BREAKING NEWS

১২ কার্তিক  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ২৯ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

কংগ্রেস ক্ষমতায় এলে ‘কালা কানুন’ বাতিল হবে, পাঞ্জাবে কৃষক বিক্ষোভে বললেন রাহুল

Published by: Paramita Paul |    Posted: October 4, 2020 4:14 pm|    Updated: October 4, 2020 8:45 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: কথা রাখলেন রাহুল গান্ধী (Rahul Gandhi)। প্রতিশ্রুতি মতোই পাঞ্জাবে কৃষি বিল (Farm Bill 2020) বিরোধী  আন্দোলনে যোগ দিলেন তিনি। একইসঙ্গে আরও এক প্রতিশ্রুতি দিয়ে রাখলেন কংগ্রেস সাংসদ তথা দলের প্রাক্তন সভাপতি। পাঞ্জাবে মিছিল শুরুর আগেই রাহুলের প্রতিশ্রুতি, “কেন্দ্রে ক্ষমতায় এলে এই কালো আইন প্রত্যাহার করবে কংগ্রেস।” 

রবিবার দুপুর সাড়ে বারোটা নাগাদ পাঞ্জাবে পৌঁছন রাহুল। এরপর চাষি ও আন্দোলকারীদের উদ্দেশে বক্তব্য রাখেন তিনি। বলেন, “ন্যূনতম সহায়ক মূল্য, সরকারি সংস্থার ফসল কেনা ও খুচরো বাজার-কৃষির তিন স্তম্ভ। বিজেপির একমাত্র লক্ষ্য ন্যূনতম সহায়ক মূল্য ও সরকারি সংস্থার ফসল কেনা ক্ষমতা নষ্ট করে দেওয়া। কিন্তু কংগ্রেস তা করতে দেবে না।” এরপরই এই আইন প্রত্যাহারের আশ্বাস দেন রাহুল। বলেন, “কথা দিচ্ছি, কংগ্রেস কেন্দ্রে ক্ষমতায় এলে এই কালো কানুন প্রত্যাহার করবে। ততদিন নরেন্দ্র মোদির সরকার যাতে এই আইন কার্যকর করতে না পারে, তার জন্য লড়াই চলবে।” প্রসঙ্গত, এদিন পাঞ্জাবে তিনদিনের ট্রাক্টর যাত্রার উদ্বোধন করলেন রাহুল। তিনি নিজেও এদিন সেই মিছিলে হাঁটলেন। সঙ্গে ছিলেন পাঞ্জাবের মুখ্যমন্ত্রী ক্যাপ্টেন অমরিন্দর সিংও। 

[আরও পড়ুন: কোথায় নারী নিরাপত্তা? নাবালিকাকে ধর্ষণ করে নেটদুনিয়ায় ছড়িয়ে দেওয়া হল ভিডিও]

প্রসঙ্গত, সদ্য সমাপ্ত বাদল অধিবেশনে তিনটি কৃষি বিল পাশ করেছে মোদি সরকার। সরকারের দাবি, যুগান্তকারী এই সংস্কারগুলি দেশেরর কৃষকদের আত্মনির্ভর করবে। মধ্যস্বত্বভোগীদের দূরে রাখবে। কিন্তু সে কথা মানতে নারাজ বিরোধীরা। তাঁদের দাবি, দেশের কৃষকদের মৃত্যু পরোয়ানা এই বিল। এর ফলে চাষিরদের পরিস্থিতি আরও খারাপ হবে। এর প্রতিবাদে দেশের বিভিন্ন প্রান্তে আন্দোলন শুরু হয়েছে। পাঞ্জাবে তিনদিনের খেতি বাঁচাও আন্দোলন চলছে।  এদিন সেই আন্দোলনের সুরপ বেঁধে দিলেন রাহুল গান্ধী। 

[আরও পড়ুন: CBI তদন্ত চায় না হাথরাসে নির্যাতিতার পরিবার, বয়ান রেকর্ড করল SIT]

এদিকে, অবশেষে প্রিয়াঙ্কা এবং রাহুলের গান্ধীর কাছে ক্ষমা চাইল উত্তরপ্রদেশ পুলিশ। পাশাপাশি দু’‌জনকে হেনস্থার ঘটনার তদন্তের নির্দেশও দেওয়া হয়েছে।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement