Advertisement
Advertisement

সলমনের মন্তব্যের প্রতিবাদে উত্তাল রাজস্থান, সিনেমা হলে ভাঙচুর হিন্দু সংগঠনের

পুড়ল 'টাইগার জিন্দা হ্যায়'-র পোস্টার।

Protesters vandalize Tiger Zinda Hai posters at a cinema hall in Jaipur
Published by: Sangbad Pratidin Digital
  • Posted:December 22, 2017 9:05 am
  • Updated:December 22, 2017 4:47 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: শুক্রবার দেশ জুড়ে মুক্তি পেল সলমন খানের বিগ বাজেট ফিল্ম ‘টাইগার জিন্দা হ্যায়’। কিন্তু শুরুতেই হিন্দু সংগঠনের রোষের মুখে পড়তে হল সলমন খানকে। রাজস্থানে ছবির প্রদর্শনী নিয়ে বিতর্ক এমনই তুঙ্গে ওঠে যে সিনেমা হলে ভাঙচুর চালাল সংগঠনের সদস্যরা।

এদিন সকালে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে রাজস্থানের বিখ্যাত রাজ মন্দির প্রেক্ষাগৃহ। বাল্মিকী সম্প্রদায়ের অভিযোগ, সম্প্রতি এক রিয়ালিটি টিভি শোয়ে তাঁদের সম্প্রদায়ের বিরুদ্ধে অশালীন মন্তব্য করেছেন বলিউড অভিনেতা। একই অভিযোগ তোলা হয় অভিনেত্রী শিল্পা শেট্টির বিরুদ্ধেও। আর তাই রাজ মন্দিরে ‘টাইগার জিন্দা হ্যায়’ চলতে দেওয়া হবে না বলে সরব হয় বাল্মিকী সংগঠন। সলমন-ক্যাটরিনার ছবির পোস্টারে আগুন লাগিয়ে দেওয়া হয়। ভাঙচুর চালানো হয় সিনেমা হলেও।

Advertisement

[রাম-সীতার নামে ছবির চরিত্র কেন, বিক্ষোভ হিন্দু জাগরণ মঞ্চের]

সলমন ও ক্যাটরিনা নিজেদের ছবির প্রচারের জন্য সম্প্রতি একটি ডান্স রিয়্যালিটি শোয়ে হাজির হয়েছিলেন। সেখানেই দাবাং খান বাল্মিকী সংগঠনকে উদ্দেশ্য করে ‘ভাঙ্গি’ বলে একটি শব্দ ব্যবহার করেছিলেন। যার মাধ্যমে গোটা সম্প্রদায়কে অসম্মান করা হয়েছে বলে অভিযোগ। শুক্রবার সকালে তথ্যপ্রযুক্তি মন্ত্রক এবং দিল্লি ও মুম্বইয়ের পুলিশ কমিশনারের থেকে সলমন ও শিল্পীর মন্তব্যের সাফাই চেয়েছে জাতীয় তফসিলি কমিশন।

Advertisement

[কেমন হল ‘টাইগার’ সলমনের প্রত্যাবর্তন, দর্শকদের মন জয় করল কি?]

ইতিহাসের প্রেক্ষাপটে তৈরি সঞ্জয় লীলা বনশালির ছবি ‘পদ্মাবতী’ নিয়েও উত্তাল হয়েছিল রাজস্থান-সহ গোটা দেশ। বিভিন্ন হিন্দু সংগঠনগুলির অভিযোগ ছিল, ছবিতে ইতিহাসের বিকৃত ঘটানো হয়েছে। ছবির মুক্তি রুখে দিতে লাগাতার প্রতিবাদ চালায় তারা। যার জেরে শেষমেশ পিছিয়ে দেওয়া হয় রণবীর-দীপিকার ছবির মুক্তি। এবার হিন্দু সংগঠনের রোষের মুখে সলমনের ছবি। শুধু রাজস্থানেই নয়, এর আগে মহারাষ্ট্র নবনির্মাণ সেনার (এমএনএস) হুমকি পেয়েছে এই ছবি। উগ্র হিন্দু সংগঠনটির দাবি, সলমন ও ক্যাটরিনার ‘টাইগার জিন্দা হ্যায়’ নয়, মহারাষ্ট্রের সিনেমা হলগুলিতে প্রাইম টাইমে দেখাতে হবে মারাঠি সিনেমা ‘দেবা’। আর সেই দাবিতেই এমএনএস ফিল্ম বিভাগের প্রধান অমেয় খোপকারের হুমকি দেন, যশ রাজ ফিল্মস তাঁদের দাবি না মানলে, কোনওদিন মুম্বইতে কোনও সিনেমার শুটিং করতে দেবে না সেনা। এবার ‘এক থা টাইগার’-এর সিক্যুয়েল নিয়েও দুই রাজ্যে তৈরি হল তীব্র জটিলতা।

[বিনামূল্যে দেওয়া হোক স্যানিটারি ন্যাপকিন, আরজি ‘প্যাডম্যান’ অক্ষয়ের]

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ