২৩  শ্রাবণ  ১৪২৯  বুধবার ১০ আগস্ট ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

CAA’র প্রতিবাদ: ম্যাঙ্গালুরুর হাসপাতালে পুলিশি তাণ্ডবের ভিডিও ভাইরাল

Published by: Paramita Paul |    Posted: December 20, 2019 1:46 pm|    Updated: December 20, 2019 1:46 pm

Police throw tear gas shell at hospital in Mangalore

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: নাগরিকত্ব (সংশোধিত) আইনের (CAA) প্রতিবাদের আঁচে পুড়ছে গোটা দেশ। ম্যাঙ্গালুরুও ব্যতিক্রম নয়। ইতিমধ্যে দক্ষিণের এই শহরে মৃত্যু হয়েছে দুই বিক্ষোভকারীর। পুলিশের বিরুদ্ধে ফুঁসছেন বিক্ষোভকারীরা।এই পরিস্থিতিতেই সামনে এসেছে এক নতুন ভিডিও।ভাইরাল হওয়া সেই ভিডিওতে ম্যাঙ্গালুরুর এক হাসপাতালের ভিতরে পুলিশি তাণ্ডবের ছবি সামনে এসেছে। আর এর জেরে নতুন করে ক্ষোভ দানা বেঁধেছে।

নাগরিকত্ব (সংশোধিত) আইনের প্রতিবাদে বৃহস্পতিবার দিনভর উত্তপ্ত ছিল দেশের বিভিন্ন প্রান্ত। ম্যাঙ্গালুরুতেও বিক্ষোভকারীরা প্রতিবাদে শামিল হন। অভিযোগ, তাঁরা নাকি পুলিশকে লক্ষ্য করে পাথর ছুঁড়তে শুরু করে। এমনকী পুলিশকে মারধর করে বলেও অভিযোগ। এরপরই ‘আত্মরক্ষায়’ পাল্টা লাঠি চালায় পুলিশ। বিক্ষুব্ধ জনতাকে ছত্রভঙ্গ করতে কাঁদানে গ্যাসও ছোড়ে তাঁরা। বিক্ষোভকারীদের লক্ষ্য করে পুলিশ গুলি চালায় বলেও অভিযোগ। সেই গুলিতে জখম হন দুজন। বৃহস্পতিবার বিকেলে তাঁদের হাইল্যান্ড হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হয়। খবর পেয়ে হাসপাতালের বাইরে বিক্ষোভকারীরা জড়ো হয়। দুপক্ষের মধ্যে বচসা বেঁধে যায়। তাঁদের হটাতেই পুলিশ তৎপর হয়। অভিযোগ, হাসপাতালের পার্কিং এলাকা ও প্রবেশপথে কাঁদানে গ্যাস ছোড়ে পুলিশ।

[আরও পড়ুন: লখনউয়ের পর দক্ষিণের ম্যাঙ্গালুরু, CAA বিরোধী বিক্ষোভে পুলিশের গুলিতে মৃত ২]

এরপরই ছত্রভঙ্গ জনতা পুলিশি হামলা থেকে নিজেদের বাঁচাতে ম্যাঙ্গালুরুর হাসপাতালের ভিতরে আশ্রয় নেয়। এরপরই হাসপাতালে ঢুকে আসে পুলিশ বাহিনীও। বিক্ষোভকারীদের হটাতে কাঁদানে গ্যাস ছোড়ে পুলিশ। এমনকী বিক্ষোভকারীদের বদলে রোগীর পরিজনদের দিকেও লাঠি উঁচিয়ে তেড়ে যায় তাঁরা।সেখানকার সিসিটিভি ফুটেজে দেখা যায়, গ্যাস থেকে বাঁচতে হাসপাতালের ভিতর মুখে কাপড় জড়িয়ে দৌড়াচ্ছেন অনেকে। হাসপাতালের লবিতে লাঠি উঁচিয়ে তেড়ে যাচ্ছে পুলিশ। পুলিশ কর্মীদের একটা দলকে আইসিইউ-র দরজাতে লাথি চালাতেও দেখা যাচ্ছে সেই ভিডিয়োতে। অন্য আরেকটি ভিডিওতে দেখা যায়, বিক্ষোভকারীদের খোঁজে হাসপাতালের ওয়ার্ডে ওয়ার্ডে তল্লাশি চালাচ্ছে পুলিশ। এমনকী ওয়ার্ডের দরজায় লাথি মেরে খোলার চেষ্টা চালাচ্ছে পুলিশ।

[আরও পড়ুন:গতবারের ‘বয়কট’ বিতর্কের জের, জাতীয় পুরস্কার অনুষ্ঠানে থাকছেন না রাষ্ট্রপতি]

বৃহস্পতিবার দিনের শুরুতেই বেঙ্গালুরুতে CAA বিরোধী মিছিলের পর আটক করা হয় ইতিহাসবিদ রামচন্দ্র গুহকে। তার জেরে পরিস্থিতি আরও অগ্নিগর্ভ হয়ে ওঠায় জায়গায় জায়গায় কারফিউ জারি করা হয়। সন্ধের পর কারফিউ অগ্রাহ্য করেই ফের ম্যাঙ্গালুরুতে বিক্ষোভে শামিল হন অনেকে। সেখান থেকেই এমন অপ্রীতিকর পরিস্থিতি। যদিও পুলিশ প্রশাসনের দাবি, পরিস্থিতি হাতের বাইরে বেরিয়ে যেতে দেখেই গুলিচালনা হয়েছিল। তবে তাতে মৃত্যুর ঘটনা কার্যত দক্ষিণ ভারতে নাগরিকত্ব সংশোধনী আইনের প্রতিবাদের আগুনে ঘৃতাহুতি দিল। 

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে