২০ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  শনিবার ৭ ডিসেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

২০ অগ্রহায়ণ  ১৪২৬  শনিবার ৭ ডিসেম্বর ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দেশের জিডিপর হার আশঙ্কাজনক। ৬ বছরের মধ্যে সর্বনিম্ম সার্বিক বৃদ্ধির হার। অথচ, কেন্দ্রের শাসকদলের সদস্যরা অর্থনীতির এহেন গুরুত্বপূর্ণ মাপকাঠিকে গুরুত্বই দিতে চাইছেন না। অধিকাংশ, বিজেপি নেতাই জিডিপির এই পরিসংখ্যান মানতে নারাজ। দেশে যে আর্থিক মন্দা চলছে, বা ভবিষ্যতে পরিস্থিতি আরও খারাপ হতে পারে, তা মানতে চাইছেন না খোদ অর্থমন্ত্রীও।  জিডিপিকে অবহেলা করতে গিয়ে এবার আর এক বিজেপি নেতা মাত্রা ছাড়ালেন। নিশিকান্ত দুবের মতে, জিডিপি তেমন গুরুত্বপূর্ণ বিষয়ই নয়। ভবিষ্যতে এটা কোনও কাজেই লাগবে না।


বিজেপির এই সাংসদ জিডিপিকে গুরুত্বহীন বোঝাতে একাধিক ধর্মগ্রন্থেরও উদাহরণ টেনেছেন। নিশিকান্তের মূল বক্তব্য হল, জিডিপি কোনও ধর্মগ্রন্থের মতো পবিত্র কোনও বস্তু নয়, যে একে এত মান্য করতে হবে। তাঁর মতে বিষয়টি একেবারেই গুরুত্বহীন।  তিনি বলছেন,”জিডিপি তো এসেছে ১৯৩৪ সালে। তাঁর আগে এমন কোনও হিসেবই ছিল না। জিডিপিকে বাইবেল বা রামায়ণ-মহাভারত মনে করাটা ঠিক নয়। তাছাড়া ভবিষ্যতে জিডিপির খুব একটা ব্যবহারও থাকবে না।” দেশ তথা দেশবাসীর সার্বিক উন্নয়নের নতুন ব্যাখ্যাও দিয়েছেন বিজেপি সাংসদ। তিনি বলছেন, “আজকের নতুন তত্ত্ব বলছে, সাধারণ মানুষের দীর্ঘস্থায়ী উন্নয়ন হচ্ছে নাকি হচ্ছে না, সেটা দেখা। জিডিপির চেয়ে অনেক বেশি গুরুত্বপূর্ণ দীর্ঘস্থায়ী উন্নয়ন। মানুষ কতটা খুশি সেটা বেশি বিচার্য।”

[আরও পড়ুন: এসপিজি সরতেই প্রিয়াঙ্কা গান্ধীর নিরাপত্তায় গলদ, বাড়িতে ঢুকল অজ্ঞাত পরিচয়ের ৫ জন]


উল্লেখ্য, বেশ কিছুদিন ধরেই দেশজুড়ে মন্দা নিয়ে সরব বিরোধীরা। অর্থনীতির অধোগতি চিন্তা বাড়িয়েছে বিশেষজ্ঞদেরও। টানা ৬ ত্রৈমাসিকে জিডিপি কমেছে। বৃদ্ধির হারের এই দশা রীতিমতো উদ্বেগের বিষয়। বাজারে চাহিদার অভাব থাকা সত্ত্বেও তরতর করে বাড়ছে নিত্যপ্রয়োজনীয় সামগ্রীর দাম। প্রায় সমস্ত সেক্টরেই পড়ছে মন্দার প্রভাব। কাজ হারাচ্ছেন হাজার হাজার মানুষ। এই পরিস্থিতিতে বিজেপি সাংসদ জিডিপির পরিসংখ্যানকেই মূল্যহীন করে দিতে চাইলেন। যা বেশ হাস্যকর বলেই মনে হচ্ছে।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং