BREAKING NEWS

১৪ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

চলবে বাস, বিমান! কেমন হবে চতুর্থ দফার লকডাউনের রূপরেখা?

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: May 15, 2020 1:10 pm|    Updated: May 15, 2020 1:10 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ২০ লক্ষ টাকার আর্থিক প্যাকেজ ঘোষণার দিনই প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি (Narendra Modi) জানিয়ে দিয়েছিলেন দেশে চতুর্থ দফার লকডাউন (Lock Down 4.0) জারি হতে চলেছে। তবে, সেই লকডাউন হবে সম্পূর্ণ ভিন্ন রুপের। আগের তিন দফার লকডাউনের থেকে আলাদা। গত সোমবার মুখ্যমন্ত্রীদের সঙ্গে বৈঠকের সময় প্রধানমন্ত্রী পরবর্তী দফার লকডাউনের আগে রাজ্যগুলির পরামর্শ জানতে চান। মুখ্যমন্ত্রীদের নির্দেশ দেওয়া হয়, ১৫ মে অর্থাৎ আজ পর্যন্ত জেলাশাসকদের সাথে আলোচনা করে লকডাউন সংক্রান্ত রিপোর্ট জমা দিতে। সেই রিপোর্টের ভিত্তিতেই চতুর্থ দফার লকডাউনের রূপরেখা তৈরি করবে কেন্দ্র। তবে একটি সর্বভারতীয় সংবাদমাধ্যম সূত্রের খবর, পরবর্তী দফার লকডাউনের রূপরেখার একটি প্রাথমিক খসড়া তৈরি করে ফেলেছে সরকার।

স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের (Ministry of Home Affairs)  এক শীর্ষ আধিকারিক জানিয়েছেন, চতুর্থ দফায় গণপরিবহণ ব্যবস্থা যতটা সম্ভব সচল করার কথা ভাবছে সরকার। এই দফায় স্থানীয় স্তরে বাস চালানোর কথা ভাবা হচ্ছে। তবে সেটা সীমিত যাত্রী নিয়ে এবং রেড জোনের বাইরে। ট্যাক্সি, অ্যাপ ক্যাব, অটো চালানোর অনুমতি দেওয়া হতে পারে, সেটাও নির্দিষ্ট সংখ্যক যাত্রী নিয়ে। দেশের মধ্যে চালানো হতে পারে বিমান। বিশেষ কিছু ট্রেন চালাবে রেল। আন্তঃরাজ্য পরিবহণেরও অনুমতি মিলতে পারে, তবে সেক্ষেত্রে ই-পাস থাকা বাধ্যতামূলক। বিশেষজ্ঞরা মনে করছেন, এখনই বড় কোনও জমায়েত বা ধর্মীয় সমাবেশের অনুমতি দেওয়া হবে না। তবে কারখানার কাজ, নির্মাণ কাজ এবং রাস্তা তৈরির কাজে অনুমতি দেওয়া হতে পারে। নিত্যপ্রয়োজনীয় জিনিস ছাড়াও সব জিনিসের হোম ডেলিভারির অনুমতি দিতে পারে সরকার। তবে, রেড জোন বা কন্টেনমেন্ট জোন পুরোপুরি বন্ধ।

[আরও পড়ুন: ‘গরিব কল্যাণে নজর দিয়েছে ভারত সরকার’, বিশাল অঙ্কের সাহায্য ঘোষণা বিশ্ব ব্যাংকের]

এখনই স্কুল-কলেজ খুলছে না। শপিং মল বা সুপার মার্কেটের ব্যপারে এখনও কোনও ইঙ্গিত মেলেনি। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রকের ওই আধিকারিক জানিয়েছেন, বেশ কয়েকজন মুখ্যমন্ত্রী নিজেদের রাজ্যে, রেড জোন বা অরেঞ্জ জোন নিজেরা ঠিক করার অধিকার চেয়েছে। সেই অধিকার দেওয়া হতে পারে। পাশাপাশি হটস্পট এলাকায় কী কী খোলা থাকবে, সেটা ঠিক করার অধিকারও রাজ্যকে দেওয়া হতে পারে। অর্থাৎ, লকডাউনে সার্বিকভাবে আগের তুলনায় বেশি ক্ষমতা দেওয়া হবে রাজ্যগুলিকে। তবে এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত এখনও হয়নি।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement