BREAKING NEWS

১৮ অগ্রহায়ণ  ১৪২৯  সোমবার ৫ ডিসেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

কীসের আজাদি? অশান্ত কাশ্মীর ইস্যুতে বিক্ষুব্ধদের বার্তা সেনাপ্রধানের

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: May 10, 2018 3:42 pm|    Updated: May 10, 2018 3:42 pm

‘No Azadi’, Army chief’s stern warning to Kashmiri stone pelters

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কাশ্মীরের যুবাদের বোঝানো দরকার ‘স্বাধীনতা’ চাইলেই পাওয়া যায় না। ভারতীয় সেনার সঙ্গে তারা লড়তেও পারবে না। জানিয়েছেন সেনাপ্রধান বিপিন রাওয়াত। সন্ত্রাসবাদী দলে কাশ্মীর উপত্যকার যুবকদের নাম লেখানোর খবর সামনে আসার পরই একথা ঘোষণা করেন সেনাপ্রধান।

একটি সংবাদপত্রে প্রকাশ পেয়েছে এই খবর। বিপিন রাওয়াত জানিয়েছেন, কাশ্মীরের যুবকদের ভুল পথে চালিত করা হচ্ছে। তারা বলেছে, “হাতে বন্দুক তুলে নাও”। “স্বাধীনতা” আসবে। “আমি কাশ্মীরিদের বলতে চাই স্বাধীনতা আসা সম্ভব নয়। এমন কোনওদিনই হবে না। কেন আপনারা অস্ত্র তুলে নিচ্ছেন? আমরা সবসময় তাদের বিরুদ্ধে লড়াই করেছি যারা স্বাধীনতা চাইছে। যারা ভারত থেকে বেরিয়ে যেতে চাইছে, তারা কখনওই সফল হবে না।” বলেছেন সেনাপ্রধান।

[ ফের ধুলোঝড়ের কবলে উত্তরপ্রদেশ, বিপর্যয়ে মৃত ১১ ]

সেনার সঙ্গে তারা লড়াই করতে পারবে না বলেও মন্তব্য করেছেন তিনি। বলেছেন, এনকাউন্টারে যে জঙ্গিরা খতম হয়, তাদের নিয়ে চিন্তিত নয় সেনা। কারণ রোজ রোজ সন্ত্রাসবাদী দলে নতুন নতুন লোক যোগ দেয়। তিনি গোটা সাইকেল সম্পর্কে জানেন। তাই এই বিষয় নিয়ে মাথা ঘামানোর কোনও দরকার নেই। জঙ্গিরা শেষ পর্যন্ত কিছুই করে উঠতে পারে না। ভারতীয় সেনা সঙ্গে টক্কর দিতে পারে না তারা। সেনা এনকাউন্টার করতে উৎসাহী নয়। কিন্ত সেনার সঙ্গে যদি কেউ লড়তে চায়, তাহলে সর্বশক্তি দিয়ে তার উপর ঝাঁপিয়ে পড়ে সেনা, জানিয়েছেন রাওয়াত।

[ প্রাণ বাঁচিয়েছে সেনাই, বিপথগামীদের ঘরে ফেরার বার্তা লস্কর জঙ্গির ]

ভারতীয় জওয়ানদের উপর “নৃশংস” বলে যে অভিযোগ উঠেছে, তা উড়িয়ে দিয়েছেন সেনাপ্রধান। বলেছেন, কাশ্মীরিদের বুঝতে হবে জওয়ানরা নৃশংস নন। সিরিয়া ও পাকিস্তানের দিকে যদি কেউ তাকায়, তাহলে পার্থক্য বুঝতে পারবে। ওরা আকাশপথ ও ট্যাঙ্ক ব্যবহার করে। ভারতীয় সেনা তাদের সেরাটা দিতে চেষ্টা করে। নাগরিকদের যাতে কোনও অসুবিধা না হয়, তার চেষ্টা করেন জওয়ানরা। “আমি জানি কাশ্মীরের যুবকরা খুব রেগে রয়েছেন। কিন্তু নিরাপত্তারক্ষীদের উপর হামলা করলে, পাথর ছুড়লে সমস্যার সমাধান হবে না।” বলেছেন রাওয়াত।

অভিযোগ, কাশ্মীরের নাগরিকরা বীতশ্রদ্ধ হয়ে সেনার উপর হামলা চালাচ্ছে। এপ্রসঙ্গে তিনি বলেছেন, “নাগরিকদের বুঝতে হবে এলাকায় অপারেশন কেন চলছে। যদি তারা চায় সন্ত্রাসবাদীদের খতম করা হবে না, তবে নাগরিকরাই তাদের বোঝাক। বলুক, আত্মসমর্পণ করতে। তাহলেই তো কেউ মারা যায় না। আমরাও অপারেশন থামিয়ে দিই।”

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে