১১ মাঘ  ১৪২৬  শনিবার ২৫ জানুয়ারি ২০২০ 

BREAKING NEWS

Menu Logo মহানগর রাজ্য দেশ ওপার বাংলা বিদেশ খেলা বিনোদন লাইফস্টাইল এছাড়াও বাঁকা কথা ফটো গ্যালারি ভিডিও গ্যালারি ই-পেপার

১১ মাঘ  ১৪২৬  শনিবার ২৫ জানুয়ারি ২০২০ 

BREAKING NEWS

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: উন্নাওয়ের ঘটনার পর নড়েচড়ে বসল কেন্দ্র সরকার। হায়দরাবাদে মহিলা চিকিৎসককে নৃশংসভাবে গণধর্ষণ করে খুনের পর দেশজুড়ে নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ সংগঠিত হয়েছে। এর মাঝেই উন্নাওয়ের গণধর্ষণের শিকার এক যুবতীকে প্রকাশ্যে পুড়িয়ে মারার ঘটনা আগুনে ঘি ঢেলেছে। দেশের অনেক মানুষের মতো হায়দরাবাদের পথেই এর সমাধান চাইছেন উন্নাওয়ের নির্যাতিতার বাবা। এর ফলে প্রশ্ন উঠে যাচ্ছে সমাজে ন্যায় প্রতিষ্ঠার ক্ষেত্রে প্রশাসন ও বিচার বিভাগের ভূমিকা নিয়ে। পরিস্থিতি সামলাতে ও আইনের পথে মানুষের ক্ষোভ প্রশমনের জন্য ধর্ষকদের দ্রুত শাস্তি নিশ্চিত করতে তৎপর হচ্ছে কেন্দ্র।তাই ধর্ষণের তদন্ত দু’মাসের মধ্যে শেষ করতে সব রাজ্যের মুখ্যমন্ত্রী ও হাই কোর্টের বিচারপতিদের চিঠি দিচ্ছে। 

[আরও পড়ুন: ‘ভারতকে এখন ধর্ষণের রাজধানী হিসেবেই চেনে গোটা বিশ্ব’, বিতর্কিত মন্তব্য রাহুলের]

শনিবার কেন্দ্রীয় আইনমন্ত্রী রবিশংকর প্রসাদ বলেন, ‘ধর্ষণের তদন্ত মাত্র দু’মাসের মধ্যে শেষ করা উচিত বলে আবেদন জানিয়ে দেশের সব মুখ্যমন্ত্রী ও হাই কোর্টের প্রধান বিচারপতিকে চিঠি দিতে চলেছি। নাবালিকাদের বিরুদ্ধে অপরাধ-সহ ধর্ষণের মামলার তদন্ত দু’মাসের মধ্যে শেষ করতে হবে। এ বিষয়ে আমি মন্ত্রককে প্রয়োজনীয় নির্দেশও দিয়েছি।’

কেন্দ্রীয় সরকার যে ইতিমধ্যেই ফাস্ট ট্র‌্যাক আদালতের মাধ্যমে এ বিষয়ে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ নিয়েছে, সেকথাও জানিয়েছেন প্রসাদ। এপ্রসঙ্গে তিনি বলেন, ‘কেন্দ্র ও রাজ্য সরকার মোট ১০২৩টি ফাস্ট ট্র্যাক কোর্টের প্রস্তাব দিয়েছে। এর মধ্যে ৪০০টির বিষয়ে ইতিমধ্যেই সব প্রক্রিয়া চূড়ান্ত হয়ে গিয়েছে। আরও ১৬০টি আদালত শুরুর মুখে এবং আরও ৭০৪টি ফাস্ট ট্র্যাক কোর্ট গঠনের প্রক্রিয়া চলছে।’

[আরও পড়ুন: দু’বছরে খতম ১০৩ অপরাধী, মায়াবতীর কটাক্ষের পালটা উত্তরপ্রদেশ পুলিশের]

সারা দেশে যেভাবে নারী নির্যাতন ও ধর্ষণের ঘটনা ঘটেছে তাতে চাপ বাড়ছে কেন্দ্রীয় সরকারের উপর। ইতিমধ্যেই সংসদেও দেশের বিভিন্ন জায়গায় ধর্ষণের ঘটনার বিরুদ্ধে ক্ষোভের আঁচ পৌঁছয়ে গিয়েছে। বিরোধীরা তো বটেই, সরকারের শরিক দলও এই ধরনের ঘটনা নিয়ে কেন্দ্রের বিরুদ্ধে সরব হয়েছে। শনিবারও উত্তরপ্রদেশ ও কেন্দ্রে বিজেপির শরিক আপনা দল নারী নির্যাতনের বিরুদ্ধে কেন্দ্র সরকারকে আক্রমণ করছে। আপনা দলের সাংসদ অনুপ্রিয়া প্যাটেল বলেছেন, ‘মহিলাদের সুরক্ষার দিকে কখনও কোনও রাজ্য বা কেন্দ্রীয় সরকার অগ্রাধিকার দেয়নি। আমাদের রাজনৈতিক মতপার্থক্যের ঊর্ধ্বে উঠে এই নিয়ে কাজ করা দরকার।’

আরও পড়ুন

আরও পড়ুন

ট্রেন্ডিং