৮ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ২৩ মে ২০১৯ 

BREAKING NEWS

Menu Logo নির্বাচন ‘১৯ দেশের রায় LIVE রাজ্যের ফলাফল LIVE বিধানসভা নির্বাচনের রায় মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার
নির্বাচন ‘১৯

৮ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৬  বৃহস্পতিবার ২৩ মে ২০১৯ 

BREAKING NEWS

মাসুদ আহমেদ, শ্রীনগর: উপত্যকায় নাশকতার বড়সড় ছক ভেস্তে দিল জম্মু-কাশ্মীর পুলিশ৷ বুধবার উপত্যকার বারামুলা জেলা থেকে পাক মদতপুষ্ট জঙ্গি সংগঠন লস্কর-ই-তইবার এক জঙ্গিকে পাকড়াও করল তাঁরা৷ ধৃত জঙ্গির নাম মহম্মদ ওয়াকার৷ সে পাকিস্তানের পাঞ্জাব প্রদেশের মিয়ানওয়ালির মিয়ানা মহল্লার বাসিন্দা বলে জানা গিয়েছে৷ পুলিশ সূত্রের খবর, উপত্যকা অথবা ভারতের অন্য অংশে পুলওয়ামার মতোই বড়সড় নাশকতার পরিকল্পনা ছক কষছিল সে৷ এবং নির্বাচন চলাকালীনই এই নাশকতার পরিকল্পনা করেছিল ধৃত জঙ্গি৷

[আরও পড়ুন: ১.৫ কোটির সাদা ঘোড়ায় চেপে প্রচার করছেন দিনমজুর প্রার্থী]

এদিন সাংবাদিক সম্মেলনে কাশ্মীর পুলিশের শীর্ষকর্তা আবদুল কায়ুম জানান, ২০১৭-র জুলাই মাসে ভারতে অনুপ্রবেশ করে ধৃত জঙ্গি মহম্মদ ওয়াকার৷ এবং এতদিন ধরে শ্রীনগরে আত্মগোপন করেছিল সে৷ তার মূল লক্ষ্য ছিল, প্রথমে বারামুলা জেলার যুবকদের মধ্যে সন্ত্রাসবাদের বিষ বাষ্প ছড়িয়ে দেওয়া৷ মগজধোলাই করে তাঁদের দিয়েই উপত্যকা বা দেশের অন্যপ্রান্তে বড়সড় নাশকতা চালানো৷ পুলিশ জানিয়েছে, ভারতে আসার আগে পাকিস্তানে লস্করের গোপন আস্তানায় মগজ ধোলাই করা হয় ওয়াকারের৷ সেদেশে ঘাপটি মেরে থাকা লস্করের শীর্ষ নেতারা তাকে বলে, জম্মু-কাশ্মীরের মানুষের উপর অকথ্য অত্যাচার চালাচ্ছে সেখানকার সরকার ও সেনা৷ মুসলিমদের নমাজ পড়তে বাধা দেওয়া হচ্ছে৷ মারধর করা হচ্ছে৷ এসবের প্রতিশোধ নিতে হবে৷

[আরও পড়ুন: দিল্লিতে ভোটের আগে ৬ বছরের পুরনো মামলায় বিপাকে কেজরি ]

জম্মু-কাশ্মীর পুলিশের ডিজি দিলবাগ সিং জানান, পাক মদতপুষ্ট জঙ্গি সংগঠনগুলি আগে যেভাবে কাশ্মীরি যুবকদের মগজধোলাই করে সন্ত্রাসবাদী গড়ে তুলত৷ গত বছর থেকে তা অনেকটাই কমেছে৷ ২০১৮-তে খতম হয়েছে ২৭২ জন জঙ্গি৷ পাকড়াও হয়েছে অনেকে৷ পুলওয়ামা কাণ্ডের পর জম্মু-কাশ্মীরে জঙ্গিদমনে সেনাকে পূর্ণ স্বাধীনতা দিয়েছে সরকার৷ এরপর থেকেই জোরকদমে উপত্যকায় সন্ত্রাসবাদের মূল উপড়ে ফেলার কাজ করে চলেছে সেনা৷ চলতি বছর, এখনও পর্যন্ত জম্মু-কাশ্মীরে খতম হয়েছে ৬৯ জন জঙ্গি৷ যাদের মধ্যে ৪১ জনই খতম হয়েছে ১৪ ফেব্রুয়ারির পুলওয়ামা কাণ্ডের পর৷ বুধবার সাংবাদিক সম্মেলনে এই বিষয়টি উল্লেখ করেন সেনার শীর্ষ আধিকারিক লেফটেন্যান্ট জেনারেল কেজেএস ধিলোঁ৷ সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে হুঁশিয়ারি দিয়ে তিনি জানান, ‘‘কোনও মতেই ভারতে সন্ত্রাসবাদকে বাড়তে দেবে না সেনা৷’’

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং