BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

১০০০ টাকার টোপে নেপালি সেজে মাথা মোড়ায় বারাণসীর যুবক!

Published by: Paramita Paul |    Posted: July 19, 2020 1:48 pm|    Updated: July 19, 2020 1:48 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দিন কয়েক আগে এক নেপালি (Nepal) যুবককে নেড়া করে মাথায় ‘জয় শ্রীরাম’ লিখে দেওয়া হয়েছিল উত্তরপ্রদেশে (Uttar Pradesh)। সেই ঘটনার তদন্তে নেমে  পুলিশের চক্ষু চড়কগাছ। পুলিশের দাবি, সেই যুবক আদপেও নেপালি নন, বরং ভারতীয়। মাত্র ১০০০ টাকার জন্য এক হিন্দুত্ববাদী সংগঠনের টোপ গিলেছিলেন তিনি। এই ঘটনায় উত্তরপ্রদেশ পুলিশ ওই হিন্দুত্ববাদী সংগঠনের বিরুদ্ধে একাধিক ধারায় অভিযোগ দায়ের করেছে। প্রসঙ্গত, নেপালের প্রধানমন্ত্রী  কে পি ওলি (K P Oli) রামকে ‘নেপালি’ বলে দাবি করেছিলেন। তাঁর সেই মন্তব্যের প্রতিবাদে ওই যুবককে নেড়া করে শাস্তি দেওয়া হয়েছে বলে দাবি করেছিল এক হিন্দুত্ববাদি সংগঠন। এরপরই কড়া প্রতিক্রিয়া দেয় নেপাল সরকার। অভিযুক্তদের শাস্তির দাবি জানায়।

ঘটনা প্রসঙ্গে বারাণসীর এসএসপি অমিত পাঠক জানিয়েছেন, “নিগৃহীত ওই ব্যক্তি আদও নেপালি নন। তিনি ভারতীয়। নাম ধর্মেন্দ্র সিং। স্থানীয় এক শাড়ির দোকানের মালিক। তিনি স্রেফ টাকার জন্য নেপালি সেজে ওই কাণ্ড ঘটিয়েছেন।” জানা গিয়েছে, উত্তরপ্রদেশের এক হিন্দুত্ববাদি সংগঠন বিশ্ব হিন্দু সেনার (Viswa Hindu Sena) তরফে ধর্মেন্দ্রকে টাকার টোপ দেওয়া হয়। এদিকে লকডাউনের জেরে রোজগারও বন্ধ ছিল তাঁর। ফলে সেই টাকা পাওয়ার জন্য নেড়া হয়ে মাথায় জয় শ্রীরাম লিখেছিলেন তিনি। কিন্তু পুলিশ তদন্ত শুরু করতেই সমস্ত জারিজুরি ফাঁস হয়ে যায়। এরপরই ভেলপুর থানায় বিশ্ব হিন্দু সেনা সংগঠনের প্রতিষ্ঠাতা অরুন পাঠক-সহ মোট পাঁচ জনের বিরুদ্ধে অভিযোগ দায়ের করা হয়েছে। তাঁদের মধ্যে চারজনকে গ্রেপ্তার করা হলেও এখনও ফেরার অরুন। তাঁর খোঁজে তল্লাশি শুরু হয়েছে।

[আরও পড়ুন : ‘সমাজসেবার পুরস্কার’, বিজেপিতে বড় পদ পেলেন ‘চন্দনদস্যু’ বীরাপ্পনের মেয়ে]

উল্লেখ্য, তিনটি ভারতীয় ভূখণ্ডকে নিজেদের বিতর্কিত মানচিত্রে ঠাঁই দেওয়া পর থেকে বদলে গিয়েছে নেপালের আচরণ। ভগবান রামের জন্ম উত্তরপ্রদেশের অযোধ্যায় নয় নেপালে বলে দাবি করেছিল প্রধানমন্ত্রী কেপি শর্মা ওলি (KPS Oli)। উত্তরপ্রদেশের বারাণসী (Varanasi)-তে তারই শাস্তি দিতে এক নেপালি যুবককে হেনস্থা করার ভিডিও সোশ্যাল মিডিয়ায় ভাইরাল করে ওই হিন্দুত্ববাদি সংগঠন। কিন্তু তা যে আসলে ভুয়ো, তা স্পষ্ট হয়ে গেল তদন্তেই। 

[আরও পড়ুন : দেশে শুরু ‘গোষ্ঠী সংক্রমণ’, উদ্বেগ অনেকটা বাড়াল ইন্ডিয়ান মেডিক্যাল অ্যাসোসিয়েশনের দাবি]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement