BREAKING NEWS

২৭ আষাঢ়  ১৪২৭  রবিবার ১২ জুলাই ২০২০ 

Advertisement

ফেব্রুয়ারিতেই ভারত সফরে ট্রাম্প, কাটতে পারে বাণিজ্যিক চুক্তির জট

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: January 14, 2020 11:32 am|    Updated: January 14, 2020 11:33 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ফেব্রুয়ারি মাসেই ভারত সফরে আসতে পারেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প। ‘ইমপিচমেন্ট’ প্রক্রিয়া শুরু না হলে এই সফর একপ্রকার নিশ্চিত।হোয়াইট হাউস সূত্রে এমনটাই খবর। 

চলতি সপ্তাহেই নয়াদিল্লিতে আসছে মার্কিন নিরাপত্তা সংস্থার একটি দল। প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের সফরের নিরাপত্তা তথা ভ্রমণের নির্দিষ্ট রুট নিয়ে স্থানীয় পুলিশ ও প্রশাসনের সঙ্গে আলোচনা করে পরিস্থিতি খতিয়ে দেখবেন তাঁরা বলে জানা গিয়েছে। তাৎপর্যপূর্ণভাবে, গতবছর সাধারণতন্ত্র দিবসে প্রধান অতিথি হওয়ার আমন্ত্রণ গ্রহণ করেননি ট্রাম্প। বিশ্লেষকদের একাংশের মতে, আমেরিকায় আসন্ন নির্বাচনের কথা মাথায় রেখেই এই সফরে উদ্যোগী হয়েছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। 

[আরও পড়ুন: মোদির পথেই যোগী! নাগরিকত্বের জন্য ৩২ হাজার শরণার্থীকে চিহ্নিত করল উত্তরপ্রদেশ]

সূত্রের খবর, চলতি মাসের ৭ তারিখ প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির সঙ্গে ফোনে কথা হয় প্রেসিডেন্ট ট্রাম্পের। সেই সময় ট্রাম্পকে ভারত সফরে আসার আমন্ত্রণ জানান মোদি।ইতিমধ্যেই মার্কিন প্রেসিডেন্টের সঙ্গে আলোচনা সেরে ফেলেছেন আমেরিকায় নিযুক্ত ভারতের রাষ্ট্রদূত হর্ষবর্ধন শ্রীংলা। সব ঠিক থাকলে এবং ওই সময় সেনেটে ‘ইমপিচমেন্ট’ প্রক্রিয়া শুরু না হলে, ফেব্রুয়ারি মাসের শেষের দিকেই ভারতে আসছেন মার্কিন প্রেসিডেন্ট। 

অর্থনীতিবিদদের অনেকেই মনে করছেন এই সফরেই ভারত ও আমেরিকার মধ্যে বাণিজ্যিক চুক্তির জট কাটতে পারে। ২০১৯ সালের জুন মাসে ভারতের ‘প্রেফারেনশিয়াল এক্সপোর্ট’ স্ট্যাটাস বাতিল করে দেয় আমেরিকা। অর্থাৎ কিছু নির্দিষ্ট ভারতীয় পণ্যে শুল্কে ছাড় দেওয়া বন্ধ করে দেয় ট্রাম্প প্রশাসন। ওয়াশিংটনের অভিযোগ, মার্কিন পণ্যের জন্য নিজেদের বাজার পুরোপুরি খুলছে না নয়াদিল্লি। ট্রাম্পের সফরে সেই স্ট্যাটাস ফিরিয়ে দেওয়া হবে বলেই মনে করা হচ্ছে। এছাড়াও, মার্কিন অপরিশোধিত তেলের আমদানি বাড়াতে পারে ভারত। পাশাপাশি মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে নয়াদিল্লির বিনিয়োগ বাড়ানোর সম্ভাবনাও রয়েছে। এই সমস্ত বিষয়েই জট কাটবে বলে মনে করা হচ্ছে।         

[আরও পড়ুন: ‘মোল্লাতন্ত্র নিপাত যাক’, সর্বশক্তিমান খামেনেইর বিরুদ্ধে গর্জে উঠল ইরানি জনতা]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement