BREAKING NEWS

১৫  আষাঢ়  ১৪২৯  বৃহস্পতিবার ৩০ জুন ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

Advertisement

‘সম্পর্ক থেকে যায়’, অজিতের প্রত্যাবর্তনে আরও মজবুত হল পারিবারিক বন্ধন

Published by: Subhamay Mandal |    Posted: November 27, 2019 12:23 pm|    Updated: November 27, 2019 12:23 pm

Power comes and goes, relation stays: Supriya Sule

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ভাঙন নাকি নতুন সূচনা! এনসিপি নেতা অজিত পওয়ারের শিবির বদলের পর দলের নেত্রী সুপ্রিয়া সুলের হোয়াটসঅ্যাপ স্টেটাস নিয়ে বিস্তর আলোচনা হয়েছিল রাজনৈতিক মহলে। রাজনীতির জন্য পরিবার ও দলের মধ্যে ভাঙনের ইঙ্গিত দিয়েছিলেন এনসিপি সাংসদ। কিন্তু মঙ্গলবার মহারাষ্ট্রে মহানাটকীয় পটপরিবর্তনের পর অজিত ‘দাদা’র প্রত্যাবর্তন আর বুধবার বিধানসভায় শপথগ্রহণের আগে তাঁকে সুপ্রিয়া সুলের জড়িয়ে ধরার দৃশ্য দলে অটুট বন্ধনের ইঙ্গিত দিয়েছে।

এনসিপি সুপ্রিমো শরদ পওয়ারের মেয়ে সুপ্রিয়া এদিন সংবাদ সংস্থা এএনআইকে জানিয়েছেন, দাদা অজিতের সঙ্গে সম্পর্কটা একইরকম আছে। তাঁর সঙ্গে সম্পর্কে কখনও চিড় ধরেনি। দলে সকলেরই একটা ভূমিকা রয়েছে, তা পালন করে দলকে এগিয়ে নিয়ে যাওয়াটা তাঁদের দায়িত্ব। শরদের ভাইপো অজিতও এদিন দলীয় স্বার্থকে অগ্রাধিকার দিয়েছেন। জানিয়েছেন, ‘আমি এনসিপির সঙ্গেই রয়েছি।’ এদিন বিধানসভায় নবনির্বাচিত বিধায়কদের শপথগ্রহণ অনুষ্ঠানে যেভাবে অজিতকে স্বাগত জানিয়ে জড়িয়ে ধরলেন সুপ্রিয়া, তাতে পারিবারিক ভাঙনের যাবতীয় জল্পনায় জল ঢেলে দিল। হয়তো নতুন সূচনা একেই বলে।

গত শনিবার সাতসকালে যেভাবে দলকে অন্ধকারে রেখে অজিত বিজেপির হাত ধরেছিলেন, সেদিন পরিবার ও দলের মধ্যে ভাঙনের ছবি স্পষ্ট হয়ে ওঠে। ভাইপোর সিদ্ধান্তকে ব্যক্তিগত আখ্যা দিলেও শরদ পওয়ার এ ঘটনায় যারপরনাই বিস্মিত ও ক্ষুব্ধই হয়েছিলেন। বৈঠক ডেকে পরিষদীয় নেতার পদ থেকে অজিতকে অপসারণ করার পরও দলের মধ্যে ক্ষোভ বাড়তে থাকে। কিন্তু মঙ্গলবার অজিত পওয়ারের উপমুখ্যমন্ত্রী পদ থেকে ইস্তফা দেওয়ার পর অনেক রাজনৈতিক বিশ্লেষকেরই মত, অজিতের ডিগবাজির নেপথ্যে কাকা শরদেরই হাত রয়েছে। মহারাষ্ট্রের রাজনীতিতে চাণক্য বলা হয় যাঁকে, সেই শরদ বিজেপিকে ঘোল খাইয়েছেন বলে গুঞ্জনও শোনা যায় সর্বত্র।

[আরও পড়ুন: ‘রাজ্য চালনার কথা স্বপ্নেও ভাবিনি’, বৃহস্পতিবার শপথ নেওয়ার আগে আবেগাপ্লুত উদ্ধব]

গোটা পর্বে পরিণতমনস্কতার পরিচয় রেখেছেন সুপ্রিয়া। প্রকাশ্যে কোনও তোপ না দেগে ধৈর্য ধরেছেন। বলেছেন, ‘ক্ষমতা যায়-আসে, সম্পর্ক থেকে যায়।’ সেই ছবিই দেখা গেল এদিন মহারাষ্ট্রের বিধানভবনে। সুপ্রিয়া-অজিত একে অপরকে জড়িয়ে ধরলেন। সু্প্রিয়া দাদার পা ছুঁয়ে প্রণামও করলেন। অজিত শপথগ্রহণের পর জানান, দল যা সিদ্ধান্ত নেবে, তা-ই মেনে নেব। অজিতের প্রত্যাবর্তনে আরও মজবুত হল দল ও পারিবারিক বন্ধন।

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে