Advertisement
Advertisement

Breaking News

খাবার দিতে দেরি, যোগীর রাজ্যে রেস্তরাঁর মালিককে গুলি

লখনউয়ে দুঃসাহসিক শুটআউট৷

Restaurant owner shot at cash counter after minor scuffle in UP
Published by: Sangbad Pratidin Digital
  • Posted:July 30, 2018 5:26 pm
  • Updated:July 30, 2018 5:47 pm

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: সেলুলয়েড নয়, বাস্তব। আর পাঁচটা দিনের মতো ক্যাশ কাউন্টারে বসে হিসেব মেলাচ্ছিলেন রেস্তরাঁর মালিক অলোক আর্য। রবিবার সন্ধ্যায় ভিড় অন্যদিনের তুলনায় কিছুটা হলেও বেশি। আচমকাই কাউন্টারের সামনে দিয়ে যাওয়ার সময় তাঁকে লক্ষ্য করে তিনবার গুলি চালাল এক ব্যক্তি। কোনও রকম নাটকীয়তা ছাড়াই গুলি ছুড়তে ছুড়তে রেস্তরাঁ থেকে বেরিয়ে যায় ওই বন্দুকবাজ। ঘটনাটি ঘটে উত্তরপ্রদেশের লখনউয়ের কাছে সুলতানপুরে। দৃশ্যটা ধরা পড়েছে জনপ্রিয় অবন্তিকা রেস্তরাঁর সিসিটিভির ক্যামেরায়৷

[দিল্লি যাওয়ার পথে এয়ার ইন্ডিয়ার বিমানে বিভ্রাট, বিরক্ত তৃণমূল সাংসদরা]

কাছ থেকে গুলিবিদ্ধ হলেও ভাগ্যের জোরে বেঁচে যান ওই রেস্তরাঁর মালিক। বর্তমানে তিনি হাসপাতালে চিকিৎসাধীন। ঘটনার সঙ্গে যুক্ত অভিযোগে তিনজনকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ। পুলিশ জানিয়েছে, মূল অভিযুক্ত স্থানীয় এক ঠিকাদার। এদিনই সকালে খাবার খেতে রেস্তরাঁয় এসেছিল ওই অভিযুক্ত। ওয়েটার খাবার দিতে দেরি করায় বচসায় জড়ায় ওই বন্দুবাজ। রেস্তরাঁর মালিকের মধ্যস্থতায় তখনকার মতো ঝামেলা মিটলেও কয়েক ঘণ্টা পর দলবল নিয়ে রেস্তরাঁয় হামলা চালায় সে। সিসিটিভি ফুটেজে দেখা গিয়েছে, সাদা শার্ট, নীল জিন্স ও গলায় গামছা জড়ানো ওই ব্যক্তি শান্তভাবে ক্যাশ কাউন্টারের সামনে দিয়ে যাওয়ার সময় পকেট থেকে পিস্তল বের করে রেস্তরাঁ মালিককে লক্ষ্য করে তিনবার গুলি চালায়। কয়েকজন তাকে বাধা দেওয়ার চেষ্টা করলেও থামানো যায়নি।

Advertisement

[নাগরিকপঞ্জির নামে চলছে ‘বাঙালি খেদাও’, অসম ইস্যুতে কেন্দ্রকে তোপ মমতার]

দেখা গিয়েছে, রেস্তরাঁর মালিক কাউন্টার ছেড়ে বেরিয়ে যেতে চাইলেও ব্যর্থ হন। তারপরই তাঁর সাদা শার্ট রক্তে ভেসে যায়। আপাতভাবে খাবার পরিবেশনে দেরি সংক্রান্ত অশান্তির জেরে এই হামলা বলে মনে করা হলেও অন্য একটি সম্ভাবনাও খতিয়ে দেখছে পুলিশ। সূত্রের খবর, স্থানীয় ব্যবসায়ী সমিতির গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্বে রয়েছেন অলোক আর্য। সেই সূত্রে স্থানীয় ওই ঠিকাদারের সঙ্গে তাঁর পুরানো কোনও সংঘাত রয়েছে কি না তা খতিয়ে দেখছে পুলিশ। সেই সঙ্গে অভিযুক্ত তিনজনকে দফায় দফায় জেরা করেও ঘটনার পিছনে থাকা প্রকৃত কারণ জানার চেষ্টা করা হচ্ছে। এই ঘটনায় প্রশাসনের বিরুদ্ধেও আঙুল তুলেছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। তাঁদের অভিযোগ, ঘটনাস্থল থেকে কয়েক মিটারের মধ্যেই রয়েছে জেলাশাসকের সরকারি আবাসন৷  তাও নিরাপদ নন সাধারণ বাসিন্দারা৷

Advertisement

[চেয়ারে দীর্ঘক্ষণ বসে কাজ, শিরদাঁড়ার ক্ষয় রুখতে মেনে চলুন এই উপায়]

Sangbad Pratidin News App

খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ