১১ ফাল্গুন  ১৪২৬  সোমবার ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

১১ ফাল্গুন  ১৪২৬  সোমবার ২৪ ফেব্রুয়ারি ২০২০ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: এক দেশ, এক প্রধান আর এক নিশান। জনসংঘের প্রতিষ্ঠাতা ড. শ্যামাপ্রসাদ মুখোপাধ্যায় এই স্লোগান তুলেছিলেন আজ থেকে প্রায় ৭০ বছর আগে। ভারতের অন্য রাজ্যের তুলনায় কাশ্মীরের নিয়ম-কানুন আলাদা হওয়ায় তীব্র প্রতিবাদ জানিয়েছিলেন তিনি। এই সিদ্ধান্তের বিরুদ্ধে তৈরি করেছিলেন নতুন স্লোগান।

এবার দ্বিতীয় ইনিংস শুরু করার পরেই কাশ্মীরের বিশেষ সুবিধা প্রত্যাহার করেছে নরেন্দ্র মোদির সরকার। এরপর অভিন্ন দেওয়ানি বিধি প্রণয়নের চেষ্টা চলছে বলেও গেরুয়া শিবির সূত্রে খবর। এরই ফাঁকে নাগরিকদের খাদ্যের অধিকার সুনিশ্চিত করতে এক দেশ, এক রেশন কার্ড চালু করতে চলেছে কেন্দ্রীয় সরকার। সোমবার কথা ঘোষণা করলেন গ্রাহক পরিষেবা, খাদ্য ওগণবন্টন মন্ত্রকের মন্ত্রী রামবিলাস পাসোয়ান।

[আরও পড়ুন: ‘ক্ষমতা থাকলে আমার সঙ্গে বিতর্কে আসুন’, রাহুল-মমতাকে চ্যালেঞ্জ অমিতের ]

 

সোমবার পাটনায় সাংবাদিকদের মুখোমুখি হয়ে তিনি বলেন, এবছরের প্রথমদিন থেকেই প্রাথমিকভাবে দেশের ১২টি রাজ্যে এই ব্যবস্থা চালু হয়েছে। সেই রাজ্যগুলি হল অন্ধ্রপ্রদেশ, তেলেঙ্গানা, গুজরাট, মহারাষ্ট্র, হরিয়ানা, রাজস্থান, কর্ণাটক, কেরল, গোয়া, মধ্যপ্রদেশ, ত্রিপুরা ও ঝাড়খণ্ড। এই রাজ্যগুলির নাগরিকরা একে অপরের রাজ্যে গিয়ে নিজেদের রেশন কার্ড দেখিয়ে প্রাপ্য রেশন সংগ্রহ করতে পারবেন। কোনও সমস্যাই হবে না। আগামী জুন মাসের পয়লা তারিখ থেকে এ প্রকল্প শুরু হতে চলেছে গোটা দেশেই। এর ফলে দেশের নাগরিকরা যেকোনও প্রান্তের রেশন দোকান থেকে সরকার নির্ধারিত ভর্তুকি-সহ খাদ্যশস্য কিনতে পারবেন।

[আরও পড়ুন: সংসদের ক্যান্টিনে বাড়ছে খাবারের দাম, বদলাচ্ছে খাদ্যতালিকাও ]

 

প্রসঙ্গত উল্লেখ্য, গত বছরেই এই বিষয়ে কাজ শুরু করেছিল কেন্দ্রীয় খাদ্যমন্ত্রক। ডিসেম্বরে সেই কাজের বেশিরভাগ অংশই সম্পূর্ণ হয়ে যায়। এরপরই আগামী বছরের ৩০ জুন থেকে গোটা দেশে এই ব্যবস্থা চালু করা হবে বলে জানিয়েছিলেন রামবিলাস পাসোয়ান। এর ফলে কেরলের এক বাসিন্দা যদি কর্মসূত্রে গুজরাটে থাকেন, তাহলে সেখান থেকেই নিজের প্রাপ্য রেশন সামগ্রী কিনতে পারবেন।

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং