২ আশ্বিন  ১৪২৭  রবিবার ২০ সেপ্টেম্বর ২০২০ 

Advertisement

সংঘাত শেষ, হাত মিলিয়ে পাইলটকে ঘরে ফেরালেন গেহলট

Published by: Paramita Paul |    Posted: August 13, 2020 8:39 pm|    Updated: August 13, 2020 8:46 pm

An Images

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: রাগ-অভিমান-সংঘাতের পালা শেষ। পুনর্মিলনের আবহ রাজস্থান (Rajasthan) কংগ্রেসে। বৃহস্পতিবার সন্ধেয় ‘বিদ্রোহী’ শচীন পাইলটের সঙ্গে দেখা করলেন মুখ্যমন্ত্রী অশোক গেহলট। হাতও মেলালেন। বললেন, যা হয়েছে ভুলে যাও। দুজনকে এক গাল হাসি নিয়ে পাশাপাশি দাঁড়িয়ে ছবি তুলতেও দেখা গেল দুজনকে।

দিল্লিতে রাহুল-প্রিয়াঙ্কার সঙ্গে বৈঠকের পর থেকেই বরফ গলছিল। ক্ষমা করে দেওয়ার বার্তা দিয়েছিলেন গেহলটও (Ashok Gehlot)। কিন্তু সাক্ষাৎ করছিলেন না। অবশেষে দলের বৈঠকে মুখোমুখি হলে প্রবীণ ও নবীন নেতা। এক মাসের সংঘাতের পরে অবশেষে এক ছাদের তলায় এল রাজস্থানে কংগ্রেসের (Congress) দুই শিবির। মুখ্যমন্ত্রীর বাড়িতে কংগ্রেসের বৈঠকে হাত মিলিয়ে শচীন পাইলটকে স্বাগত জানালেন গেহলট।

আগামী কাল থেকে বিধানসভার অধিবেশন শুরু হচ্ছে রাজস্থানে। তার আগে নিজেদের কৌশল ঠিক করার জন্যই এদিনের বৈঠক ডাকা হয়েছে। সেখানেই কিছুক্ষণ কথা বলতেও দেখা গেল পাইলট ও গেহলটকে। প্রসঙ্গত, বিজেপি জানিয়ে দিয়েছে, তাঁরা অনাস্থা প্রস্তাব আনছে। কংগ্রেসের কাছে সংখ্যাগরিষ্ঠতা আছেই। তাই বিজেপিকে ধরাশায়ী করার নীল-নকশা ছকে ফেললেন কংগ্রেস। সূত্রের খবর, তাঁরা পালটা আস্থাভোটের প্রস্তাব দেবেন। 

[আরও পড়ুন : প্রথম অকংগ্রেসি প্রধানমন্ত্রী হিসাবে এই বিরল রেকর্ড গড়লেন মোদি]

শচীন পাইলট বলেছিলেন, তিনি কংগ্রেস ছাড়বেন না, তখন গেহলট বলেছিলেন, ‘ফরগেট অ্যান্ড ফরগিভ’। যা হয়েছে সব ভুলে যান। এদিন তিনি ফের টুইট করে বলেন, ‘ফরগেট অ্যান্ড ফরগিভ’। তাছাড়া গেহলট হিন্দিতে টুইট করে বলেন, “সনিয়া গান্ধী ও রাহুল গান্ধীর নেতৃত্বে গণতন্ত্রের জন্য লড়াই চালাচ্ছে কংগ্রেস। গত এক মাসে কংগ্রেসের অভ্যন্তরে নানা বিষয়ে মতভেদ দেখা গিয়েছিল। কিন্তু সেকথা ভুলে আমাদের সামনের দিকে অগ্রসর হতে হবে।”

এদিকে এদিন বসুন্ধরা রাজে সিন্ধিয়া-সহ বিজেপি নেতৃত্ব অধিবেশন নিয়ে বৈঠক বসেন। রাজ্যে রাজনৈতিক অস্থিরতা তৈরির পরে এটাই ছিল বিজেপির পরিষদিয় দলের প্রথম বৈঠক। এদিন সেই বৈঠকের পরে রাজস্থান বিধানসভার বিরোধী দলনেতা তথা বিজেপি বিধায়ক গুলাবচাঁদ কাটারিয়া সংবাদমাধ্যমকে জানান, “শুক্রবার থেকে রাজস্থান বিধানসভার অধিবেশন শুরু হচ্ছে। আর তার প্রথম দিনেই আনা হবে অনাস্থা প্রস্তাব।”

[আরও পড়ুন : সোশ্যাল মিডিয়ায় হিন্দু বিরোধী পোস্ট, প্রাক্তন বিধায়ককে দল থেকে সাসপেন্ড করল আপ]

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement

Advertisement