BREAKING NEWS

২৪  মাঘ  ১৪২৯  বৃহস্পতিবার ৯ ফেব্রুয়ারি ২০২৩ 

READ IN APP

Advertisement

ভূস্বর্গে ‘লোন উলফ’ হামলার ছক! পাকিস্তানি ভিসা নিয়ে কাশ্মীর থেকে বেপাত্তা ২০০ যুবক

Published by: Paramita Paul |    Posted: June 27, 2020 3:15 pm|    Updated: June 27, 2020 5:50 pm

over 200 youth from kashmir with Pakistan Visas goes missing

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: একটানা জঙ্গি দমন অভিযানে সাফল্য পেয়েছে যৌথবাহিনী। খতম হয়েছে একাধিক সন্ত্রাসবাদী সংগঠনের মাথা। কিন্তু কোনওভাবেই হার মানতে রাজি নয় পাকিস্তান ও সে দেশে ব্যাংয়ের ছাতার মতো গজিয়ে ওঠা জেহাদি সংগঠনগুলি। আর তাই এবার তাদের লক্ষ্য ভূস্বর্গের কিশোর ও যুবকরা। আচমকাই ২১৮ জন কাশ্মীরি যুবকের অন্তর্ধানে সিঁদুরে মেঘ দেখছে গোয়েন্দা সংস্থাগুলি। ইন্টেলিজেন্স রিপোর্ট বলছে, কাশ্মীর থেকে ২১৮ জন যুবক (Youth) বেপাত্তা হয়ছে। তাঁদের প্রত্যেকের কাছে পাকিস্তানের ভিসা ছিল বলে খবর।

গোয়েন্দা রিপোর্ট বলছে, ২০১৭ সালের জানুয়ারি থেকে ৩৯৯ জন কাশ্মীর যুবকের নামে পাকিস্তান ভিসা ইস্যু করেছে। গত কয়েক মাস ধরে তাঁদের মধ্যে ২১৮ জন বেপাত্তা। তাঁদের কোনও হদিশই মিলছে না। এরপরই গোয়েন্দা সংস্থাগুলিতে সতর্ক করা হয়েছে। শুরু হয়েছে  খোঁজ। শুক্রবার দুপুরে অনন্তনাগে সিআরপিএফ জওয়ানে উপর বাইক আরোহীর আচমকা হামলার পরই গোয়েন্দাদের ভ্রুকুটি আরও গভীর হয়েছে।

[আরও পড়ুন : গুরুগ্রামে ধেয়ে আসছে পঙ্গপালের দল, ভয়ে ঘরবন্দি স্থানীয়রা]

সীমান্তে কড়া নিরাপত্তার জেরে মাছি গলার জো নেই বলে দাবি করেছেন বিএসএফ (BSF) জওয়ানরা। গুড়িয়ে দেওয়া হয়েছে সীমান্ত লাগোয়া জঙ্গিদের লঞ্চপ্যাডও। এদিকে কাশ্মীর জুড়ে জঙ্গি নিধন চালাচ্ছে যৌথবাহিনী। ফলে সীমান্ত পেরিয়ে এসে ভূস্বর্গে ঘাঁটি গেড়ে বসা কার্যত অসম্ভব হয়ে পড়েছে। আবার সন্ত্রাসবাদী গোষ্ঠীদের সহযোগীদের ধরতেও বিস্তর ধরপাকড় চলছে। ফলে কাশ্মীরে বসে জঙ্গি প্রশিক্ষণ কিংবা মগজ ধোলাই কার্যত অসম্ভব হয়ে গিয়েছে। গোয়েন্দারা বলছেন, ভূস্বর্গে হামলা চালাতে একমাত্র ভরসা ‘লোন উলফ’। তাহলে কি সেই প্রশিক্ষণ দিতেই কাশ্মীর থেকে উড়িয়ে নিয়ে যাওয়া হল এই দুশো জনকে? সেই রহস্যের কিনারা করতে কার্যত ঘুম ছুটেছে গোয়েন্দা কর্তাদের।

[আরও পড়ুন : ‘অর্ধসত্য বলতে ওস্তাদ বিজেপি’, রাজীব গান্ধী ফাউন্ডেশনে চিনা ‘অনুদান’ ইস্যুতে পালটা চিদম্বরমের]

প্রসঙ্গত, গত কয়েক বছরে কাশ্মীরি যুবকদের সে দেশে নিয়ে গিয়ে হামলার প্রশিক্ষণ দিচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে। দেখা গিয়েছে, সে দেশ থেকে প্রশিক্ষণ নিয়ে রীতিমতো ভিসা-পাসপোর্ট নিয়ে এদেশে আসছে তাঁরা। গোয়েন্দা রি পোর্ট বলছে, ১৫ এপ্রিল এক এনকাউন্টারে খতম হয়েছে পাঁচজন। তাদের মধ্যে তিনজন ২০১৮ সালের এপ্রিল মাসে পাকিস্তান ঘুরে এসেছে। দিল্লির পাক হাই কমিশন থেকে তাঁদের জন্য ভিসা ইস্যু করা হয়েছে। গোয়েন্দারা বলছেন. লোকাল রেজিসটেন্স তৈরি করতে মরিয়া পাকিস্তান। আর তাই কাশ্মীরি যুবকদেরই নিশানা করছে ইসলামাবাদ।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে