BREAKING NEWS

৯ আশ্বিন  ১৪২৭  মঙ্গলবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

স্বাস্থ্য সুরক্ষায় আপস নয়! CBSE’র পরীক্ষা বাতিলের দাবিতে সুপ্রিম কোর্টে অভিভাবকরা

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: June 13, 2020 9:40 am|    Updated: June 13, 2020 9:40 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: CBSE’র দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষা বাতিলের দাবিতে এবার সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ অভিভাবকরা। আগামী মাসেই দেশজুড়ে প্রায় ১৫ হাজার পরীক্ষাকেন্দ্রে CBSE’র দশম ও দ্বাদশ শ্রেণির পরীক্ষা হওয়ার কথা। দেশজুড়ে লক্ষাধিক পড়ুয়া পরীক্ষা দেবে। কিন্তু ক্রমবর্ধমান করোনার দাপটের মধ্যে পড়ুয়াদের কোনওভাবেই স্কুলে পাঠাতে রাজি নন অভিভাবকরা। এমনকী করোনা পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে না আসা পর্যন্ত বাচ্চাদের পরীক্ষা দিতে পাঠানোটাও নিরাপদ মনে করছেন না তাঁরা। সেকারণেই দিল্লির চার অভিভাবক কেন্দ্রীয় বোর্ডের এই পরীক্ষা বাতিলের দাবিতে সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছেন।

CBSE
সূত্রের খবর, গত ৯ জুন সর্বোচ্চ আদালতে একটি পিটিশন দাখিল করেছেন দিল্লির চার অভিভাবক। তাঁরা মনে করছেন, দেশে যেভাবে করোনা সংক্রমণ বাড়ছে তাতে এর মধ্যে পরীক্ষা নেওয়াটা অত্যন্ত ঝুঁকিপূর্ণ হবে। পরীক্ষা হলে সামাজিক দূরত্ব এবং স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলাটা একপ্রকার অসম্ভব। তাছাড়া, অধিকাংশ করোনা রোগীই উপসর্গহীন। তাই অনেক পড়ুয়া হয়তো পরীক্ষা দিতে গিয়ে নিজের অজান্তেই এই রোগের বাহকে পরিণত হবে। এবং তাঁদের থেকে লক্ষ লক্ষ মানুষ সংক্রমিত হবেন। দেশজুড়ে লক্ষ লক্ষ পড়ুয়ার জীবন এভাবে ঝুঁকির মধ্যে ফেলে দেওয়া ঠিক হবে না। তাছাড়া, এ বছর CBSE বোর্ডই বিদেশের মাটিতে ২৫০টি স্কুলের জন্য পরীক্ষা বাতিল ঘোষণা করেছে। ওই স্কুলগুলির পড়ুয়াদের ‘ইন্টারনাল অ্যাসেসমেন্টের’ মাধ্যমে পরের ক্লাসে পড়ার সুযোগ দেওয়া হবে। অভিভাকদের প্রশ্ন, বিদেশের স্কুলগুলিতে যদি এই সুযোগ দেওয়া হয়, তাহলে দেশের পড়ুয়ারা এই সুযোগ পাবে না কেন?

[আরও পড়ুন: দেশজুড়ে ফিরতে চলেছে লকডাউন? করোনা পরিস্থিতি নিয়ে মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে ফের বৈঠকে মোদি]

শিক্ষা না স্বাস্থ্য। দেশজুড়ে করোনা ভাইরাসের দাপটের মধ্যে এটিই লাখ টাকার প্রশ্ন হয়ে দাঁড়িয়েছে অভিভাবকদের কাছে। এই দোলাচলের মধ্যে আপাতত স্বাস্থ্য সুরক্ষাকেই প্রাধান্য দিচ্ছেন পড়ুয়াদের বাবা-মায়েরা। করোনা পরিস্থিতি পুরোপুরি নিয়ন্ত্রণে আসার আগে পড়ুয়ারা কোনও কারণে স্কুল যাক, চাইছেন না তাঁরা। সেজন্য প্রয়োজনে শিক্ষাবর্ষ বাতিল ঘোষণা করতেও আপত্তি নেই তাঁদের। সম্ভবত সেকারণেই সুপ্রিম কোর্টের দ্বারস্থ হয়েছেন অভিভাবকরা। এখন দেখার সুপ্রিম কোর্ট তাঁদের মামলা গ্রহণ করে কিনা।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement