BREAKING NEWS

১০  আশ্বিন  ১৪২৯  বৃহস্পতিবার ২৯ সেপ্টেম্বর ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

এবার নিশানায় সঞ্জয় রাউত, শিব সেনা সাংসদের বাড়িতে সিআরপিএফ নিয়ে হানা ইডির

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: July 31, 2022 9:41 am|    Updated: July 31, 2022 9:54 am

Patra Chawl land scam case: Enforcement Directorate carrying out searches at Shiv Sena leader Sanjay Raut's residence

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মহারাষ্ট্রে ক্ষমতা হারাতেই কেন্দ্রীয় এজেন্সির চাপে উদ্ধব পন্থী শিব সেনা (Shiv Sena) নেতা সঞ্জয় রাউত (Sanjay Raut)। জমি দুর্নীতি মামলায় এর আগেও রাউতকে সমন পাঠিয়েছিল এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট। এবার সোজা তাঁর বাড়িতে গিয়ে হানা দল ইডির একটি দল। সঙ্গে ছিলেন একাধিক সিআরপিএফের জওয়ানও।

পাত্র চাউল জমি দুর্নীতি মামলায় বেশ কিছুদিন ধরেই ইডির (ED) স্ক্যানারে আছেন সঞ্জয়। এর আগে তাঁকে, তাঁর স্ত্রী এবং ঘনিষ্ঠদের একাধিকবার নোটিস পাঠিয়েছে এনফোর্সমেন্ট ডিরেক্টরেট। এমনকী এর আগে সঞ্জয়ের স্ত্রী এবং ঘনিষ্ঠদের প্রায় ১২ কোটি টাকার সম্পত্তি বাজেয়াপ্তও করে ইডি। এর আগে মহারাষ্ট্রে একনাথ শিণ্ডে সরকারের শপথের পরদিনই টানা ১০ ঘণ্টা জিজ্ঞাসাবাদ করা হয় রাউতকে। যদিও শেষ দুটি সমনে তিনি ইডি দপ্তরে হাজিরা দেননি। সংসদে অধিবেশন থাকায় হাজিরা দেওয়া সম্ভত নয় বলে কেন্দ্রীয় এজেন্সিকে জানান শিব সেনা সাংসদ। তারপরই রবিবার সদলবলে ইডি আধিকারিকরা তাঁর ভান্ডুবের বাড়িতে হানা দেন। রাউত অবশ্য এই মুহূর্তে মুম্বইয়ের বাড়িতে নেই। আসলে ইডি সঞ্জয় রাউতকে জিজ্ঞাসাবাদ করতে চায়, সেকারণেই এই অভিযান।

[আরও পড়ুন: ‘গো ব্যাক জেপি নাড্ডা’, বিহারে নিজের কলেজে বিক্ষোভের মুখে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি]

সঞ্জয় রাউত বরাবর অভিযোগ করে আসছেন, তাঁর বিরুদ্ধে ওঠা সব অভিযোগ মিথ্যা। এই ধরনের কোনও দুর্নীতিতে তিনি যুক্ত নন। এদিনও টুইট করে শিব সেনা সাংসদ বলেছেন, “আমি বালাসাহেবের নামে শপথ করে বলতে পারি এখানে কোনও আর্থিক দুর্নীতি হয়নি। বালাসাহেব আমাদের লড়াই করতে শিখিয়েছেন, আমি লড়াই করে যাব।” 

[আরও পড়ুন: ঝাড়খণ্ডের কং বিধায়কদের গাড়িতে উদ্ধার ৪৯ লক্ষ, সরকার ফেলতে টাকা দিয়েছে BJP, দাবি হাই কম্যান্ডের]

বস্তুত, বিজেপির (BJP) বিরুদ্ধে দীর্ঘদিনের অভিযোগ কেন্দ্রীয় এজেন্সি ব্যবহার করে বিরোধীদের ভয় দেখাচ্ছে তারা। এমনকী, মহারাষ্ট্রের সরকারের পতনের পিছনেও ইডি-সিবিআইয়েরই (CBI) হাত দেখেন বিরোধী নেতারা। এর আগে মহা বিকাশ আগাড়ির (MVA) আরেক নেতা তথা এনসিপি সুপ্রিমো শরদ পওয়ারকেও নোটিস পাঠিয়েছে আয়কর বিভাগ। ২০০৪, ২০০৯, ২০১৪ এবং ২০২০ নির্বাচনের সময় পওয়ার যে হলফনামা দিয়েছেন, সেই হলফনামায় গরমিলের অভিযোগে তাঁকে নোটিস পাঠিয়েছে আয়কর দপ্তর (IT Department)।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে