২২  শ্রাবণ  ১৪২৯  মঙ্গলবার ৯ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

পাকিস্তানের ‘পরম বন্ধু’কে আলিঙ্গন কেন? প্রধানমন্ত্রীকে প্রশ্ন কংগ্রেসের

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: February 20, 2019 4:13 pm|    Updated: February 20, 2019 5:18 pm

PM Modi hugs MBS, Congress takes jibe

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বিমানবন্দরে সৌদির ক্রাউন প্রিন্সকে আলিঙ্গন কেন? পুলওয়ামার আঘাত কি ভুলে গেলেন? সৌদির যে যুবরাজ পাকিস্তানকে মোটা অঙ্কের অর্থসাহায্য করে এল, তাঁকেই প্রথাভেঙে আলিঙ্গন? এটাই কি পুলওয়ামার শহিদদের প্রতি আপনার সম্মান? সৌদির যুবরাজকে আলিঙ্গন নিয়ে প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিকে তীব্র কটাক্ষ কংগ্রেসের।

[আদালত অবমাননায় দোষী অনিল আম্বানি, ৪৫৩ কোটি টাকা জরিমানার নির্দেশ]

পুলওয়ামা হামলার রেশ এখনও কাটেনি। আঘাত এখনও দগদগে। এরই মধ্যে ভারতে এলেন সৌদির যুবরাজ মহম্মদ বিন সলমন। যিনি আবার পাকিস্তানের পরম বন্ধু। তিনি শুধু এলেন না, পেলেন রাজকীয় অভ্যর্থনাও। বিমানবন্দরে তাঁকে স্বাগত জানাতে হাজির প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। প্রথা ভেঙে সৌদির যুবরাজকে তাঁকে আলিঙ্গন করলেন মোদি। দু’দিন আগেই যিনি বলেছিলেন, “আমার বুকেও আগুন জ্বলছে, পুলওয়ামা হামলার যোগ্য জবাব পাবে সন্ত্রাসবাদে মদতকারীরা।” তিনিই আবার পাকিস্তানের পরম বন্ধুকে জড়িয়ে ধরলেন কীভাবে? তাহলে কি প্রধানমন্ত্রীর বুকের আগুন নিভে গেল। প্রশ্ন তুলতে শুরু করেছেন নেটিজেনরা। রাজনৈতিক ফায়দা তুলতে আসরে নেমেছে কংগ্রেসও।

[সুপ্রিম কোর্টে পিছোল রাজীব কুমারের আদালত অবমাননার শুনানি]

আসলে ভারতে আসার আগে পাকিস্তানেই ছিলেন সৌদির ক্রাউন প্রিন্স। সেখানে ‘সন্ত্রাসবাদ দমন’-এ পাকিস্তানের ভূমিকার ভূয়সী প্রশংসা করেছিলেন। এমনকি পাকিস্তানকে মোটা অঙ্কের অর্থসাহায্যও করেছিলেন। সেই টাকা পাকিস্তান সন্ত্রাস দমনে ব্যবহার করবে, না সন্ত্রাসবাদের মদত দিতে ব্যবহার করবে সেকথা সকলেরই জানা। কংগ্রেসের প্রশ্ন, পাকিস্তানের এহেন পরম বন্ধুকে কীভাবে আলিঙ্গন করলেন মোদি। টুইট করে কংগ্রেসের তরফে এই প্রশ্ন করা হয়। সঙ্গে পোস্ট করা হয় সৌদির যুবরাজকে আলিঙ্গন করার ভিডিওও। নেটিজেনদের একাংশও প্রশ্ন তুলছেন নরেন্দ্র মোদির এই ‘হাগপ্লোমেসি’ নিয়ে। তাদেরও দাবি, শহিদদের অসম্মান করছেন মোদি।

[সুপ্রিম কোর্টে পিছোল রাজীব কুমারের আদালত অবমাননার শুনানি]

তবে, ভারতে এসে সৌদির যুবরাজ বলছেন, “সন্ত্রাসবাদ আমাদের দু’দেশেরই শত্রু।” সন্ত্রাসদমনে ভারতকে সাহায্য করারও অঙ্গীকার করেছেন তিনি। মহম্মদ বিন সলমন আরও প্রতিশ্রুতি দিয়েছেন, প্রয়োজনে ভারতকে গোয়েন্দা তথ্য দিয়েও সাহায্য করবে সৌদি। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদিও দু’দেশের মধ্যে পারস্পারিক সহযোগিতা বাড়বে বলেই আশাবাদী। 

 

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে