BREAKING NEWS

১০ আষাঢ়  ১৪২৮  শুক্রবার ২৫ জুন ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

জোড়া ধাক্কা সিবিআইয়ের, নারদ নিয়ে তদন্তকারীদের মামলা গ্রহণই করল না শীর্ষ আদালত

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: May 24, 2021 1:37 pm|    Updated: May 24, 2021 1:57 pm

Narada case: Supreme Court dismisses CBI's plea challenging larger bench of Calcutta HC | Sangbad Pratidin

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: নারদ মামলায় (Narada case) কলকাতা হাই কোর্টের পর সুপ্রিম কোর্টেও বড় ধাক্কা খেল সিবিআই (CBI)। চার হেভিওয়েট অভিযুক্তের জামিন শুনানিতে স্থগিতাদেশ চেয়ে মাঝরাতে আবেদন করার পরও লক্ষ্য সফল হল না। সেই মামলা গ্রহণই করল না শীর্ষ আদালত (Supreme Court)। সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জানিয়েছেন, সিবিআইয়ের আবেদনে পদ্ধতিগত ত্রুটি রয়েছে, তাই তা গৃহীত হল না। নতুন করে মামলা দায়ের করতে হবে।

পদে পদে ধাক্কা। নারদ মামলা কলকাতা হাই কোর্ট (Calcutta HC) থেকে সুপ্রিম কোর্টে টেনে নিয়ে আরও বিপাকে পড়ল সিবিআই। রবিবার মাঝরাতে অনলাইনের মাধ্যমে শীর্ষ আদালতে সিবিআই আবেদন জানায়, সোমবার নারদ মামলায় হাই কোর্টের শুনানির জন্য ৫ বিচারপতির বৃহত্তর বেঞ্চ তৈরির বিরোধিতা করা হচ্ছে। এদিন সেখানে ধৃত চার হেভিওয়েটের জামিন মামলার শুনানি স্থগিতের নির্দেশ দিক সুপ্রিম কোর্ট। সোমবার বেলায়  সেই মামলা বিস্তারিত দেখার পর সুপ্রিম কোর্টের রেজিস্ট্রার জেনারেল জানিয়ে দেন, আবেদনে পদ্ধতিগত অন্তত ১২টি ত্রুটি পাওয়া গিয়েছে। তাই তা গ্রহণ করা হচ্ছে না। এদিকে, সুপ্রিম কোর্টে মামলা গিয়েছে, এই দাবি করে এদিন কলকাতা হাই কোর্টেও শুনানি স্থগিতের আবেদন জানানো হয়। সেই আবেদনও খারিজ করা হয়েছে। ফলে নারদ মামলা নিয়ে একদিনে জোড়া ধাক্কা খেল কেন্দ্রীয় তদন্তকারী সংস্থা। এরপর অবশ্য তারা আবার কীভাবে, কবে সুপ্রিম কোর্টে আবেদন জানাবেন, তা এখনও স্থির হয়নি।

[আরও পড়ুন: ‘মাফ করবেন’, অ্যালোপ্যাথি নিয়ে মন্তব্যের জন্য প্রকাশ্যেই ক্ষমা চাইলেন রামদেব

১৭ মে নারদ মামলায় বিনা নোটিসে বাড়ি থেকে প্রথমে আটক করা হয় ফিরহাদ হাকিম, সুব্রত মুখোপাধ্যায়, মদন মিত্র ও শোভন চট্টোপাধ্যায়কে। নিয়ে যাওয়া হয় নিজাম প্যালেসে। পরে তাঁদের গ্রেপ্তার করা হয়। ওই দিনই আদালতে তোলা হলে প্রথমে জামিন মঞ্জুর হলেও নাটকীয়ভাবে সেই সিদ্ধান্তে স্থগিতাদেশ দেয় হাই কোর্ট। ভারপ্রাপ্ত প্রধান বিচারপতি রাজেশ বিন্দল ও বিচারপতি অরিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় জামিন নিয়ে দ্বিমত পোষণ করেন। বিচারপতি অরিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় জামিনের পক্ষে থাকলেও বিরোধিতা করেন রাজেশ বিন্দল। এরপরই ধৃতদের জেল হেফাজত থেকে রেহাই দিয়ে তাঁদের গৃহবন্দি থাকার নির্দেশ দেওয়া হয়। এদিকে জামিন মামলার নিষ্পত্তির জন্য গঠন করা হয় বৃহত্তর বেঞ্চ। তার বিরোধিতায় সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়ে ধাক্কা খেতে হল সিবিআইকে।

[আরও পড়ুন: চোখ রাঙাচ্ছে ঘূর্ণিঝড় ‘যশ’, আরও ২৫টি ট্রেন বাতিল করল পূর্ব রেল, দেখে নিন তালিকা]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement