BREAKING NEWS

৭ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৪ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

কর্মীরা স্বেচ্ছা অবসর নিলেও পোষ্যকে দেওয়া হবে না চাকরি, ঘোষণা রেলের

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: August 4, 2020 10:22 pm|    Updated: August 4, 2020 10:22 pm

An Images

সুব্রত বিশ্বাস: পুরনো প্রথা বিসর্জন দিল ভারতীয় রেল। এবার থেকে কর্মীরা স্বেচ্ছা অবসর নিলে তাঁর পোষ্যকে চাকরি দেওয়া হবে না বলে জানিয়েছে রেল বোর্ড। স্বেচ্ছা অবসর নিয়ে এই নয়া স্কিমের না দেওয়া হয়েছে ‘স্যালুট’। এর আগে ছিল ‘লার্জেস’ স্কিম।

[আরও পড়ুন: পুলিশের মদতে রাম মন্দিরের ভূমিপুজোর হোর্ডিং ছেঁড়ার অভিযোগ তৃণমূলের বিরুদ্ধে, উত্তপ্ত খড়গপুর]

রেল বোর্ড জানিয়েছে, কাজের চাপ বেশি যে সব কর্মীদের ক্ষেত্রে তাঁরা স্বেচ্ছা অবসর নিতে পারবেন। ট্রেন চালক থেকে ট্রাকম্যানদের নতুন স্কিমের মধ্যে আনা হয়েছে। পঞ্চান্ন বছরের ঊর্ধের কর্মীদের জন্য এই প্যাকেজ পুরোন হলেও অভিনবত্ব হল, তাঁর পোষ্যকে আর চাকরি দেবে না রেল। নতুন এই সার্কুলার ঘোষণার পাশাপাশি রেল জানিয়েছে, চাকরি প্রার্থীরা আইনের দ্বারস্থ হওয়ায় আদালত পোষ্যদের চাকরি দেওয়ার রীতি খারিজ করতে নির্দেশ দিয়েছে। ফলে এই নতুন নিয়ম লাগু করতে হয়েছে রেলকে। স্বেচ্ছা অবসর নিতে আগ্রহীদের চাকরি যতদিন (৬০ বছর) ছিল ততদিন পর্যন্ত অর্ধেক বেতন দেবে রেল। তাঁরা নিয়মিত ফ্রি ট্রাভেল পাস পাবেন সম্পূর্ণ মেয়াদ পর্যন্ত।

রেল বোর্ড নব ঘোষিত এই নীতির বিষয়ে কর্মী সংগঠনগুলির কাছে মত চেয়েছে। যদিও সংগঠনগুলি তা সমর্থন করেন নি। বরং তারা জানিয়েছে, দীর্ঘদিন কজ করে এবার বঞ্চনার মুখে পড়বেন কর্মীরা। এটা রেলের ভ্রান্ত নীতি। কর্মী সংকোচনের নয়া পদ্ধতি বলে অভিযোগ তুলেছে কর্মী সংগঠনগুলি। পূর্ব রেলের মেনস ইউনিয়ন এই পদক্ষেপের প্রতিবাদ জানিয়েছে। সংগঠনটির সাধারণ সম্পাদক অমিত ঘোষ বলেন, রেল কর্মী সংকোচনের জন্য ৫৫ বছর বয়স ও ৩০ বছর চাকরি যেটা আগে হবে তাঁদের স্বেচ্ছা অবসরের সিদ্ধান্ত নিয়েছে রেল। এটা কর্মী সংকোচনের রীতি। তা তড়িঘড়ি কার্যকর করতে নানা ধরনের ফন্দি আটছে রেল। এটা তারই প্রাথমিক পদক্ষেপ বলে তিনি মনে করেছেন। একই প্রতিবাদ মেনস কংগ্রেসেরও।

[আরও পড়ুন: ২৪ ঘণ্টায় ফের করোনায় রেকর্ড মৃত্যু বাংলায়, মোট আক্রান্তের সংখ্যা ৮১ হাজার ছুঁইছুঁই]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement