১৯ অগ্রহায়ণ  ১৪২৮  সোমবার ৬ ডিসেম্বর ২০২১ 

READ IN APP

Advertisement

‘ভারতকে এমন শিক্ষা দেব যে আগামী কয়েক প্রজন্ম মনে রাখবে’

Published by: Sangbad Pratidin Digital |    Posted: May 24, 2017 8:50 am|    Updated: May 24, 2017 8:50 am

Retaliation to Indian aggression will be remembered for generation, says pak air chief

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: ভারতকে এমন শিক্ষা দেব, যে আগামী কয়েক প্রজন্ম মনে রাখবে। বুধবার এমনই মন্তব্য করলেন পাকিস্তানের এয়ার চিফ মার্শাল সোহেল আমান। একটি পাক মিডিয়াকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে তিনি ইঙ্গিত দিয়ে রাখলেন, ভারতের সঙ্গে যুদ্ধের জন্য চূড়ান্ত প্রস্তুতি সেরে ফেলছে পাক বায়ুসেনা। পাক মিডিয়ার দাবি, এদিন সিয়াচেনের কাছে টহল দিয়েছে পাক বায়ুসেনার মিরাজ যুদ্ধবিমান। যদিও ভারতীয় বায়ুসেনা এই দাবি উড়িয়ে জানিয়েছে, কোনও পাক যুদ্ধবিমান ভারতীয় বায়ুসীমা লঙ্ঘন করেনি।

[সিয়াচেনে টহল দিতে শুরু করল পাক বায়ুসেনার ‘মিরাজ’]


সম্প্রতি ভারতের এয়ার চিফ মার্শাল বি এস ধানোয়া ভারতীয় বায়ুসেনার প্রত্যেক অফিসারকে ব্যক্তিগত স্তরে চিঠি লিখে জানান, স্বল্প সময়ের নোটিশে যুদ্ধের জন্য প্রস্তুত থাকুন। ওই ঘটনার পরই পাক বায়ুসেনাও এবার তৎপর হয়ে উঠেছে। পাক মিডিয়ার আরও দাবি, পাকিস্তানের গিলগিট-বাল্টিস্তানের কাছে স্কার্ডু বিমানবন্দরে সেনার কাদরি বায়ুঘাঁটিতে পাকিস্তানের ফাইটার জেট স্কোয়াড্রন ভারতের বিরুদ্ধে যুদ্ধের মহড়া শুরু করে দিয়েছে। ভারতের যে কোনও হুঁশিয়ারির পাল্টা জবাব দিতে পাক বায়ুসেনার সবক’টি ঘাঁটিকেই ‘অপারেশনাল’ করে তোলা হচ্ছে। এয়ার চিফ মার্শাল সোহেল আমান নিজেও একটি মিরাজ যুদ্ধবিমান উড়িয়েছেন এদিন। সেই ছবি ও ভিডিও প্রকাশ করেছে পাক সংবাদমাধ্যম।

[নৌশেরায় পাক সেনাঘাঁটি গুঁড়িয়ে দিয়ে যোগ্য জবাব দিল ভারত]

পাক সেনা ও জঙ্গিদের বেশ কয়েকটি ঘাঁটি মিসাইল ও বোমা দেগে উড়িয়ে দেওয়ার ভিডিও প্রকাশ্যে আসতেই পাকিস্তানের এই পদক্ষেপ পাল্টা জবাব দেওয়ার প্রস্তুতি বলেই বলেই মনে করছেন প্রতিরক্ষা বিশেষজ্ঞরা। ভারতীয় সেনা গত ৯ মে-র একটি ভিডিও প্রকাশ করে জানায়, জম্মু ও কাশ্মীরের নৌশেরা সেক্টরে ব্যাপক গোলাবর্ষণ করে বড়সড় অনুপ্রবেশের ছক রুখে দেওয়া হয়েছে। সার্জিক্যাল স্ট্রাইকের পর এত বড় মাপের অভিযান পাক সেনা ও জঙ্গিদের বিরুদ্ধে চালায়নি ভারত। পাকিস্তানের পোস্ট লক্ষ্য করে বাঙ্কার গুঁড়িয়ে দিতে সক্ষম এমন কামান, অ্যান্টি-ট্যাঙ্ক গাইডেড মিসাইল, অটো-মেটেড গ্রেনেড লঞ্চার ব্যবহার করা হয়েছে।

[‘পাথর নিক্ষেপকারীকে নয়, অরুন্ধতী রায়কে বাঁধা হোক জিপের সামনে’]

নয়াদিল্লির এই কড়া হুঁশিয়ারির পরই নড়েচড়ে বসে ইসলামাবাদ। ভারতীয় সশস্ত্র বাহিনীর মুখপাত্র মেজর জেনারেল অশোক নারুলা পাকিস্তানকে হুঁশিয়ারি দিয়ে বলেন, “অনুপ্রবেশের লক্ষ্যে জঙ্গিদের কভার ফায়ার দিচ্ছে পাক সেনা। ভারতীয় সেনার এই অভিযান পাক সেনা ও জঙ্গিদের যৌথবাহিনীকে ফের মনে করিয়ে দিতে চায়, নিয়ন্ত্রণরেখায় ভারতই আধিপত্য চালাবে।” পাল্টা পাক এয়ার চিফ এদিন বলেছেন, “দেশবাসীকে শত্রুপক্ষের বিবৃতি নিয়ে চিন্তা করতে হবে না।” পাক সেনার মুখপাত্র দাবি করেছেন, ভারতীয় সেনা যে ভিডিও প্রকাশ করেছে সেটি জাল।

[মঙ্গলবার প্রকাশিত হতে চলেছে উচ্চ মাধ্যমিকের ফল!]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে