BREAKING NEWS

২৬ শ্রাবণ  ১৪২৭  মঙ্গলবার ১১ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

নজরে ভোট! বিহার থেকেই পরিযায়ীদের কর্মসংস্থান প্রকল্পের সূচনা করলেন মোদি

Published by: Paramita Paul |    Posted: June 20, 2020 2:02 pm|    Updated: June 20, 2020 2:42 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: লকডাউনে সবচেয়ে বেশি ভোগান্তি পোহাতে হয়েছিল পরিযায়ী শ্রমিকদের (Migrant labourer)। এবার নিজের পরিবারের কাছে থেকেই তাঁদের জন্য কাজের সুযোগ করে দিল কেন্দ্র সরকার। শনিবার ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে ৫০ হাজার কোটি টাকার প্রধানমন্ত্রী গরিব রোজগার কল্যাণ যোজনা (Garib Kalyan Rojgar Yojana) প্রকল্পের উদ্বোধন করলেন নরেন্দ্র মোদি। উল্লেখযোগ্য বিষয়, বিহারের খাগাড়িয়া জেলা থেকে এই প্রকল্পের সূচনা করা হল। ওয়াকিবহাল মহলের মতে, মহামারী আবহেও বিজেপির নজর বিহার (BIhar) নির্বাচনের দিকে। তাই ভারচুয়াল জনসভা হোক কিংবা নয়া প্রকল্পের সূচনা, সবকিছুরই সূচনা করার জন্য বিহারকে বেছে নিচ্ছে বিজেপি।

 দু’দিন আগেই ‘গরিব কল্যাণ রোজগার যোজনা’র (Garib Kalyan Rojgar Yojana) বিষয়ে বিস্তারিত সাংবাদিক বৈঠক করেছিলেন অর্থমন্ত্রী নির্মলা সীতারমণ। এদিন সেই প্রকল্পের সূচনা করলেন প্রধানমন্ত্রী। তিনি জানান, পরিযায়ী শ্রমিকদের আবেগ এবং চাহিদার কথা বুঝেই কেন্দ্র সরকার এই প্রকল্প চালু করল। পরিযায়ী শ্রমিকদের উদ্দেশে মোদি বলেন, “এবার থেকে আপনারা নিজের ঘরের কাছেই কাজের সুযোগ পাবেন। গ্রামের উন্নয়নের অংশীদার হয়ে উঠবেন।” এদিন প্রধানমন্ত্রীর বক্তব্যে বারবার বিহারের ঐতিহ্য, বিহারবাসীর আত্মবলিদান-আত্মমর্যাদার কথা উঠে এসেছে। যা দেখে রাজনৈতিক মহল ভোটের গন্ধ পাচ্ছেন। প্রসঙ্গত, ভারচুয়াল জনসভাতেও কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহও পরিযায়ীদের ক্ষতে প্রলেপ দিতে অনেকটা সময় ব্যয় করেছিলেন।

প্রসঙ্গত, ২০১৯ সালের লোকসভায় চোখ ধাঁধানো ফল করলেও পরের বিধানসভা নির্বাচনগুলিতে তুলনামূলক খারাপ ফল করেছে ভারতীয় জনতা দল (BJP)। ফলে তাঁদের এখন পাখির চোখ বাংলা-বিহার। এবছরই বিহার বিধানসভার ভোট রয়েছে। বিপুল সংখ্যক শ্রমিক বিহার থেকে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে কাজে যান। লকডাউন (Lockdown) পর্বে নিজের রাজ্য বিহারে ফেরা ঘিরে বেশকিছু সমস্যার মুখে পড়তে হয়েছিল তাঁদের। ফলে বিহার সরকার ও কেন্দ্রের বিজেপির বিরুদ্ধে তাঁদের মধ্যে যে ক্ষোভ জমবে, তা বলাই বাহুল্য। সেই সমস্ত সমীকরণ মাথায় রেখেই মোদী সরকার বিহারে এই প্রকল্প সূচনা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে বলে মনে করছে রাজনৈতিক মহল।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement