BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  শনিবার ২৬ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

‘একটি পাতাও কাটা যাবে না’, মুখ্যমন্ত্রী হয়েই আরে জঙ্গল বাঁচাতে কড়া পদক্ষেপ উদ্ধবের

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: November 29, 2019 8:52 pm|    Updated: November 29, 2019 8:52 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মুখ্যমন্ত্রীর কুর্সিতে বসেই পরিবেশ বাঁচাতে গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিলেন উদ্ধব ঠাকরে। মেট্রো সম্প্রসারণের কাজের জন্য মুম্বইয়ের আরে জঙ্গল কাটায় নিষেধাজ্ঞা জারি করলেন। তাঁর রাজনৈতিক কর্মকাণ্ডের মধ্যে প্রথমেই এই সিদ্ধান্তটি কার্যকরের পথে হাঁটলেন। উদ্ধবের এই সিদ্ধান্তে খুশি পরিবেশপ্রেমীরা। হাসি ফুটেছে বলিউড সেলিব্রিটিদের মুখেও।
শুক্রবার সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে মহারাষ্ট্রের নতুন মুখ্যমন্ত্রী বলেন, ‘মেট্রো সম্প্রসারণের কাজ চলবে, কিন্তু আমার পরবর্তী সিদ্ধান্তের আগে আরে বনাঞ্চলের একটি পাতাও যেন কাটা না হয়। আমরা মেট্রোর কারশেড তৈরির কাজ স্থগিত করে দিয়েছি। এ নিয়ে সামগ্রিক পর্যালোচনার পরই সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।’ চলতি বছর মহারাষ্ট্র নির্বাচনের অন্যতম ইস্যু ছিল এই আরে জঙ্গল কেটে মেট্রো সম্প্রসারণের কাজ। যার জন্য পরিবেশপ্রেমীরা রীতিমতো গর্জে উঠেছিলেন। আন্দোলন বড়সড় আকার নিতে শুরু করেছিল।

[আরও পড়ুন: আর্থিক মন্দার জের! সাফাই কর্মীর চাকরির জন্য আবেদন ৭ হাজার ইঞ্জিনিয়ারের]

আর রাজ্যের ক্ষমতায় এসে ঠিক সেই আন্দোলনকেই থামিয়ে দেওয়ার পদক্ষেপ নিলেন মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে। আরে বনাঞ্চলকে মুম্বইয়ের ফুসফুস বলা হয়। ২০০০ গাছ আছে এখানে। কিন্তু এই বনাঞ্চলের অনেকটা সাফ করে মেট্রো সম্প্রসারণের কাজের সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছিল। তাতেই তীব্র প্রতিবাদে মুখর হয়ে ওঠেন পরিবেশপ্রেমীরা। এমনকী বলিউড সেলিব্রিটি শ্রদ্ধা কাপুর থেকে জন আব্রাহাম, সকলেই গাছ কাটার বিরোধিতায় প্রচার করেন। সুপ্রিম কোর্টের নির্দেশ থাকা সত্ত্বেও গাছ কাটা শুরু হয়ে যায়।
এ নিয়ে মুখ্যমন্ত্রী উদ্ধব ঠাকরে বলেন, ‘আমি সংবাদপত্রে পড়ছিলাম যে আরে জঙ্গলে রাতের বেলায় গাছ কাটা হচ্ছে। আমি এটা মেনে নেব না। এটা বন্ধ করতে যা করার, মুখ্যমন্ত্রী হিসেবে আমি সেটাই করব।’ সেইসঙ্গে অবশ্য উদ্ধব এও ব্যাখ্যা করে দেন যে তাঁর এই পদক্ষেপকে যেন উন্নয়নের বিরোধিতা হিসেবে দেখা না হয়। উদ্ধব ঠাকরে এবং তাঁর ছেলে আদিত্য গোড়া থেকেই আরে বনাঞ্চল বাঁচানোর জন্য সরব হয়েছিলেন। আর রাজনৈতিক বিশ্লেষকদের একটা অংশ মনে করে, এই ইস্যুই তাঁদের ভোটব্যাংককে শক্তপোক্ত করেছে। কাজেই এ নিয়ে পদক্ষেপ গ্রহণ প্রত্যাশিতই ছিল।

[আরও পড়ুন: পুলিশকে ফোন না করে বোনকে কেন? হায়দরাবাদে ধর্ষণ ও খুনের ঘটনায় নির্যাতিতাকেই দুষলেন মন্ত্রী]

তবে নতুন মুখ্যমন্ত্রীর এই সিদ্ধান্তকে কটাক্ষ করতে নেমে পড়েছেন বিরোধীরা। প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী দেবেন্দ্র ফড়ণবিস টুইটারে লিখেছেন, ‘ এটা দুর্ভাগ্যজনক যে নবনির্বাচিত সরকার রাজ্যের পরিকাঠামো উন্নয়নে জোর দিচ্ছে না। যার ফল সবচেয়ে বেশি ভুগতে হবে সাধারণ মুম্বইবাসীকে।’

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement