BREAKING NEWS

৩ মাঘ  ১৪২৮  সোমবার ১৭ জানুয়ারি ২০২২ 

READ IN APP

Advertisement

তিব্বতে তৎপর লালফৌজ, উপগ্রহ চিত্রে প্রকাশ্যে ‘ড্রাগনে’র অভিসন্ধি

Published by: Monishankar Choudhury |    Posted: July 27, 2020 2:48 pm|    Updated: July 27, 2020 2:49 pm

Satellite images reveal continued Chinese military build-up in Tibet, Aksai Chin

প্রতীকী

সংবাদ প্রতিদিন ডিজিটাল ডেস্ক: আলোচনা চালালেও পূর্ব লাদাখে ভারতীয় জমি থেকে সম্পূর্ণভাবে ফৌজ সরিয়ে নেয়নি চিন। প্যাংগং লেকের ফিঙ্গার এরিয়া, গালওয়ান নদী উপত্যকা, দেপসাং সমতলভূমি, গোগরা, হট স্প্রিংয়ে এখনও ভারতীয় ভূখণ্ড দখল করে রেখেছে লালফৌজ। এহেন পরিস্থিতিতে এবার তিব্বত এবং আকসাই চিনে নতুন করে সেনা মোতায়েন শুরু করেছে চিন। সেই ছবি ধরা পড়েছে উপগ্রহ চিত্রে।

[আরও পড়ুন: ‘সামনে দাঁড়িয়ে থেকে দেশকে সুরক্ষা দেয় CRPF’, ৮২তম প্রতিষ্ঠা দিবসে কুর্নিশ মোদির]

গত ২০ জুলাই স্যাটেলাইট ছবিতে দেখা যাচ্ছে, তিব্বতের শিকুয়ানহিতে বিস্তীর্ণ এলাকা জুড়ে সামরিক পরিকাঠামো গড়ে তুলছে ‘পিপলস লিবারেশন আর্মি’ (PLA)। অস্থায়ী সেনা শিবিরের পাশাপাশি তৈরি করা হচ্ছে হেলিপ্যাড। ট্যাঙ্ক, প্রচুর অস্ত্রশস্ত্র-সহ মোটর রাইফেল ডিভিশন মোতায়েন করার কাজও চলছে ওই এলাকাগুলিতে। অন্তত পাঁচ হাজার সেনা ও অস্ত্রশস্ত্র মোতায়েনের মতো পরিকাঠামো তৈরি হচ্ছে ওই এলাকায়। এদিকে, আকসাই চিনেও দ্রুত সামরিক পরিকাঠামো নির্মাণ শুরু করেছে বেজিং। ১৯৬২ সাল ভারত-চিন যুদ্ধের সময় লাদাখ ঘেঁষা আকসাই চিন দখল করেছিল লালফৌজ। তারপর লাগাতার অগ্রস চালিয়ে প্যাংগং লেকের ফিঙ্গার এরিয়া, গালওয়ান উপত্যকা, দেপসাং, গোগরা, হট স্প্রিং থেকে একেবারে দৌলত বেগ ওল্ডি পর্যন্ত এলাকাকে নিজেদের বলে দাবি করা শুরু করে চিন। সেনা সূত্রে খবর, শীতের জন্য তৈরি হচ্ছে চিনা বাহিনী। অর্থাৎ আপাতত ঐ এলাকা থেকে সেনা প্রত্যাহার করার কোনও ইচ্ছা চিনের নেই। তাই আলোচনা চললেও যে কোনও পরিস্থিতির জন্য তৈরি রয়েছে ভারতীয় সেনা।

জুলাইয়ের ১০ তারিখ তোলা উপগ্রহের ছবিতে দেখা যায়, লাদাখের প্যাংগং লেকের পারে ফিঙ্গার-৪ থেকে আংশিকভাবে সেনা প্রত্যাহার করেছে লালফৌজ (PLA)। তবে এখনও চিনা সেনার বেশ কয়েকটি তাঁবু সেখানে রয়েছে। ফলে এটা সাফ হয়ে যাচ্ছে যে, দু’দেশের মধ্যে চলা কূটনৈতিক আলোচনার জেরে সেনা প্রত্যাহার শুরু হলেও ভারতের জমি থেকে (এপ্রিলের আগের অবস্থানে) সম্পূর্ণভাবে সরে যায়নি চিনা বাহিনী। পাশাপাশি, ফিঙ্গার-৪ থেকে ১০ কিলোমিটার পূর্বে প্যাংগং লেকে এখনও চিনা জলযান ঘোরাফেরা করছে। প্যাংগং লেক বরাবর ফিঙ্গার ১ থেকে ফিঙ্গার ৮ পর্যন্ত বরাবর টহল দিয়ে এসেছে ভারতীয় ফৌজ। তবে চিনের দাবি, ফিঙ্গার ৮ থেকে ফিঙ্গার ৪ পর্যন্ত তাদের এলাকা। ফলে সংঘাত বাড়ছে দুই বাহিনীর মধ্যে। গত মে মাসে ওই এলাকায় আচমকাই ভারতীয় জওয়ানদের উপর লাঠি ও পাথর নিয়ে হামলা চালিয়েছিল চিনা বাহিনী। সেনা সূত্রে খবর, ওই ঘটনার পর থেকেই প্রচুর সেনা মোতায়েন করেছে লালফৌজ। শুধু তাই নয়, ফিঙ্গার ৪ থেকে আর ভারতীয় জওয়ানদের টহল দিতে দিচ্ছে না চিনারা। বর্তমানে ওই ফিঙ্গার ৪-ই কার্যত সীমান্ত হয়ে দাঁড়িয়েছে।

[আরও পড়ুন: চিনের সঙ্গে সংঘাতের আবহেই আমজনতার জন্য সিয়াচেনের দরজা খুলল ভারতীয় সেনা]

Sangbad Pratidin News App: খবরের টাটকা আপডেট পেতে ডাউনলোড করুন সংবাদ প্রতিদিন অ্যাপ
নিয়মিত খবরে থাকতে লাইক করুন ফেসবুকে ও ফলো করুন টুইটারে