২ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখতে নয়া পন্থা, রাস্তায় ছাতা ব্যবহারের নিদান ওড়িশা প্রশাসনের

Published by: Sucheta Chakrabarty |    Posted: May 1, 2020 11:03 am|    Updated: May 1, 2020 11:03 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: করোনা সংক্রমণ রুখতে নয়া পন্থা আবিষ্কার করল ওড়িশা। ওড়িশাবাসীকে রাস্তায় বেরিয়ে বাজার করার সময় ছাতা ব্যবহার করার পরিমর্শ দিল প্রশাসন। ছাতা ব্যবহার করলে প্রতিটি ব্যক্তির মধ্যে সঠিক পদ্ধতিতে সামাজিক দূরত্ব বজায় থাকবে বলে জানা যায়।

করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ রুখতে বারবারই বিশেষজ্ঞরা সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার কথা বলছেন। কিন্তু প্রয়োজনীয় দ্রব্য কিনতে যাঁরা রোজই রাস্তায় বের হচ্ছেন সবসময় সেখানে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখা সম্ভব হয় না। ফলে সংক্রমণের আশঙ্কা থেকেই যাচ্ছে। তাই সংক্রমণ রুখতে নয়া পন্থা অবলম্বন করল ওড়িশা কয়েকটি জেলা। ওড়িশার গঞ্জাম জেলার প্রশাসনিক স্তর থেকে দেওয়া হল ছাতা ব্যবহারের পরামর্শ। ওই জেলার কালেক্টর বিজয় অমৃত কুলাঙ্গি সকলকে রাস্তায় বের হলে ছাতা ব্যবহারের পরামর্শ দিয়েছেন। তাঁর মতে এর ফলে স্বাভাবিকভাবেই একে-অপরের থেকে দূরত্ব বজায় থাকবে। তিনি টুইটারে একটি কার্টুনের ছবি শেয়ার করেছেন, যাতে দেখা যাচ্ছে যে কীভাবে একটি ছাতা থাকায় দু’জনের মধ্যে প্রায় ১.৫ মিটার দূরত্ব বজায় থাকবে। এর ফলে মারণ ভাইরাসের সংক্রমণ আটকানো যাবে অনেকটাই, বলে মত ওড়িশা সরকারের।২০১৩ সালের ওড়িশা ক্যাডারের ওই আইএএস (IAS) আধিকারিক একটি সংবাদ মাধ্যমকে সাক্ষাৎকার দেওয়ার সময় বলেন, “আমি বিশ্বাস করি যে একটি ছাতা ব্যবহার করলে স্বাভাবিকভাবেই ব্যবহারকারীদের মধ্যে দূরত্ব সৃষ্টি হবে। যিনি ছাতা ব্যবহার করছেন তাঁর সঙ্গে তখন অন্য ব্যক্তির দূরত্ব ১,৫ মিটার হবেই। আর তাছাড়া ছাতা ব্যবহারে সূর্যের প্রখর তাপও এড়ানো যাবে”।

[আর পড়ুন:টিকিয়াপাড়া কাণ্ডে জারি পুলিশি ধরপাকড়, গ্রেপ্তার দুই মূল অভিযুক্ত-সহ ১৪ জন]

এর আগে, কেরলের আলাপুঝা জেলায় পঞ্চায়েতের তরফ থেকে ঠিক একই রকম নির্দেশ দেওয়া হয়। প্রশাসনের তরফ থেকে সাধারণ মানুষের উদ্দেশে নির্দেশিকা জারি করে বলা হয় যে, এই পরিস্থিতি রাস্তায় বা বাইরে যে কোনও জায়গায় যাওয়ার সময় ছাতা ব্যবহার করা বাধ্যতামূলক। কেননা এর ফলে সামাজিক দূরত্ব বজায় রাখার নিয়মটি খুব সহজেই কার্যকর করা যায়। সেই কেরল মডেলকে অনুসরণ করল ওড়িশাও।

[আর পড়ুন:কাজে এল না প্লাজমা থেরাপি, মহারাষ্ট্রে মৃত সংক্রমিত এক ব্যক্তি]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement