BREAKING NEWS

১২ আশ্বিন  ১৪২৭  বুধবার ৩০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

বারাণসীতে বিপুল ভোটে জয়ী নরেন্দ্র মোদি, সমর্থকদের শুভেচ্ছা জানালেন মা হীরাবেন

Published by: Soumya Mukherjee |    Posted: May 23, 2019 3:41 pm|    Updated: May 23, 2019 3:41 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: বারাণসী থেকে নরেন্দ্র মোদি বিপুল ভোটে জিতলেন। এই খবর পেয়ে গুজরাটের গান্ধীনগরে তাঁর বাড়ির বাইরে ভিড় করেন প্রচুর বিজেপি সমর্থক। ছোট ছেলে পঙ্কজ মোদির সঙ্গে সেখানেই থাকেন নব্বইয়ের কোঠায় পা রাখা প্রধানমন্ত্রীর মা হীরাবেন। খবরটা গিয়ে পৌঁছয় তাঁর কাছেও। বয়সের ভারে ও শারীরিক অসুস্থতার কারণে সাধারণত বাড়ির বাইরে বের হন না তিনি। কিন্তু, বৃহস্পতিবার যেন ভেঙে গেল সেই আগল! গেটের সামনে জমে থাকা মানুষদের শুভেচ্ছা জানাতে বাড়ির অন্যদের সঙ্গে বারান্দায় বেরিয়ে আসেন তিনি। তারপর হাসিমুখে সবাইকে জোড়হাত করে প্রণাম জানান।

২০১৪ সালে ৫৬ শতাংশ ভোট পেয়ে বারাণসী ও ভদোদরা থেকে জিতে প্রধানমন্ত্রী হয়েছিলেন নরেন্দ্র মোদি। কিন্তু, এবার শুধু বারাণসী থেকেই দাঁড়িয়ে ছিলেন। বৃহস্পতিবার বেলা বাড়ার সঙ্গে সঙ্গে বারাণসীতে তাঁর প্রচুর ভোটে এগিয়ে যাওয়া খবর পেয়ে উচ্ছ্বাসে মেতে ওঠেন মোদি-ভক্তরা। তাতে ইন্ধন জোগায় দেশজুড়ে গেরুয়া সুনামির প্রভাব।

[আরও পড়ুন- কুলগামে এখনও জারি তল্লাশি, এনকাউন্টারে খতম ২ হিজবুল জঙ্গি]

লোকসভা নির্বাচনের দিন ঘোষণার পর থেকে বিরোধীদের অন্যতম লক্ষ্য ছিল বারাণসী আসনটি। নরেন্দ্র মোদিকে হারানোর জন্য সেখান থেকে প্রিয়াঙ্কা গান্ধীকে দাঁড় করানোর দাবিও তুলেছিলেন কংগ্রেস সমর্থকরা। যদিও শেষ পর্যন্ত তা আর হয়ে ওঠেনি। তার বদলে গতবারের প্রার্থী অজয় রাইকেই ফের ভোটে দাঁড় করায় কংগ্রেস।

[আরও পড়ুন- ইতিহাস গড়লেন ভাবনা,বায়ুসেনার যুদ্ধবিমানে চালকের আসনে প্রথম মহিলা]

তৃতীয় দফার ভোটের দিন গান্ধীনগরে এসে মা হীরাবেনকে প্রণাম করে আমেদাবাদে ভোট দিতে যান প্রধানমন্ত্রী। সেসময় ছেলের হাতে শাল, মিষ্টি এবং নারকেল তুলে দেন হীরাবেন। তাঁর সঙ্গে প্রায় ২০ মিনিট কথা বলার পর স্থানীয় মানুষের সঙ্গেও কথা বললেন নরেন্দ্র মোদি। ছোটদের আবদার মেনে সেলফিও তোলেন। পরে ভোট দিয়ে বেরিয়ে এসে বলেন, “সন্ত্রাসবাদীদের আইইডি-র চেয়েও অনেকগুণ বেশি শক্তিশালী ভোটার আইডি। সন্ত্রাসবাদ মোকাবিলায় গণতন্ত্রের অধিকার প্রয়োগের ক্ষেত্রে সচিত্র পরিচয়পত্রই হল সবচেয়ে মোক্ষম অস্ত্র।”

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement