Advertisement
Advertisement
Naveen Patnaik

মুখ্যমন্ত্রী থেকে বিরোধী দলনেতা, আড়াই দশক পর ওড়িশায় ‘কুরসি বদল’ নবীন পট্টনায়েকের

সেভাবে কোনওদিন বিরোধী রাজনীতি করতে হয়নি নবীনকে। রাজনৈতিক জীবনের সায়াহ্নে এসে সেটাই করতে হবে নবীনকে।

Naveen Patnaik to be leader of opposition in Odisha assembly
Published by: Subhajit Mandal
  • Posted:June 19, 2024 8:43 pm
  • Updated:June 19, 2024 8:43 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আড়াই দশক বাদে কুরসি বদল। আগে ওড়িশা বিধানসভায় তিনি বসতেন মুখ্যমন্ত্রীর কুরসিতে। এবার থেকে বসবেন বিরোধী দলনেতার আসনে। নবীন পট্টনায়েক বিজেডির পরিষদীয় দলের নেতা নির্বাচিত হলেন। বুধবার নিজেই সেকথা জানিয়েছেন বিজেডি সুপ্রিমো। তাঁকে নেতা হিসাবে বেছে নেওয়ার জন্য দলের বিধায়কদের ধন্যবাদও জানান পট্টনায়েক।

প্যারাস্যুট ল্যান্ডিং যাকে বলে, ওড়িশার রাজনীতিতে সেটাই হয়েছে নবীন পট্টনায়েকের সঙ্গে। ছাত্রাবস্থায় তিনি রাজনীতিতে বিশেষ আগ্রহী না হলেও বাবার মৃত্যুর পর একপ্রকার বাধ্য হন ওড়িশার রাজনীতিতে অবতীর্ণ হতে। সাংসদ, কেন্দ্রীয় মন্ত্রী, তার পরই ওড়িশার মুখ্যমন্ত্রীর কুরসি। সেভাবে কোনওদিন বিরোধী রাজনীতি করতে হয়নি নবীনকে। কেরিয়ারের সায়াহ্নে এসে সেটাই করতে হবে নবীনকে।

Advertisement

[আরও পড়ুন: থানার সিসি ফুটেজ সংরক্ষণ করতে হবে, ডেবরার BJP কর্মীর মৃত্যুতে নির্দেশ হাই কোর্টের]

টানা পাঁচবার ওড়িশার মুখ্যমন্ত্রীর কুরসিতে ছিলেন নবীন। দাঁড়িয়ে ছিলেন ইতিহাসের দোরগোড়ায়। ক্ষমতায় ফিরলেই নবীন পট্টনায়েক (Naveen Patnaik) দেশের সবচেয়ে বেশিদিন ক্ষমতায় থাকা মুখ্যমন্ত্রীদের তালিকায় পয়লা নম্বরে চলে আসতেন। আপাতত সেই স্থান পবন চামলিংয়ের দখলে। পবন মুখ্যমন্ত্রীর পদে ছিলেন ২৪ বছর ১৬৫ দিন। আর নবীন ওই পদে ছিলেন ২৪ বছর ৮৮ দিন। রেকর্ড ভাঙা হল না। শুকনো মুখেই ওড়িশার কুরসি ছাড়তে হল বিজেডি সুপ্রিমোকে। নবীন এ বার বিধানসভা ভোটে দু’টি আসনে লড়েছিলেন। গঞ্জাম জেলার হিঞ্জলিতে টানা ষষ্ঠ বার জয়ী হয়েছেন তিনি। কিন্তু এ বারই প্রথম বলাঙ্গির জেলার কাঁটাবঞ্জিতে দাঁড়িয়ে বিজেপির লক্ষ্মণ বাগের কাছে হেরে গিয়েছেন তিনি।

Advertisement

[আরও পড়ুন: শহরের আবাসনের মহিলারা তৃণমূলকে ভোট দেয়নি! বিস্ফোরক সৌগত]

উল্লেখ্য, এই প্রথম বার ওড়িশায় একক ক্ষমতায় সরকার গড়তে চলেছে বিজেপি (BJP)। ১৪৭ আসনের ওড়িশা বিধানসভায় বিজেপি জিতেছে ৭৮টি আসন। বিজেডি নেমে এসেছে ৫১ আসনে। কংগ্রেসের দখলে গিয়েছে ১৪টি আসন। ১টি আসন জিতেছে সিপিএম। জনা তিনেক নির্দল প্রার্থীও জিতেছেন।

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ