BREAKING NEWS

২৮ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২০ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

সীমান্তে অতিরিক্ত সেনা মোতায়েন করবে না কোনও দেশই, যৌথ বিবৃতিতে জানাল ভারত-চিন

Published by: Sucheta Sengupta |    Posted: September 22, 2020 9:30 pm|    Updated: September 22, 2020 9:48 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: টানাপোড়েন অনেক হয়েছে। সাম্প্রতিককালে প্রায়শয়ই সংঘর্ষের আবহ ঘনিয়েছে ভারত-চিন (India-China border) সীমান্তে। এসবে ইতি টানতে বৈঠকে বসে গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত নিল দু’ দেশ। সেনা কমান্ডার পর্যায়ের ষষ্ঠ রাউন্ড বৈঠক শেষে দু’ দেশ যৌথ বিবৃতিতে (Joint Statment) জানাল, LACতে আর অতিরিক্ত সেনা মোতায়েন করবে না কেউই। সেইসঙ্গে সীমান্তে স্থিতাবস্থা বজায় রাখতে উদ্যোগে হবে নয়াদিল্লি-বেজিং।

গত জুনে লাদাখে লাফৌজের আগ্রাসনের পর থেকে অশান্তি চরমে সীমান্তে। একাধিকবার ছোটখাটো সংঘর্ষে জড়িয়েছে দু’দেশের সেনা। কখনও প্যাংগং লেক, কখনও দেপসাংয়ে চিনা ফৌজ নিজেদের আধিপত্য বিস্তার করতে চেয়ে পিছু হঠেছে। কখনও ভারতীয় সেনার শক্তির কাছে হার মেনেছে। তবে চেষ্টা ছাড়েনি। ভূপ্রকৃতিগতভাবে তীব্র প্রতিকূল লাদাখে ভারতীয় সেনার টহলদারিতে বাধা তৈরির চেষ্টাও করেছে চিনের People’s Liberation Army. চোখে চোখ রেখে লড়াই করে দেশের ভূখণ্ডকে সুরক্ষিত রেখেছেন ভারতীয় জওয়ানরা। দু’দেশের প্রতিরক্ষা, বিদেশ মন্ত্রকের প্রতিনিধিদের আলোচনা স্তরেও সীমান্তের উত্তেজনা কমেনি।

[আরও পড়ুন: লকডাউনে হেঁটে বাড়ি ফিরেছেন ১ কোটিরও বেশি পরিযায়ী শ্রমিক, জানাল কেন্দ্র]

সেই আবহেই সোমবার থেকে কমান্ডার পর্যায়ের বৈঠকে বসেছে ভারত-চিন। সেখানে মঙ্গলবার ষষ্ঠ রাউন্ড বৈঠক শেষে দু’দেশই কয়েকটি বিষয়ে ঐক্যমত্যে পৌঁছেছে। যার মধ্যে সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ, সীমান্তে কোনও দেশই অতিরিক্ত সেনা পাঠাবে না। সীমান্তে স্থিতাবস্থা, শান্তি ফেরাতে উদ্যোগী হবে দু’দেশই। আর তার জন্য যা যা পদক্ষেপ নেওয়া প্রয়োজন, বেজিং এবং নয়াদিল্লি প্রাথমিক স্তর থেকেই তা গ্রহণ করতে অঙ্গীকারবদ্ধ হয়েছে। পরবর্তী পর্যায়ের বৈঠকে এসব আলোচনা আরও এগোতে পারে বলে সূত্রের খবর। 

[আরও পড়ুন: হিন্দি না জানায় ঋণের আবেদন নাকচ! বিস্ফোরক অভিযোগ তামিল চিকিৎসকের]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement