Advertisement
Advertisement

Breaking News

জাল্লিকাট্টুর পর এবার কামবালা ফেরাতে মরিয়া কর্নাটকের মানুষ

ঐতিহ্যশালী মোষের দৌড় ফিরিয়ে দেওয়ার দাবি

now-karnataka-wants-centre-to-lift-ban-on-buffalo-races_kambala
Published by: Sangbad Pratidin Digital
  • Posted:January 24, 2017 3:51 pm
  • Updated:January 24, 2017 3:51 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: জাল্লিকাট্টুর পর এবার শিরোনামে কামবালা। ঐতিহ্যশালী মোষের দৌড় কামবালার অনুমোদনের দাবিতে এবার সরব হচ্ছেন তামিলনাড়ুর প্রতিবেশি রাজ্য কর্নাটকের মানুষ। সোমবারই রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী সিদ্দারামাইয়া বলেন, রাজ্য সরকার কামবালার পক্ষে রয়েছে। এ বিষয়ে কেন্দ্রর হস্তক্ষেপ চাওয়া হবে। আগামী ৩০ জানুয়ারি  হাইকোর্টে একটি পিটিশন জমা দিতে চলেছে কামবালা আয়োজনকারী বিভিন্ন সংগঠনগুলি। পাশাপাশি কামবালার দাবিতে মুদাবিদরির স্বরাজ ময়দানে আগামী ২৮ জানুয়ারি জড়ো হবেন শতাধিক মানুষ। সঙ্গে থাকবে মোষের দলও। শুধু মুদাবিদরিই নয়, ম্যাঙ্গালুরুর বিভিন্ন জায়গাতেও ক্রমেই সুর চড়ছে কামবালা ফেরানোর দাবিতে।

Advertisement

জল, কাদা মাখা ট্র্যাকে ছুটে চলছে এক জোড়া মোষ। পিছু পিছু ছুটছেন একজন কৃষক। দৌড়ের গতি কমালেই ছপাং করে মার মোষের পিঠে। উপকূলবর্তী কর্নাটকে এই মোষের দৌড় কামবালা নামে পরিচিত। এখানকার ঐতিহ্য এই খেলা। নভেম্বর থেকে মার্চ পর্যন্ত কামবালায় মাতেন দক্ষিণ কানাড়া, উদিপির মানুষ। গত ২০ বছর ধরে চলছে এই খেলা। কিন্তু প্রাণী সুরক্ষার বিষয়টি মাথায় রেখে জাল্লিকাট্টুর পাশাপাশি কামবালাও বন্ধ করার দাবি তোলে পেটা। ২০১৪ সালে সুপ্রিম কোর্ট নিষিদ্ধ করে খেলা দু’টি।

Advertisement

বিষয়টি এতদিন ছাইচাপা থাকলেও জাল্লিকাট্টু নিয়ে আন্দোলন ফের সেই আগুন উসকে দিয়েছে। কামবালা কমিটির প্রেসিডেন্ট অশোক রাই জানান, আগামী ২৮ তারিখ একটি কামবালার আয়োজনও করা হচ্ছে। ফের আদালত পর্যন্ত বিষয়টি যাওয়ার আগে কামবালা নিয়ে মানুষের মধ্যে সচেতনতা বাড়াতে ইতিমধ্যেই মাঠে নেমে পড়েছে কামবালা আয়োজনকারী সংগঠনগুলি। চলছে বিভিন্ন প্রচার কর্মসূচি। রাজ্যের শাসকদল কংগ্রেসের পাশাপাশি বিজেপিও সুর মেলাচ্ছে কামবালার সমর্থনে। ২০১৮-য় কর্নাটকে বিধানসভা ভোট। তার আগে এই ধরনের ইস্যু নিয়ে বিরোধিতা করবে না কোনও রাজনৈতিক দলই। এই সুযোগেই নিজেদের ঐতিহ্যকে ফিরে পেতে মরিয়া এখানকার মানুষ।

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ