BREAKING NEWS

৪ আশ্বিন  ১৪২৭  সোমবার ২১ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

মুখ্যমন্ত্রী কে হবেন? মধ্যপ্রদেশে ক্ষমতা দখলের আগেই জোড়া কাঁটায় বিদ্ধ পদ্ম শিবির

Published by: Paramita Paul |    Posted: March 11, 2020 4:20 pm|    Updated: March 11, 2020 4:20 pm

An Images

ফাইল ফটো

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: মধ্যপ্রদেশে ঘর গোছানোর শুরুতেই অস্বস্তিতে বিজেপি। একদিকে, সরকার গঠনের আগেই মুখ্যমন্ত্রী পদের জন্য অন্তর্দ্বন্দ্ব শুরু হয়ে গিয়েছে। অন্যদিকে, কংগ্রেস ছেড়ে জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়ার বিজেপিতে যোগদান নিয়ে নাখুশ মধ্যপ্রদেশের বিজেপির রাজ্যসভার সাংসদ প্রভাত ঝাঁ। ফলে মধ্যপ্রদেশে জোড়া অস্বস্তির কাঁটায় বিদ্ধ পদ্ম শিবির।

মধ্যপ্রদেশে সরকার গড়তে মরিয়া বিজেপি। কংগ্রেস ছেড়ে বিজেপিতে যোগ দিয়েছেন জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়া। তাঁর সঙ্গে ২২ জন বিধায়কও রয়েছেন বলে খবর। ফলে মধ্যপ্রদেশে খাদের কিনারায় দাঁড়িয়ে রয়েছে কংগ্রেস সরকার। তবে সরকার গড়ার পথে কাঁটায় বিদ্ধ পদ্ম শিবিরও। ইতিমধ্যে মুখ্যমন্ত্রীর পদ নিয়ে প্রাক্তন মুখ্যমন্ত্রী শিবরাজ সিং চৌহান এবং বিধায়ক নরোত্তম মিশ্রর মধ্যে টানাপোড়েন শুরু হয়ে গিয়েছে। এমনকী মঙ্গলবার দু’পক্ষের সমর্থকদের মধ্যে বচসা শুরু হয়। রাজ্যের কংগ্রেস সরকারে ঘুণ ধরাতে নরোত্তম মিশ্রর গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রয়েছে বলে দাবি করেন। একইসঙ্গে এই ‘রংপঞ্চমী’ মিশনে শিবরাজের কোনও ভূমিকা নেই বলেও দাবি করেন তাঁরা। এদিকে প্রকাশ্যে দুই নেতাই অবশ্য দাবি করেছেন, কংগ্রেসের কোন্দলের পিছনে তাঁদের কোনও ভূমিকা নেই। কিন্তু তাঁদের মধ্যে মুখ্যমন্ত্রী পদের জন্য টানাপোড়েন রয়েছে তা আরও একবার স্পষ্ট হয়ে গিয়েছে।

[আরও পড়ুন: করোনা আক্রান্তের কথা প্রশাসনকে জানিয়ে বরখাস্ত চিকিৎসক, কেরলে শোরগোল]

অন্যদিকে, মধ্যপ্রদেশের দাপুটে নেতা জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়ার বিজেপি যোগ দেওয়া ঘিরে বিজেপির অন্দরেই ফাটল তৈরি হয়েছে। রাজনৈতিক মহলের মতে, মধ্যপ্রদেশ থেকে বিজেপির রাজ্যসভার সদস্য হবেন জ্যোতিরাদিত্য। বর্তমানে এই রাজ্য থেকে রাজ্যসভার অন্যতম সাংসদ রয়েছেন প্রভাত ঝাঁ। আগামী রাজ্যসভা নির্বাচনে তাঁর বদলে জ্যোতিরাদিত্যকে বিজেপি প্রার্থী করতে পারে বলে রাজনৈতিক মহলের দাবি। সেই কথা মাথায় রেখেই জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়ার দলে যোগ দেওয়ার বিরোধিতা করছেন তিনি। এ নিয়ে দলের শীর্ষ নেতৃত্বের কাছেও অভিযোগ জানিয়েছেন প্রভাত ঝাঁ। দলীয় সূত্রে খবর, লোকসভা নির্বাচনের আগে থেকেই দলে কোণঠাসা প্রভাত। তিনি আর আগেও প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এবং স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহের কাছে অভিযোগ জানিয়েছিলেন। কিন্তু কোনও লাভ হয়নি।

[আরও পড়ুন: বিজেপিতে যেতে নারাজ ১২ বিধায়ক, মধ্যপ্রদেশে আশার আলো দেখছে কংগ্রেস]

জ্যোতিরাদিত্য সিন্ধিয়ার সঙ্গে ২২ জন বিধায়ক রয়েছেন। তাঁদের মধ্যে আবার দুজন রাজ্যের মন্ত্রী। সূত্রের খবর, তাঁদের মধ্যে ১২ জন বিজেপিতে যোগ দিতে নারাজ। ফলে মধ্যপ্রদেশে বিজেপির সরকার গড়া যে মসৃণ হবে না, তা বলার অপেক্ষা রাখে না। উপরন্তু মধ্যপ্রদেশে সরকার গড়ার আগেই এই দুই কাঁটায় জর্জরিত পদ্ম শিবির।

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement