১ আষাঢ়  ১৪২৬  রবিবার ১৬ জুন ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার
বিলেতে বিশ্বযুদ্ধ

১ আষাঢ়  ১৪২৬  রবিবার ১৬ জুন ২০১৯ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আজব রায় জনতার। কোনও রাজনৈতিক দলের প্রতি যে তাঁদের কোনও আস্থা নেই এ বছর লোকসভা নির্বাচন তা স্পষ্ট বুঝিয়ে দিল ভোটাররা। এবছর অন্ধ্রপ্রদেশ এক অদ্ভুত ফলাফল দেখল। রাজ্যের লোকসভা ও বিধানসভা, দুই নির্বাচনেই কংগ্রেস বা বিজেপি, কেউই প্রথম স্থানে রইল না। এমন যে হবে আগে অনেকেই আন্দাজ আগে করেছিলেন অনেকেই। ভেবেছিলেন, দুই আঞ্চলিক দল টিডিপি ও ওয়াইএসআরসিপি দুই জাতীয় দলকে পিছনে ফেলে দেবে। কিন্তু এ যে একেবারে অবিশ্বাস্য! দুই জাতীয় দলকে পিছনে ফেলে কিনা এগিয়ে গেল নেটা।

কথায় বলে যেই যায় লঙ্কায়, সেই হয় রাবণ। প্রচলিত সেই প্রবাদ মিথ্যে নয়। রাজনৈতিক নেতাদের ক্ষেত্রে এটি সম্পূর্ণভাবে খাটে। ভোটের আগে তাঁরা ঝুড়ঝুড়ি প্রতিশ্রুতি দেয়। কিন্তু ভোটের পরেই ময়দানে তাদের আর দেখা যায় না। হিল্লিদিল্লি করেই দিন কাটান। কাজের থেকে যেন তাঁদের কাছে অকাজটাই বেশি প্রিয় হয়ে যায়। অনেকেই বলেন, গদির মহিমা। ক্ষমতায় এলেই সবাই এক পথের পথিক। ভোটের আগেই যত হম্বিতম্বি। ভোট মিটলেই প্রতিশ্রুতিগুলোও ‘বহিয়া যায় নদীর স্রোতের প্রায়’। কিছু মানুষ এটা হাড়েহাড়ে বুঝেছেন। তাই ছাপ দিয়েছেন নোটায়। মানে, রাজনৈতিক ময়দানে যেসব নেতা বা মন্ত্রীদের দেখা যাচ্ছে, তাদের কারোর উপরেই তাঁদের আস্থা নেই।

[ আরও পড়ুন: বিপুল জয়ের উচ্ছ্বাস, ছুরি দিয়ে বুকে মোদির নাম লিখলেন এই ‘ভক্ত’ ]

নোটা যে একেবারে ভোট পড়ে না, তা নয়।কিন্তু এবছর অন্ধ্রপ্রদেশের অঙ্ক সব হিসেবনিকেশ তালগোল পাকিয়ে দিয়েছে। অদ্ভুতভাবে দেখা গিয়েছে, এখানকার মানুষ যেন প্রতিজ্ঞা করেছে, হাজার প্রতিশ্রুতিতেও ভুলবেন না। তাই বিজেপি বা কংগ্রেস যতই এই করব সেই করব বলে প্রতিশ্রুতি দিক, তাতে মজে যাননি জনগণ। সরাসরি মুখের উপর উত্তর কেউ দেননি, কিন্তু পোস্টাল ব্যালট ও ইভিএমে দিয়েছেন জবাব। তাই ফলাফল প্রকাশের পর দেখা গেল মোদি ম্যাজিক এখানে কাজ করেনি। দেশের সর্বত্র যেখানে গেরুয়া ঝড়, সেখানে অন্ধ্রে বিজেপির প্রাপ্ত ভোট ০.৯৬ শতাংশ সিট। তবে বিজেপির তুলনায় কংগ্রেসের অবস্থা এখানে ভাল। এই রাজ্য থেকে ১.২৯ শতাংশ ভোট পেয়েছে কংগ্রেস। কিন্তু এদিকে সবাইকে ছাপিয়ে গিয়েছে নোটা। এর প্রাপ্ত ভোট ১.৫০ শতাংশ।

শুধু লোকসভা নির্বাচনই নয়, বিধানসভার ক্ষেত্রেও দেখা গিয়েছে একই চিত্র। বিধানসভায় নোটা পেয়েছে ১.২৮ শতাংশ ভোট। সেখানে কংগ্রেসকে ১.১৭ শতাংশ ভোটেই সন্তুষ্ট থাকতে হয়েছে। বিজেপির অবস্থা এখানে লোকসভার মতোই খারাপ। এই দলের প্রাপ্ত ভোট ০.৮৪ শতাংশ। বিজেপির রাজ্য সভাপতি কান্না লক্ষ্মীনারায়ণ বা কংগ্রেসের রাজ্য সভাপতি এন রঘুবীর রেড্ডির কাছে এর কোনও জবাব নেই। তাঁরাও তো হতবাক!

[ আরও পড়ুন: লোকসভার পর এবার রাজ্যসভাতেও একক সংখ্যাগরিষ্ঠতা প্রাপ্তির পথে NDA ]

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং