BREAKING NEWS

১৪ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

PM Care-এর টাকায় কেনা ২০টি ভেন্টিলেটরের ১০টি অকেজো, রিপোর্ট হাসপাতালের

Published by: Paramita Paul |    Posted: July 26, 2020 6:01 pm|    Updated: July 26, 2020 6:14 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: PM Care তহবিলের টাকায় ২০টি ভেন্টিলেটর কিনেছিল চণ্ডিগড় (Chandigarh) প্রশাসন। যা করোনা (Covid positive) রোগীদের প্রয়োজনে ব্যবহার করার কথা। কিন্তু কুড়িটির মধ্যে ১০টি ভেন্টিলেটরই (Ventilators) যে রোগীদের ব্যবহারের উপযুক্ত নয়। এমনটাই জানিয়েছে শহরের PGIMER হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ। ফলে সেগুলি হাসপাতাল কর্তৃপক্ষ ফেরত পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এই ঘটনায় ব্যাপক বিতর্ক তৈরি হয়েছে। 

প্রসঙ্গত, গত মাসেই PM কেয়ার তহবিল থেকে ২,০০০ কোটি টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। এই টাকায় ৫০ হাজারটি ভেন্টিলেটর কেনার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। এই ভেন্টিলেটরগুলি (Ventilators বিভিন্ন রাজ্যে সরকার পরিচালিত হাসপাতালগুলিকে দেওয়া হবে। মেক ইন ইন্ডিয়ার (Make in India) আওতায় তৈরি ভেন্টিলেটার গুলো কেনা হয়েছিল বলে সূত্রের খবর। আর এই ‘মেক ইন ইন্ডিয়া’ (Make in India) প্রকল্পের আওতায় তৈরি ভেন্টিলেটরের মান নিয়ে অভিযোগ এই প্রথম নয়। এর আগে ঠিকমতো কাজ না করার অভিযোগে মুম্বইয়ের একটি হাসপাতালে ৮১টি ভেন্টিলেটর ফেরত পাঠিয়েছিল।

[আরও পড়ুন : ‘কোভ্যাক্সিনে’র প্রাথমিক পর্বের ট্রায়ালের ফলাফল আশাব্যঞ্জক! দাবি গবেষকদের]

 সম্প্রতি কেন্দ্রশাসিত অঞ্চল চণ্ডিগড়ে করোনা চিকিৎসার জন্য দুটি হাসপাতাল খোলা হয়েছে। এর মধ্যে সেক্টর-৪৮ এলাকায় যে কোভিড হাসপাতাল তৈরি করা হয়েছে সেটি গভর্নমেন্ট মেডিক্যাল কলেজ অ্যান্ড হাসপাতালের (GMCH) অধীন। এই দুই হাসপাতালের জন্য ২০টি ভেন্টিলেটর কেনে চণ্ডিগড় (Chandigarh) প্রশাসন। কিন্তু সেক্টর-৪৮ এলাকার হাসপাতাল এখনও শুরু হয়নি। ফলে GMCH আওতাধীন ওই হাসপাতালের জন্য বরাদ্দ ১০টি ভেন্টিলেটর পাঠানো হয়েছিল শহরের পোস্ট গ্রাজুয়েট ইন্সটিটিউট অফ মেডিক্যাল এডুকেশন অ্যান্ড রিসার্চ-এ (PGIMER)। কিন্তু সেই ভেন্টিলেটরগুলি রোগীদের জন্য উপযুক্ত নয় বলে PGIMER-এর এক আধিকারিক জানিয়েছেন। অভিযোগ, ‘এই ভেন্টিলেটরগুলি মানদণ্ডের পরীক্ষায় উত্তীর্ণ হতে পারেনি। এক এক ধরনের রোগীদের জন্য এক এক ধরনের অক্সিজেন প্রয়োজন হয়। কিন্তু এই সব ভেন্টিলেটরে ১০০ শতাংশ অক্সিজেন স্যাচুরেশন লেভেলের সুবিধা নেই।’

[আরও পড়ুন : অতিরিক্ত স্যানিটাইজার ব্যবহার করছেন? রয়েছে বিপদের হাতছানি! সাবধান করল স্বাস্থ্যমন্ত্রক]

এই প্রসঙ্গে গভর্নমেন্ট মেডিক্যাল কলেজ অ্যান্ড হাসপাতালের ডিরেক্টর-প্রিন্সিপ্যাল ডাক্তার বিএস চবন বলেন, “PGIMER থেকে রিপোর্ট পাওয়ার পরে বিষয়টি খতিয়ে দেখার নির্দেশ দিয়েছি।’ কিন্তু এই ভেন্টিলেটরের বিষয়টি প্রকাশ্যে আসতেই বিতর্ক দানা বেঁধেছে।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement