগ্রেস সভাপতি রাহুল গান্ধী দিনরাত অনিল আম্বানিকে আক্রমণ করছেন। রাফালে চুক্তি হ্যালের পরিবর্তে অনিল আম্বানির সংস্থাকে কেন দেওয়া হল তা নিয়ে প্রশ্ন তুলছেন, এমনকী ফ্রান্স সরকার অনিলের সংস্থার কর মাফ করলেও ভারতে বসে তাঁর প্রতিবাদ করছে কংগ্রেস। শুধু কি তাই, মুকেশ আম্বানিকেও একাধিকবার আক্রমণের মুখে পড়তে হয়েছে কংগ্রেসের। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে তাঁর সখ্যকে বারবার রাজনৈতিক মঞ্চে হাতিয়ার করেছে কংগ্রেস। অনন্তের মোদির সভায় উপস্থিতি নিয়ে অবশ্য এখনও কংগ্রেস শিবির কোনও প্রতিক্রিয়া দেয়নি।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement