BREAKING NEWS

২০ জ্যৈষ্ঠ  ১৪২৭  বুধবার ৩ জুন ২০২০ 

Advertisement

অশান্তির জেরে বাপের বাড়িতে আশ্রয় তরুণীর, খুন হতে হল মায়ের হাতেই

Published by: Tiyasha Sarkar |    Posted: May 15, 2019 5:09 pm|    Updated: May 15, 2019 5:10 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: দাম্পত্য জীবনে সুখী হয়নি মেয়ে। বিয়ের বছর ঘুরতে না ঘুরতেই ফিরে এসেছে বাপের বাড়িতে। বুঝিয়ে শুনিয়ে তাঁকে শ্বশুরবাড়িতে ফেরানোর চেষ্টায় কোনও খামতি রাখেননি বাবা, মা। তাতেও কোনও ফল হয়নি। উলটে দাম্পত্য জীবনের সমস্যার জন্য বাবা, মাকেই দায়ী করতে শুরু করেছিল মেয়ে। এর জেরে ক্রমেই মা-মেয়ের সম্পর্কের তিক্ততা বাড়তে শুরু করে। সেই তিক্ততার পরিণতি হল ভয়ংকর। ঘরোয়া বিবাদের জেরে মেয়েকে খুনের অভিযোগ উঠল মায়ের বিরুদ্ধে। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে মহারাষ্ট্রের পুণেতে। ইতিমধ্যেই অভিযুক্ত সঞ্জীবনী বোভাতেকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

[আরও পড়ুন: ‘বিজেপি নয়, সহানুভূতি কুড়োতে তৃণমূলই মূর্তি ভেঙেছে’, বিস্ফোরক অমিত শাহ]

পুলিশ সূত্রে খবর, পুণের বাসিন্দা বছর উনিশের রুতুজা বোভাতে। সূত্রের খবর, বছর খানেক আগে ভিনধর্মের এক যুবককে বিয়ে করেন ওই তরুণী। প্রথমে পরিবারের তরফে তাঁদের বিয়ে মেনে নিতে রাজি না হলেও, পরে মেনে নিতে বাধ্য হয়। কিন্তু, কয়েকমাস কাটতে না কাটতেই স্বামীর সঙ্গে অশান্তি শুরু হয় রুতুজার। বাধ্য হয়ে বাপের বাড়িতে ফিরে যান ওই তরুণী। এরপর ওই তরুণীর বাবা, মা একাধিকবার মেয়ে ও জামাইয়ের সম্পর্ক স্বাভাবিক করার চেষ্টা করেন। কিন্তু, সেই সময় রুতুজাকে ফিরিয়ে নিতে রাজি হননি তাঁর স্বামী।

এরই মাঝে হঠাৎ স্বামীর বিরুদ্ধে ধর্ষণের অভিযোগ তুলে পুলিশের দ্বারস্থ হন রুতুজা। তাঁর অভিযোগের ভিত্তিতে স্বামীকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। কিছুদিনের মধ্যে স্বামীর সঙ্গে অশান্তি মিটিয়ে সংসারে ফিরে যাওয়ার ইচ্ছাপ্রকাশ করেন তরুণী। বাবা, মায়ের কাছে অনুরোধ করতে শুরু করেন তাঁর বিবাহিত জীবনের সমস্যা মিটিয়ে দেওয়ার জন্য। মেয়ের সুখের কথা চিন্তা করে ফের জামাইয়ের সঙ্গে কথা বলেন রুতুজার বাবা ও মা। মেয়েকে ফিরিয়ে নিলে মামলা তুলে নেওয়ার আশ্বাসও দেন তাঁরা। কিন্তু তাঁদের কথায় কর্ণপাত করেনি রুতুজার স্বামী।

[আরও পড়ুন: ‘বিজেপি নয়, সহানুভূতি কুড়োতে তৃণমূলই মূর্তি ভেঙেছে’, বিস্ফোরক অমিত শাহ]

এরপর থেকেই দাম্পত্য জীবনের অশান্তির জন্য বাবা, মাকে দায়ী করতে শুরু করেন রুতুজা। তিনি অভিযোগ করতে থাকেন,  কোনওদিন তাঁর ভাঙা সম্পর্ক জোড়া লাগানোর চেষ্টাই করেনি তাঁর বাবা, মা। সেই কারণেই তাঁর বিবাহিত জীবনে এই বিপর্যয়। বেশ কয়েকদিন ধরেই এই নিয়ে মায়ের সঙ্গে অশান্তি চলছিল রুতুজার। বুধবার সকালে ফের তাঁদের মধ্যে কথা কাটাকাটি শুরু হয়। অশান্তি চরমে উঠতে রাগের বশে পাথর দিয়ে মেয়ের মাথায় আঘাত করেন সঞ্জিবনী। ঘটনাস্থলেই মৃত্যু হয় রুতুজার। এরপরই মেয়েকে খুনের অভিযোগে ওই মহিলাকে গ্রেপ্তার করে পুলিশ। ভারতীয় দন্ডবিধির একাধিক ধারায় তাঁর বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করা হয়েছে। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement