২০ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  শনিবার ৭ ডিসেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

২০ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  শনিবার ৭ ডিসেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

ধ্রুবজ্যোতি বন্দ্যোপাধ্যায়: ল্যান্ডার বিক্রমের ধ্বংসাবশেষের হদিশ পেল নাসার স্যাটেলাইট। তারপরই চাঁদের পিঠে পড়ে থাকা বিক্রমের ধ্বংসাবশেষের সেই ছবি টুইট করল মার্কিন মহাকাশ গবেষণা সংস্থা। তাতে তারা উল্লেখ করেছে, নাসার যে স্যাটেলাইট চাঁদের উপর নজরদারি করছে তার এলআরও ক্যামেরায় চন্দ্রযান-২ এর ল্যান্ডার বিক্রমের ধ্বংসাবশেষের ছবি উঠেছে। নাসার আর এই ছবি দেখে প্রথম ল্যান্ডার বিক্রমের ধ্বংসাবশেষকে শনাক্ত করেছেন এক ভারতীয়। তিনি হলেন কম্পিউটার প্রোগ্রামার ও মেকানিক্যাল ইঞ্জিনিয়ার শানমুগা সুব্রহ্মণ্যন। তিনিই অসাধ্য সাধন করে দেশের সবচেয়ে বড় মহাকাশ আবিষ্কার সেরে ফেলেছেন।

[আরও পড়ুন: অকেজো স্পেস স্টেশনের দুটি শৌচালয়, মহাশূন্যে ডায়াপারই ভরসা নভোশ্চরদের!]

নাসা সূত্রে জানা গিয়েছে, লুনার মিশনে থাকা অরবিটারের তোলা ছবি দেখে ভেঙে পড়ার জায়গা থেকে ৭৫০ মিটার উত্তর-পশ্চিমদিকে প্রথম টুকরোটি শনাক্ত করেন সুব্রহ্মণ্যম। এরপর নীল রং দিয়ে সেই জায়গাটি চিহ্নিত করেন তিনি। তারপর বিক্রমের বাকি অংশগুলি লক্ষ্য করেন। নাসার তরফে টুইট করা শেষ ছবিতে বিক্রমের ভেঙে পড়ার জায়গাটিকে ‘এস’ হিসেবে চিহ্নিত করা হয়েছে। এছাড়া নীল রং দিয়ে ধ্বংসাবশেষ ও বিক্রমের ভেঙে পড়ার কারণে সরে যাওয়া চাঁদের মাটির অংশকে সুবজ রং দিয়ে দেখানো হয়েছে।

[আরও পড়ুন: হায়দরাবাদ ধর্ষণে অভিযুক্তদের জেলে খাওয়ানো হল খাসির মাংস! ক্ষোভ সোশ্যাল মিডিয়ায়]

গত ৭ সেপ্টেম্বর রোভার প্রজ্ঞানকে নিয়ে চাঁদে হার্ড ল্যান্ডিং করে বিক্রম। চাঁদের পিঠের ২.১ কিলোমিটার ওপর থেকে চন্দ্রযান-২ এর অরবিটারের সঙ্গে যোগাযোগ বিচ্ছিন্ন হয়ে যায় ল্যান্ডার বিক্রমের। এরপর ২৬ সেপ্টেম্বর চাঁদের বুকে বিক্রমের ভেঙে পড়ার জায়গাটির ছবি প্রথম প্রকাশ করে নাসা। আর ৩ ডিসেম্বর রাত ১ টা ৫২ মিনিটে এই ছবিটি টুইট করে তারা। 

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং