BREAKING NEWS

২৬ শ্রাবণ  ১৪২৭  বুধবার ১২ আগস্ট ২০২০ 

Advertisement

রাজনীতির দুনিয়ায় ফের নক্ষত্রপতন, প্রয়াত রাজ্যসভার সাংসদ অমর সিং

Published by: Paramita Paul |    Posted: August 1, 2020 4:56 pm|    Updated: August 1, 2020 6:21 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: প্রয়াত রাজ্যসভার সাংসদ অমর সিং (Amar Singh)। ২০১৩ সাল থেকে কিডনির অসুখে ভুগছিলেন তিনি। দীর্ঘদিন ধরে বিদেশেই চিকিৎসাধীন ছিলেন সমাজবাদি পার্টির (SP) এই প্রাক্তন নেতা। গতকাল থেকেই তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হতে থাকে। শনিবার দুপুরে তাঁর মৃত্যুর খবর মেলে। বয়স হয়েছিল ৬৪ বছর। 

গত সাত মাস ধরেই সমাজবাদি পার্টির  বর্ষীয়ান নেতা সিঙ্গাপুরের (Singapore) মাউন্ট এলিজাবেথ হাসপাতালে ভরতি ছিলেন। সেখানে তাঁর কিডনি ট্রান্সপ্লান্ট হয়। কিন্তু তারপরেও সুস্থ হননি। বরং সময়ের সঙ্গে সঙ্গে তাঁর শারীরিক অবস্থার আরও অবনতি হচ্ছিল।  পরিবার সূত্রে খবর, শুক্রবার সকাল থেকেই তাঁর শারীরিক অবস্থার অবনতি হচ্ছিল। শেষপর্যন্ত আইসিইউতে রাখা হয়েছিল তাঁকে। শনিবার দুপুরে তিনি শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। 

amar singh

এদিন সকালেও অমর সিং নিজের টুইটার হ্যান্ডেলে স্বাধীনতা সংগ্রামী বালগঙ্গাধর তিলকের মৃত্যুবার্ষিকীতে শোকজ্ঞাপন করেন। এমনকী ইদেরও শুভেচ্ছা জানান তিনি। এর কয়েকঘণ্টার মধ্যে তাঁর মৃত্যুতে স্তব্ধ তাঁর অনুগামীরা। প্রসঙ্গত, এর আগেও তাঁর মৃত্যু নিয়ে গুজব ছড়িয়েছিল।ষ সেইসময় নিজেই টুইট করে গুজব উড়িয়ে বলেছিলেন, “টাইগার আভি জিন্দা হ্যায়।”

[আরও পড়ুন : অবশেষে ফোনে আমন্ত্রণ, ভিডিও কনফারেন্সে রাম মন্দিরের ভূমিপুজো দেখবেন আডবানী-জোশী!]

উত্তরপ্রদেশের মাটির সঙ্গে ছিল তাঁর যোগাযোগ। অনুরাগীরা বলেন, জননেতা ছিলেন অমর সিং। কিন্তু ২০১০ সালে দলের প্রধান মুলায়ম সিং যাদবের সঙ্গে মনোমালিন্য হওয়ায় তাঁকে দল থেকে বহিষ্কার করা হয়। তার আগে অবশ্য তিনি নিজেই দলের সমস্ত পদ থেকে ইস্তাফা দিয়েছিলেন। নিজের দল গড়ার ইচ্ছেও প্রকাশ করেছিলেন অমর সিং। তবে সেই দল তৈরি করেও বিশেষ সুবিধা করতে পারেননি তিনি। দলের কোনও প্রার্থীই নির্বাচনে জিততে পারেননি। পরে তিনি সমাজবাদি পার্টির সমর্ধনে রাজ্যসভার সাংসদ নির্বাচিত হন। 

[আরও পড়ুন : ‘বাক স্বাধীনতার পরিপন্থী’, আদালত অবমাননার আইন বাতিলের দাবিতে মামলা সুপ্রিম কোর্টে]

অমর সিং বলিউডের নক্ষত্র অমিতাভ বচ্চন ঘনিষ্ঠ হিসেবেই পরিচিত। পারিবারিক বন্ধুত্ব রয়েছে তাঁদের। এদিন এই বর্ষীয়ান নেতার মৃত্যুতে রাজনৈতিক দুনিয়ায় শোকের ছায়া নেমে এসেছে। 

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement