BREAKING NEWS

১ আশ্বিন  ১৪২৭  শুক্রবার ১৮ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

জঙ্গি দমনে এককাট্টা ভারত-আমেরিকার মধ্যে তথ্য আদানপ্রদান চুক্তি

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: June 3, 2016 8:57 am|    Updated: June 3, 2016 9:31 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: চলতি মাসের ৬ তারিখ চতুর্থবারের জন্য আমেরিকা সফরে যাচ্ছেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি৷ তার আগেই দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আরও জোরদার করার পথে এগোল দু’দেশ৷ বৃহস্পতিবার নয়াদিল্লিতে দুই দেশের মধ্যে একটি চুক্তি স্বাক্ষর হয়েছে৷ যার জেরে নিজের দেশের আইন-কানুন মেনে সন্ত্রাসবাদীদের বিষয়ে তথ্য আদানপ্রদানে আর কোনও বাধা থাকল না৷ একইসঙ্গে প্রধানমন্ত্রীর আসন্ন সফরে দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আরও দৃঢ় হবে বলে জানিয়েছেন আমেরিকায় নিযুক্ত ভারতীয় রাষ্ট্রদূত৷

বৃহস্পতিবার দিল্লিতে কেন্দ্রীয় স্বরাষ্ট্রসচিব রাজীব মহর্ষি ও মার্কিন রাষ্ট্রদূত রিচার্ড ভার্মার মধ্যে চুক্তি স্বাক্ষরিত হয়েছে৷ দু’দেশের সরকারি তদন্ত সংস্থাগুলি পরিচিত ও সন্দেহভাজন জঙ্গিদের সম্পর্কে প্রাপ্ত তথ্য পরস্পরকে সরবরাহ করবে৷ অবশ্য নিজেদের দেশের আইন মেনেই এ বিষয়ে পদক্ষেপ করা হবে৷ এই চুক্তির জেরে ভারত-মার্কিন সন্ত্রাসবাদ দমন অভিযানে সহযোগিতা অনেকটাই বেড়ে যাবে বলে মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল৷ গত এক বছর ধরে বারবার আলোচনার মাধ্যমে দু’পক্ষ তাদের মতপার্থক্য দূর করে গ্রহণযোগ্য সমাধানে পৌঁছেছে৷ এফবিআই-এর টেররিস্ট স্ক্রিনিং সেন্টারের (টিএসসি) মাধ্যমে তথ্য আদানপ্রদানের জন্য ইতিমধ্যেই প্রায় তিরিশটি দেশের সঙ্গে আমেরিকা চুক্তি করেছে৷ ভারতের তরফে মার্কিন কর্তৃপক্ষের সঙ্গে যোগাযোগ রাখবে ইন্টেলিজেন্স ব্যুরো৷

এদিকে, প্রধানমন্ত্রীকে মার্কিন সফরের আমন্ত্রণ জানিয়ে প্রেসিডেণ্ট বারাক ওবামা দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আরও মজবুত করতে চেয়েছেন বলে মন্তব্য করেছেন ভারতীয় রাষ্ট্রদূত অরুণ কে সিং৷ আগামী সোমবার অ্যান্ড্রুজে জয়েণ্ট এয়ারফোর্স বেসে নামবেন প্রধানমন্ত্রী মোদি৷ প্রায় দু’দিন তিনি আমেরিকায় কাটাবেন৷ মোদির সফরের খুঁটিনাটি এখনও চূড়ান্ত হয়নি৷ তবে জানা গিয়েছে, সোমবার বিকালে আর্লিংটন ন্যাশনাল সিমেট্রিতে মৃত সৈনিকদের স্মৃতিতে শ্রদ্ধা জানাবেন মোদি৷ সম্ভবত তিনি থাকবেন ব্লেয়ার হাউসে৷ যা মার্কিন প্রেসিডেণ্টের ব্যক্তিগত গেস্ট হাউস বলে পরিচিত৷ পরের দিন দুই রাষ্ট্রনেতার মধ্যে একান্ত ও প্রতিনিধিস্তরে সাক্ষাত্‍ হবে৷ সংবাদমাধ্যমের সামনে একসঙ্গে হাজির হবেন মোদি-ওবামা৷ এরপর মোদির সম্মানে ওবামার মধ্যাহভোজ৷ সন্ধ্যায় মার্কিন শিল্পপতিদের সঙ্গে কথা বলবেন প্রধানমন্ত্রী৷ তাঁদের মধ্যে থাকতে পারেন অ্যামাজনের সিইও জেফ বেজোস৷ লগ্নি টানার স্বার্থে ইউএস ইন্ডিয়া বিজনেস কাউন্সিলের বার্ষিক সভাতেও বক্তব্য রাখবেন মোদি৷

আগামী বুধবার মার্কিন কংগ্রেসের যৌথ অধিবেশনে ভাষণ দেওয়া ছাড়াও ক্যাপিটল হিলে তাঁর আরও চারটি গুরুত্বপূর্ণ কর্মসূচি রয়েছে৷ ডেমোক্র্যাট হিলারি ক্লিনটন বা রিপাবলিকান ডোনাল্ড ট্রাম্প, যিনিই পরবর্তী মার্কিন প্রেসিডেণ্ট হোন না কেন, সেনেট ও হাউস অফ রিপ্রেজেন্টেটিভস-এর গুরুত্বপূর্ণ সদস্যদের সহযোগিতায় দ্বিপাক্ষিক সম্পর্ক আরও উন্ন্ত হবে বলেই মনে করছে ওয়াকিবহাল মহল৷

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement