২১  আষাঢ়  ১৪২৯  বুধবার ৬ জুলাই ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

কর্তব্যে অবিচল, বাবার মৃত্যু উপেক্ষা করে বাজেটের কাজ সারলেন অর্থমন্ত্রকের আধিকারিক

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: January 31, 2020 8:48 am|    Updated: January 31, 2020 8:48 am

North Block officer ignores father's death to complete Budget work

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কর্তব্য নাকি দায়িত্ব। এই দুইয়ের মাঝে পড়ে কর্তব্যকেই বেছে নিলেন কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রকের গুরুদায়িত্বে থাকা আধিকারিক কুলদীপ কুমার শর্মা। বাবার মৃত্যুকে উপেক্ষা করে কর্তব্যে অবিচল থাকলেন নর্থ ব্লকের প্রেস বিভাগের এই আধিকারিক। কাজ শেষে অর্থমন্ত্রকের তরফে প্রশংসিত তাঁর দৃঢ়চেতা মানসিকতা।

[আরও পড়ুন: ‘নীরব দর্শক’, জামিয়ায় গুলিকাণ্ডে দিল্লি পুলিশকে তুলোধনা বিরোধীদের]

কুলদীপ কুমার শর্মা। অর্থমন্ত্রকের অত্যন্ত গোপনীয় এবং গুরুত্বপূর্ণ দপ্তরে কর্মরত। নর্থ ব্লকের প্রেস বিভাগের ডেপুটি ম্যানেজার তিনি। তাঁর কাজ বাজেটের নথি প্রস্তুত হলে তা মুদ্রণ করা। ছাপার কাজ পর্যবেক্ষণ করা। অর্থমন্ত্রকের বাজেটের নথি অত্যন্ত গোপনীয়। সংসদে বাজেট পেশের আগে তা কোনওভাবেই ফাঁস করা চলে না। তাই, যাঁরা এই নথি মুদ্রণের কাজ করেন তাঁদেরও বাইরে যাওয়ার অনুমতি দেওয়া হয় না। টানা প্রায় দশদিন নাওয়া-খাওয়া ভুলে দপ্তরেই আটকে থাকতে হয় তাঁদের। বাইরে থেকে যাতে কেউ কোনওভাবে ভিতরে যেতে না পারেন, বা ভিতর থেকে যাতে কেউ বাইরে না যান, তা নিশ্চিত করতে কড়া নিরাপত্তার ব্যবস্থা করা হয়। কর্মীদের থাকা-খাওয়ার ব্যবস্থাও করা হয় নর্থ ব্লকের অন্দরেই। কর্মীরা নিজেদের পরিবারের সদস্যদেরও ভিতরে ডাকতে পারেন না। তবে, এসব উপেক্ষা করেও চাইলেই বাবার মৃত্যু সংবাদ পেয়ে বাড়ি ফিরতে পারতেন কুলদীপ কুমার শর্মা। কিন্তু, তিনি তা করেননি। এক মিনিটের জন্যও ছাপাখানা ছেড়ে যাননি ওই আধিকারিক।

Nirmala Sitharaman
কেন্দ্রীয় অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ

[আরও পড়ুন: ফেসবুকে বদলার হুমকি, ‘জঙ্গি ধাঁচে’ জামিয়ায় গুলি উগ্র হিন্দুত্ববাদীর]

কর্তব্যে অবিচল থেকে বাবার মৃত্যুর পরও বাড়ি ফেরেননি কুলদীপ। তাঁর কর্তব্যবোধকে কুর্ণিশ জানিয়ে টুইট করেছে নির্মলা সীতারমণের দপ্তর। অর্থ মন্ত্রকের তরফে টুইট করে জানানো হয়েছে, “আমরা অত্যন্ত দুঃখের সঙ্গে জানাচ্ছি, প্রেস বিভাগের ডেপুটি ম্যানেজার কুলদীপ কুমার শর্মা গত ২৬ জানুয়ারি নিজের বাবাকে হারিয়েছেন। ওঁ নিজের কাজে আটকে ছিল। এত বড় একটা ক্ষতি হয়ে যাওয়া সত্ত্বেও এক মিনিটের জন্যও ছাপাখানা ছাড়েননি তিনি।” কুলদীপের এই কর্তব্যবোধকে স্যালুট জানাচ্ছে নেটদুনিয়াও।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে