২১  আষাঢ়  ১৪২৯  বুধবার ৬ জুলাই ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

‌চিন-পাকিস্তান নয়, এই ‘সামান্য’ বস্তুটির কাছেই কুপোকাত হতে পারে রাফালে যুদ্ধবিমান

Published by: Abhisek Rakshit |    Posted: September 2, 2020 9:26 pm|    Updated: September 2, 2020 9:26 pm

Not China, Pakistan; Bird Hit is the Single Biggest Fear for Rafale at IAF Ambala Airbase

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক:‌ গত জুলাইয়ের শেষদিকে ভারতে (India) আসার পর আগামী ১০ সেপ্টেম্বর আনুষ্ঠানিকভাবে বায়ুসেনায় (Indian Air Force) যুক্ত হতে চলেছে রাফালে (Rafale)। আম্বালা এয়ারবেসে আয়োজিত অনুষ্ঠানে উপস্থিত থাকবেন খোদ প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং (Rajnath Singh)। এই পরিস্থিতিতে একটি কারণই কিন্তু চিন্তার ভাঁজ ফেলছে ভারতীয় বায়ুসেনার আধিকারিকদের কপালে। না, চিন বা পাকিস্তান নয়, আম্বালা এয়ারবেসের কাছে আকাশে উড়ে বেড়ানো পাখিরাই মূলত তাঁদের চিন্তার কারণ। কোনওক্রমে রানওয়ে থেকে ওঠা–নামার সময় রাফালের সঙ্গে সংঘর্ষ হলে বড়সড় ক্ষতি হতে পারে নয়া এই যুদ্ধবিমানের। যদিও ইতিমধ্যে এই সমস্যা সমাধানে পদক্ষেপও করা হয়েছে।

[আরও পড়ুন: সরকারি নিষেধাজ্ঞা উড়িয়ে মসজিদে নমাজ পড়ার চেষ্টা, আটক ঔরঙ্গাবাদের সাংসদ]

আসলে আম্বালা এয়ারবেসের (Ambala Airbase) কাছেই গজিয়ে ওঠা আবর্জনা ফেলার জায়গা দীর্ঘদিন ধরে অপরিস্কার পড়ে রয়েছে। ফলে সেখানে প্রচুর পরিমাণে আবর্জনা জমেছে। আর এই আবর্জনার স্তূপেই খাবারের খোঁজে আসে পাখিরা। তাদের সঙ্গেই যেকোনও মুহূর্তে ধাক্কা লাগতে পারে যুদ্ধবিমানের। আর সেক্ষেত্রে বড়সড় ক্ষতি হতে পারে নয়া এই যুদ্ধবিমানের। ঝুঁকি রয়েছে বিমানচালকের প্রাণেরও।

[আরও পড়ুন: আগ্রাসী হয়ে উঠছে চিন, সীমান্ত রক্ষায় অরুণাচলে শক্তি বাড়াচ্ছে ভারত]

জানা গিয়েছে, ইতিমধ্যে হরিয়ানার (Haryana) মুখ্যসচিবকে এই প্রসঙ্গে চিঠি লেখা হয়েছে ভারতীয় বায়ুসেনার তরফে। তাতে সাফ বলা হয়েছে, অবিলম্বে এই আবর্জনার স্তূপ সরাতে হবে। না হলে খাবারের সন্ধানে এয়ারবেসের নিকটবর্তী আকাশে পাখির সংখ্যা রোজ বাড়ছে। এর ফলে এয়ারবেসে থাকা যুদ্ধবিমানগুলো ওঠা–নামায় সমস্যা হচ্ছে। যেকোনও মুহূর্তে দুর্ঘটনা ঘটতে পারে। ক্ষতি হতে পারে সদ্য কেনা দামী রাফালেরও। ঝুঁকি থাকছে পাইলটেরও। তাই যত দ্রুত সম্ভব ওই এলাকা থেকে আবর্জনা সরাতে হবে। এছাড়া খেয়াল রাখতে হবে এয়ারবেসের দশ কিলোমিটার এলাকায় আকাশে যেন কোনওভাবেই পাখিদের বাড়বাড়ন্ত না দেখা যায়। সেদিকে বিশেষ খেয়াল রাখতে হবে স্থানীয় মিউনিসিপ্যাল কর্পোরেশনকে।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে