Advertisement
Advertisement
Supreme Court

কংগ্রেসের বিরুদ্ধে ভোট পর্যন্ত কোনও পদক্ষেপ নয়, সুপ্রিম কোর্টে আয়কর

ভোটের আগে কংগ্রেসের বিরুদ্ধে ৩,৫৬৭ কোটি টাকা জরিমানা দাবি করেছে আয়কর বিভাগ।

No action will taken against Congress till Lok Sabha election, IT department says to Supreme Court

ফাইল ছবি।

Published by: Amit Kumar Das
  • Posted:April 1, 2024 3:18 pm
  • Updated:April 1, 2024 3:18 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: লাগাতার আয়কর নোটিসের পর লোকসভা নির্বাচনের আগে সাময়িক স্বস্তিতে শতাব্দী প্রাচীন দল কংগ্রেস (Congress)। শীর্ষ আদালতে (Supreme Court) আয়কর দপ্তরের তরফে জানিয়ে দেওয়া হল, সামনে লোকসভা নির্বাচন। ফলে আপাতত কংগ্রেসের বিরুদ্ধে আর কোনও পদক্ষেপ নেবে না তারা। তবে নির্বাচন পর্ব শেষ হওয়ার পর তারা যে ফের সক্রিয় হয়ে উঠবে সে বার্তাও দেওয়া হয়েছে। এই মামলার পরবর্তী শুনানি ধার্য হয়েছে ২৪ জুলাই, অর্থাৎ লোকসভা নির্বাচন পর্ব মেটার পর।

নির্বাচনের প্রাক্কালে আয়কর ফাঁকির অভিযোগ তুলে দফায় দফায় নোটিস পাঠানো হয়েছে কংগ্রেসকে। যেখানে এ পর্যন্ত সব মিলিয়ে মোট ৩,৫৬৭ কোটি টাকা জরিমানা দাবি করেছে আয়কর বিভাগ (Income Tax Department)। এই ঘটনার রাজনৈতিক ষড়যন্ত্রের অভিযোগ তুলেছে হাত শিবির। তাদের দাবি, নির্বাচনের আগে আর্থিকভাবে পঙ্গু করে দিতেই মোদি-শাহের নির্দেশে এমন ষড়যন্ত্র চলছে। গোটা ঘটনার প্রতিবাদে শীর্ষ আদালতে মামলা দায়ের করা হয়েছিল কংগ্রেসের তরফে।

Advertisement

[আরও পড়ুন: বিতর্কে বিজেপির ভোট বিজ্ঞাপন, নারীদের অপমানের অভিযোগে কমিশনে মহিলা সংগঠন]

সোমবার এই মামলার শুনানিতেই কেন্দ্রের তরফে সলিসিটর জেনারেল তুষার মেহেতা বলেন, “আয়কর দপ্তর কংগ্রেসকে ১৭০০ কোটি টাকার নোটিস পাঠিয়েছে। তবে লোকসভা নির্বাচন আসছে, ফলে নতুন করে জরিমানার টাকা আদায়ে আপাতত কোনও পদক্ষেপ নেওয়া হবে না। মামলার পরবর্তী শুনানি জুন মাসে রাখা হোক। ততদিন পর্যন্ত আমরা কোনও পদক্ষেপ নেব না।” পাশাপাশি সলিসিটর জেনারেল আদালতকে জানান, “২০২৪ সালে ২০ শতাংশ জরিমানা মেটানোর প্রস্তাব দেওয়া হয়েছে। ইতিমধ্যেই ১৩৫ কোটি টাকা আদায় হয়েছে। পরে ১৭০০ কোটি টাকা জরিমানা মেটাতে নোটিস পাঠানো হয়। তবে এই টাকা নির্বাচন শেষ হওয়ার পর কংগ্রেস পরিশোধ করতে পারে।” এরপর আদালতের তরফে প্রশ্ন করা হয়, তবে কি আপনারা জরিমানা পরিশোধের দাবি স্থগিত করছেন? উত্তরে কেন্দ্র স্পষ্ট জানায়, “শুধুমাত্র নির্বাচন লগ্নে আমরা নতুন করে এই বিষয়ে কোনও পদক্ষেপ নেব না।” অর্থাৎ নির্বাচন শেষ হওয়ার পর যে ফের কংগ্রেসের বিরুদ্ধে আয়কর বিভাগ তৎপর হতে চলেছে কার্যত সে বার্তাই এদিন দিয়ে দেওয়া হয় আয়কর বিভাগের তরফে।

Advertisement

[আরও পড়ুন: নিম্নস্তরের ব্যক্তিগত আক্রমণ! মমতার বিরুদ্ধে কুকথা নিয়ে দিলীপকে তুলোধোনা কমিশনের]

উল্লেখ্য, গত শুক্রবারই প্রায় ১৭০০ কোটি টাকার আয়কর নোটিস পেয়েছে কংগ্রেস। বলা হয়েছে, ২০১৪-’১৫ এবং ২০১৬-’১৭ অর্থবর্ষের জন্য ১,৭৪৫ কোটি টাকা জরিমানা দিতে হবে। এর আগে ১৯৯৪-’৯৫, ২০১৭-’১৮ থেকে ২০২০-’২১ অর্থবর্ষের জন্য আয়কর নোটিস পাঠানো হয়েছিল। সেই অঙ্কটা ছিল প্রায় ১৮০০ কোটি। ফলে সব মিলিয়ে মোট ৩,৫৬৭ কোটি টাকা জরিমানা দিতে বলা হয়েছে কংগ্রেসকে। নির্বাচনের ঠিক আগে এভাবে একের পর এক আয়কর নোটিসে রীতিমতো চাপে ছিল কংগ্রেস। দলের নেতা রাহুল গান্ধীর তরফে কার্যত হুঁশিয়ারি দিয়ে বলা হয়, গণতন্ত্রের বস্ত্রহরণ চলছে। সরকার বদলালে এই ঘটনার বিরুদ্ধে তদন্তের হুঁশিয়ারি দেন তিনি। এমনকী দলের তরফে সাংবাদিক বৈঠক করে জানানো হয়, কর আদায়ের জন্য দলের অ্যাকাউন্ট থেকে ইতিমধ্যে ১৩৫ কোটি টাকা তুলে নিয়েছে আয়কর বিভাগ। এই পরিস্থিতিতে আদালতে কিছুটা হলেও স্বস্তি পেল কংগ্রেস।

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ