১৪ আশ্বিন  ১৪২৭  বৃহস্পতিবার ১ অক্টোবর ২০২০ 

Advertisement

রাহুল নেতা হলে ২০২৪ লোকসভাতেও জিতবে না কংগ্রেস, বলছেন আরেক বিক্ষুব্ধ নেতা

Published by: Subhajit Mandal |    Posted: August 29, 2020 9:39 am|    Updated: August 29, 2020 9:39 am

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: গুলাম নবি আজাদ, কপিল সিব্বলদের (Kapil Sibbal) পর এবার কংগ্রেসের আরও এক বিক্ষুব্ধ নেতা বিস্ফোরণ ঘটালেন। কংগ্রেসের বিদ্রোহী ২৩ জনের মধ্যে অন্যতম ওই নেতা বলছেন, রাহুল গান্ধী (Rahul Gandhi) যদি ২০২৪ লোকসভা নির্বাচনেও কংগ্রেসের সভাপতি থাকেন, তাহলে দলের জেতার কোনও সম্ভাবনা নেই। ২০১৪ এবং ২০১৯ নির্বাচন থেকে শিক্ষা নেওয়া উচিত কংগ্রেসের।

দিনকয়েক আগে দলের নেতৃত্বে বদল চেয়ে যে ২৩ জন নেতা সোনিয়া গান্ধীকে (Sonia Gandhi) চিঠি লিখেছিলেন, নাম জানাতে অনিচ্ছুক এই নেতাও তাঁদের মধ্যে ছিলেন। তিনি বলছেন,”আমরা এমন কোনও জায়গায় নেই যাতে বলা যায়, ২০২৪ লোকসভায় রাহুলের নেতৃত্বে কংগ্রেস ৪০০ আসন জিতবে। আমাদের বুঝতে হবে ২০১৪ এবং ২০১৯ লোকসভা নির্বাচনে আমরা যথেষ্ট আসন পায়নি। শিমলা থেকে নাগপুর পর্যন্ত মাত্র ১৬টি আসন পেয়েছে কংগ্রেস। তার মধ্যেও আবার আটটা শুধু পাঞ্জাবেই। আসলে আজ বাস্তবের মাটি অন্য কথা বলছে। দল যদি কোনও বৈঠক ডাকে তাহলে আমি আমার মতামত জানাতে চাই।”

[আরও পড়ুন: কাশ্মীরে সন্ত্রাস দমনে বড় সাফল্য, ২৪ ঘণ্টায় নিকেশ সাত জঙ্গি]

উল্লেখ্য, গত কয়েকমাস ধরেই রাহুলকে দলের সভাপতি পদে ফেরানোর দাবিতে আওয়াজ উঠছে কংগ্রেসের অন্দরে। একাধিকবার দলের নেতারা প্রাক্তন সভাপতিকে অনুরোধও করেছেন, দায়িত্ব ফিরিয়ে নিতে। বস্তুত দলের সিংহভাগ সমর্থকই এখনও রাহুলকেই নেতা হিসেবে পছন্দ করেন। কিন্তু যে ২৩ জন নেতা নেতৃত্বে বদল চেয়ে চিঠি লিখেছিলেন, তাঁরা অন্তত গান্ধী পরিবারের কাউকে আর সভাপতি পদে চাইছেন না। এই বিক্ষুব্ধ নেতা সেটাই স্পষ্ট করে দিলেন। তাঁর সাফ কথা, এটা কোনও ব্যক্তিগত লড়াই নয়। কংগ্রেসের (Congress) উচিত ভারতের সংবিধান বাঁচানোর জন্য বিজেপির শক্ত বিকল্প হিসেবে উঠে আসা।

[আরও পড়ুন: সোশ্যাল মিডিয়াতে বিতর্কিত পোস্টের জের, উত্তরপ্রদেশে গ্রেপ্তার PFI-এর সদস্য]

উল্লেখ্য, ২৩ জন বিক্ষুব্ধ নেতার চিঠির পরও কংগ্রেসের নেতৃত্বের এখনও কোনও বদল হয়নি। দলের অন্তর্বর্তীকালীন সভানেত্রী পদে রেখে দেওয়া হয়েছে সোনিয়া গান্ধীকেই। যদিও শোনা যাচ্ছে, মাস ছ’য়েকের মধ্যেই অভ্যন্তরীণ নির্বাচনের আয়োজন করতে চায় দল।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement