Advertisement
Advertisement

বিপর্যয় মোকাবিলায় মহিলাদের আরও বেশি অংশগ্রহণ চান মোদি

উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং, রাষ্ট্রমন্ত্রী কিরেণ রিজুজু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন৷

PM Modi inaugurate Asian Ministerial Conference on Disaster Risk Reduction
Published by: Sangbad Pratidin Digital
  • Posted:November 4, 2016 2:19 pm
  • Updated:November 4, 2016 2:19 pm

নন্দিতা রায়: প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের মতো বিপদ হ্রাসের ক্ষেত্রে বিশ্বের সব দেশকে একযোগে কাজ করার জন্য আহ্বান জানালেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷ বিপর্যয়ের পরে এলাকা পুনর্গঠনে সুষ্ঠু পরিকাঠমো তৈরির ক্ষেত্রে ভারত অন্য দেশগুলির সঙ্গে কাঁধে কাঁধ মিলিয়ে কাজ করতে প্রস্তুত বলেও জানিয়েছেন তিনি৷ এরজন্য তিনি একটি আন্তর্জাতিক তহবিল গড়ারও দাবি তোলেন৷ বৃহস্পতিবার দিল্লিতে ‘এশিয়ান মিনিস্ট্রিরিয়াল কনফারেন্স ফর ডিজাস্টার রিস্ক রিডাকশন ২০১৬’-র উদ্বোধনে প্রধানমন্ত্রী বলেন, বিশ্বের যে কোনও জায়গায় বিপর্যয় মোকাবিলার ক্ষেত্রে দেশের মহাকাশ প্রযুক্তি ও সম্পদ ভাগ করে নিতেও ভারতের কোনও আপত্তি নেই৷ একসঙ্গে বিপর্যয় মোকাবিলা এবং পুনর্গঠনে আরও বেশি করে মহিলাদের যুক্ত করার কথা বলেছেন প্রধানমন্ত্রী৷

এদিন প্রধানমন্ত্রী বিপর্যয়ের বিপদ হ্রাসের জন্য দশ দফা নিদান দিয়েছেন৷ সেক্ষেত্রে তিনি বিপর্যয় মোকাবিলার কাজে মহিলাদের নেতৃত্ব বৃদ্ধি করার উপর বিশেষ গুরুত্ব আরোপ করেছেন৷ তিনি বলেন, “বিপর্যয় মোকাবিলার কাজে মহিলাদের উৎসাহিত করতে হবে৷ এই কাজে আমাদের অধিক সংখ্যক মহিলার প্রয়োজন যারা বিপর্যয় আক্রান্ত মহিলাদের পাশে দাঁড়াতে পারবেন৷” প্রধানমন্ত্রীর কথায়, যে কোনও বিপর্যয়ে মহিলারাই সবথেকে বেশি ক্ষতিগ্রস্ত হন৷ তবে, তার থেকে বেরিয়ে আসার জন্য তাঁদের মধ্যে অদ্ভুত শক্তিও রয়েছে৷ মহিলারা অনেক কিছু আগে থেকেই আন্দাজ করতে পারেন৷ তাই বিপর্যয় মোকাবিলার জন্য বেশি সংখ্যক মহিলা স্বেচ্ছাসেবকের প্রয়োজন৷ এর জন্য তাঁদের প্রশিক্ষণ দেওয়া জরুরি৷ বিপর্যয়ের সময় ক্ষতিগ্রস্ত মহিলাদের সহায়তার বিষয়টি একজন মহিলাই অনুধাবন করতে পারবেন৷ তিনি বলেন, শুধু বিপর্যয় মোকাবিলাই নয়, তার পরবর্তী অধ্যায়ে পুনর্গঠনের কাজেও মহিলাদের অংশগ্রহণ প্রয়োজন৷ আরও বেশি মহিলা ইঞ্জিনিয়ার, রাজমিস্ত্রি এবং স্থপতির প্রয়োজন, যাতে তাঁরা ধ্বংসস্তূপ থেকে নতুন শিল্পের জন্ম দিতে পারেন৷

Advertisement

প্রধানমন্ত্রী বলেন, গরিব মানুষ থেকে শুরু করে ক্ষুদ্র ও মাঝারি শিল্প, বহুজাতিক সংস্থা থেকে থেকে রাষ্ট্র –সকল ক্ষতিপূরণের আওতায় আনা প্রয়োজন৷ বিপর্যয়ের ঝুঁকি হ্রাস ও বিপর্যয় মোকাবিলা নিয়ে কাজ করার জন্য সব দেশের বিশ্ববিদ্যালয়ের মধ্যে একটা নেটওয়ার্ক তৈরির প্রস্তাবও দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী৷ বিপর্যয়ের বিপদ হ্রাসের জন্য প্রযুক্তিকে যথাযথভাবে ব্যবহার করা, সোশ্যাল মিডিয়া ও মোবাইল প্রযুক্তিকেও ব্যবহার করতে হবে বলেও তিনি জানিয়েছেন৷ বিপর্যয়ের ফলে অর্থনৈতিক উন্নতির ক্ষেত্রে যে প্রভাব পড়ে সেক্ষেত্রেও পদক্ষেপ করার ডাক দিয়েছেন তিনি৷ এ প্রসঙ্গে মোদি বলেন, “আমাদের এবিষয়ে ব্যাপকভাবে ভাবতে হবে, যাতে নতুন কিছু উদ্ভাবন হয়৷” বিপর্যয়ের বিপদ কমানোর ক্ষেত্রে ভারত যে কাজ করছে তার উদাহরণও তুলে ধরেন প্রধানমন্ত্রী৷ তিনি বলেন, “আমাদের কাছে এখন ভারত মহাসাগরে সুনামি ওয়ার্নিং দেবে এমন পুরো ব্যবস্থা চালু রয়েছে৷” এই সম্মেলনে এশিয়ার বিভিন্ন দেশ থেকে শুরু করে দেশের প্রতিটি রাজ্যের পুরসভা, কর্পোরেশন থেকেও প্রতিনিধিরা এসেছেন৷ প্রায় চার হাজার প্রতিনিধি উপস্থিত রয়েছেন সম্মেলনে৷ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী রাজনাথ সিং, রাষ্ট্রমন্ত্রী কিরেণ রিজুজু প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন৷

Advertisement

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ