BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২২ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

আজ থেকে চালু বাড়তি পরিষেবা কর, মধ্যবিত্তর মাথায় হাত

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: June 1, 2016 2:41 pm|    Updated: June 1, 2016 2:41 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ব্যয়বহুল হচ্ছে বিলাসিতা৷ আজ, বুধবার থেকে রেস্তোরাঁয় খাওয়া, রেল কিংবা বিমানে ভ্রমণ, জীবন বিমা, মেডিক্লেম-সহ যেকোনও ইনসিওরেন্স ও বাড়ি কেনা এমনকী টেলিফোন বিলের জন্যও অতিরিক্ত কর দিতে হবে আমজনতাকে৷

এখানেই শেষ নয়৷ বিলাসিতার সঙ্গে সঙ্গে সাধারণ মানুষের দৈনন্দিন খরচেও পড়তে চলেছে পরিষেবা করের কোপ৷ এক ধাক্কায় ২১ টাকা বাড়ানো হচ্ছে ভর্তুকিহীন রান্নার গ্যাসের দাম৷ সেই সঙ্গে মূল্যবৃদ্ধির কোপ পড়তে চলেছে দৈনন্দিন ব্যবহার্য জিনিসপত্রেও৷ মধ্যবিত্তের পকেটে এমন বড় সড় আঘাতের ভিলেন কৃষি কল্যাণ সেস৷ এবছরের বাজেটেই এই কৃষি সেসের কথা বলেছিলেন অর্থমন্ত্রী অরুণ জেটলি৷ জানিয়েছিলেন সমস্ত পরিষেবা করে যুক্ত হবে অতিরিক্ত ০.০৫ শতাংশ কৃষি কল্যাণ সেস৷ তারই সূচনা হল আজ থেকে৷

গত বছর অক্টোবর পর্যন্ত পরিষেবা কর দিতে হত ১৪ শতাংশ৷ নভেম্বর এর সঙ্গে যুক্ত করা হয় ০.০৫ শতাংশ স্বচ্ছভারত সেস৷ বুধবার তার সঙ্গে আরও ০.০৫ শতাংশ কৃষি সেস যোগ হওয়ায় এখন থেকে পরিষেবামূলক সমস্ত ক্ষেত্রেই ১৫ শতাংশ পরিষেবা কর দিতে হবে আমজনতাকে৷

এপ্রসঙ্গে কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রকের বক্তব্য হল, সারা দেশে একক পণ্য ও পরিষেবা কর ব্যবস্থা (জিএসটি) চালু হওয়ার আগে পরিষেবা করের হার ধীরে ধীরে বাড়িয়ে ১৭ থেকে ১৮ শতাংশ পর্যন্ত নিয়ে আসা হবে৷ ধীরে ধীরে কর বৃদ্ধির কারণ মধ্যবিত্তের উপর এক ঝটকায় অনেকটা করের বোঝা না চাপিয়ে দেওয়া৷ এপ্রসঙ্গে বলে রাখা দরকার, পরিষেবা করের হার ১৮ শতাংশ পর্যন্ত বাড়ানোর প্রস্তাব করেছেন মোদি সরকারের মুখ্য অর্থনীতিবিদ অরবিন্দ সুব্রহ্মণ্যম৷ অন্যদিকে, কংগ্রেসও সহমত হয়েছে পরিষেবা করের সর্বোচ্চ হার ১৮ শতাংশে বেধে রাখার ব্যাপারে৷ তাই এখানেই শেষ নয়৷ খুব শীঘ্রই যেকোনও পরিষেবার বিনিময়ে সরকারের ভাণ্ডারে আরও বেশি কর জমা দিতে হবে আমজনতাকে৷

নতুন প্রক্রিয়ায় সরকারের ঘরে রাজস্বের পরিমাণ বাড়ছে ঠিকই৷ হয়তো তাতে ভারতের সার্বিক অর্থনীতির উন্নতিও হতে চলেছে৷ কিন্তু, সাধারণ মানুষের কাছে অর্থের জোগান আসছে কতটুকু, সেটাও বিবেচ্য৷ পরিষেবা কর বাড়ার অর্থ সকাল থেকে রাত পর্যন্ত দৈনন্দিন কাজে লাগা অধিকাংশ জিনিসেরই মূল্যবৃদ্ধি৷ একদিকে পেট্রোল-ডিজেলের দাম বাড়ার ফলে সড়কপথে এবং আকাশপথে বহন করা পণ্যের দাম বাড়ছে৷ এর উপর পণ্য পরিবহণে আরোপিত সার্ভিস ট্যাক্স৷ ফলে আরও দাম বড়ছে নিত্য ব্যবহার্য জিনিসপত্রের৷ কেবল নেটওয়ার্ক, বিদ্যুত্‍ পরিষেবা, খনিজ বস্তু উত্তোলণ, ইন্টারনেট টেলি কমিউনিকেশন-সহ সমস্ত যোগাযোগ পরিষেবা, বিউটি পার্লার, জিম, প্যাকেজিং, রক্ষণাবেক্ষণ, এমনকী সিকিওরিট এজেন্সির খরচও বাড়বে পরিষেবা কর বৃদ্ধির দৌলতে৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement